তিন জন পজিটিভসহ ভারত থেকে ফিরলেন ৪৩৯ বাংলাদেশি

ভারতের নতুন ধরনের করোনা ভ্যারিয়েন্ট কোনোভাবেই যাতে বাংলাদেশে ছড়াতে না পারে সেজন্য সীমান্ত ১৪ দিনের জন্য বন্ধ ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ। সোমবার (২৬ এপ্রিল) থেকে এই নির্দেশ কার্যকর হয়েছে। তবে যেসব বাংলাদেশির ভিসার মেয়াদ শেষ হয়ে যাচ্ছে তারা ভারতে বাংলাদেশি দূতাবাসের বিশেষ অনুমতি নিয়ে দেশে ফিরছেন। নিষেধাজ্ঞার পর থেকে বুধবার (২৮ এপ্রিল) বিকাল পর্যন্ত সময়ে ভারতে আটকে পড়া ৪৩৯ জন বাংলাদেশি বেনাপোল স্থলপথে দিয়ে দেশে ফিরেছেন। বাংলাদেশ থেকে ভারতে ফিরেছেন ৬৭ যাত্রী। আগত বাংলাদেশিদের মধ্যে তিন জন করোনা পজিটিভ শনাক্ত হয়েছেন।

ফেরত আসা বাংলাদেশিরা বেনাপোলের সাতটি আবাসিক হোটেলে ১৪ দিনের জন্য প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে আছেন। এদের মধ্যে করোনা আক্রান্ত তিন জন। তারা ভারতে গিয়ে করোনা পজিটিভ হন। তবে নতুন করে এ বেনাপোল সীমান্ত দিয়ে কেউ দুই দেশে পারাপার করেননি।ভারত থেকে দেশে ফেরা পাসপোর্ট যাত্রী ভারত থেকে দেশে ফেরা যাত্রীরা

এদিকে চিকিৎসা শেষে হাতে খরচের টাকা না থাকায় ভারতফেরত বাংলাদেশিরা নিজ খরচে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে অসহায় দিন পার করছেন বলে জানা গেছে। তবে সরকারি নির্দেশনা মানতে বাধ্য হয়ে তাদের প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে থাকতে হচ্ছে।

বেনাপোল ইমিগ্রেশন স্বাস্থ্য বিভাগের মেডিক্যাল অফিসার আশরাফুজ্জামান বলেন, ‘ভারতফেরত বাংলাদেশিরা বেনাপোল বন্দর এলাকার সাতটি আবাসিক হোটেলে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে আছেন। সেখানে সব খরচ যাত্রীদের বহন করতে হবে। এছাড়া ফেরত আসা তিন বাংলাদেশি করোনা পজিটিভ। তাদের যশোর সদর হাসপাতালের করোনা ইউনিটে ভর্তি করা হয়েছে।’

বেনাপোল ইমিগ্রেশন ওসি আহসান হাবিব বলেন, ‘বাংলাদেশি উপ-হাইকমিশনারের ছাড়পত্র থাকায় আটকে পড়া ৪৩৯ জন ভারত থেকে দেশে ফিরেছেন। ভারতীয় নাগরিক ফিরেছেন ৬৭ জন। তবে নিষেধাজ্ঞার পর থেকে বাংলাদেশি কোনও পাসপোর্টধারী যাত্রী নতুন করে ভারতে যাননি এবং ভারত থেকেও ভারতীয় নাগরিক বাংলাদেশে আসেননি।’

কমেন্টসমুহ
Secret Diary Secret Diary

Top