হরর সিনেমার সেটে সত্যিকারের ভৌতিক ঘটনা! (সত্য কাহিনী অবলম্বনে)

আবারও শুরু হয়ে গেলো প্রিয় লাইফের সেই জনপ্রিয় বিভাগ “অমীমাংসিত”। এই বিভাগে আমরা তুলে ধরবো পৃথিবী বিখ্যাত সব সত্যিকারের ভূতের কাহিনী, অমীমাংসিত সব রহস্যময় ঘটনার আদ্যোপান্ত, এমন সব ঘটনা যার কোন ব্যাখ্যা আজতক নেই। কিন্ত ঘটনা গুলো সত্যি আর ঘটেছে এই পৃথিবীর বুকেই। পাঠক পড়ে দেখতে পারেন, হয়তো একটা সমাধান খুঁজে পাবেন আপনি নিজেই!

ভূতের মুভি তো অনেক আছে। তাতে ভূতও রয়েছে অনেক। কিন্তু বাস্তবে কি ভূত বা অশরীরি বলে কিছু আছে? আর কোথাও আছে কিনা না জানলেও কিছু হরর মুভির সেটে থাকা সব কলাকুশলী বেশ ভালো করেই জানেন যে ভূত আছে। কারণ আর কিছু না, ভূতের চাক্ষুষ উপস্থিতি। তাও আবার হাস্যকরভাবে হরর মুভির সেটেই! কে জানে, হয়তো ভূতের ইচ্ছে হয়েছিল মুভিতে অভিনয়ের। কিংবা মুভি তৈরিতে সাহায্য করার। আসুন জেনে নিই ভূতের হানা দিয়ে যাওয়া বিখ্যাত কিছু ভূতুড়ে সিনেমার সেটের সত্য কাহিনী।

১. দ্যা এ্যাকসরসিস্ট

মুভিটির দৃশ্যায়ন শুরু হবার কিছুদিনের ভেতরেই রেগান হাউজ নামের বাড়িটি পুড়ে যায় আগুনে। সব পুড়ে ছাই হয়ে গেলেও অক্ষত থাকে শোবার ঘরটি। ভূতের কাজ ভেবে নতুন করে ঘর বানিয়ে সেটাকে মন্ত্র পড়ে শুদ্ধও করিয়ে নেয় সবাই। কিন্তু শেষরক্ষা হয়নি। মুভি মুক্তি পাওয়ার আগেই রহস্যজনকভাবে মারা যেতে হয় এর অভিনেতা ও অভিনেত্রী বার্ক ডেনিং ও মিসেস ক্যারাসকে।

২. দ্যা ওম্যান

মুভিটির দৃশ্যায়ন শুরু হবার পরপরই গাড়ি দুর্ঘটনার মুখে পড়ে এর ডিজাইনার জন রিচার্ডসন ও তার বান্ধবী। জন আহত হলেও মারা যায় মেয়েটি। তাও আবার একইরকম ভঙ্গিমায় যেমনটা ছবিটিতে মারা গিয়েছিল অভিনেত্রী জেনিংস। শুধু এই নয়, কিছুদিন পরেই ছবিটির প্রযোজক অদ্ভুত আলোর কারণে প্লেন নিয়ে বিহ্বল হয়ে পড়েন। ছবিটির প্রধান অভিনেতা গ্রেগোরী পিক তার বিমান ধরতে দেরী করেন, যেটা কিনা খানিক বাদেই এমনভাবে ধ্বংস হয়েছিল যে কেউই বাঁচতে পারেনি।

৩. পলটারজিস্ট

ছবিটি তৈরির সময় অভিনেতা অলিভার রবিনের গলা চেপে ধরে এক শয়তানরুপী পুতুল। স্টিভেন স্পিলবার্গ গিয়ে বাঁচান তাকে। পরবর্তীতে ছবিটির আরেক অভিনেতা হেদার ও রোর্ক মারা যান সাধারন অপারেশনের সময়। অন্যদিকে ডমিনেক ডান মারা যান কিছুদিনের ভেতরেই। তার প্রাক্তন প্রেমিক গলা চিপে মেরে ফেলে তাকে।

৪. রোজমেরীস বেবী

ছবিটির মাধ্যমে এর প্রযোজক এত বেশি পরিমাণ অপমানসূচক মেইল পেয়েছিলেন যে হাসপাতালে ভর্তি করা হয় তাকে। যদিও অনেকে তার এই অসুস্থতার কারণ হিসেবে অন্যকিছুকে দায়ী করেন। কারণ সেসময়গুলোতে কেবল একটি কথাই আওড়াতেন প্রযোজক। আর সেটি হল- রোজমেরী! দয়া করে তোমার ছুরি নামাও!

৫. দ্যা ক্রো

ব্রুস লীর ছেলে মারা যায় এ ছবিটি করতে গিয়ে। মজা করতে করতে একটি পিস্তল তুলে গুলি করে ফেলে একজন তাঁকে। যদিও সেখানে কোন পিস্তলভরাগুলি, এমনকি আসল পিস্তলই থাকার কথা ছিলনা। পরবর্তী সময়গুলোতে অভিশপ্ত বলে মনে করা হত ঐ সেটকে।

তথ্যসূত্র-
These Mysterious Incidents On The Sets Of Horror Movies Are Creepy As Hell- guardian- www.scoopwhoop.com

কমেন্টসমুহ
Secret Diary Secret Diary

Top