কুমারীত্ব প্রমাণে জার্মান তরুণীদের কৌশল!

অনেকাংশেই কুমারীত্ব হারানোর জন্য এখনও ফুলশয্যার রাতে স্বামীর অত্যাচারের শিকার হতে হয় স্ত্রীদের। কুমারীত্ব খোয়ানোর দায়ে প্রাণ হারাতে হয়েছে এমন অভিযোগও রয়েছে। এমনকী, উন্নততর পশ্চিমি দুনিয়াতেও কেউ কেউ সংস্কারবশত স্বামীর কাছে নিজেদের কুমারী বলে প্রমাণ করতে চান। তাই, কুমারীত্ব প্রমাণে নাকি নকল সতীচ্ছদ কিনছেন অনেক তরুণীরা। জানা গেছে, নকল সতীচ্ছদ বিক্রি করেছে জার্মানির এক সংস্থা। তাদের দাবি, নকল সতীচ্ছদ খুব সহজেই প্রতিস্থাপিত করা যাবে নারীদেহে।

কোনো চিকিৎসকের সাহায্য ছাড়াই সেটি প্রতিস্থাপিত করতে পারবেন নারীরা। স্বামীর সঙ্গে দৈহিক মিলনের আগে লজ্জা ও ভয় কাটাতে নকল এই সতীচ্ছদের জুড়ি মেলা ভার। এমনটাই দাবি করেছে জার্মান এই সংস্থাটি। শুধু তাই নয়, ডাক্তারি পদ্ধতিতে অস্ত্রোপচারের খরচের তুলনায় অনেক কম খরচেই তা প্রতিস্থাপিত করা যাবে শরীরে। দৈহিক মিলনের সময় তা আসল সতীচ্ছদের ভূমিকাই পালন করবে বলেও দাবি সংস্থাটির। জার্মান সংস্থার তৈরি নকল সতীচ্ছদ ইতিমধ্যেই প্রশংসা কুড়িয়েছে ক্রেতাদের মধ্যে।

এক নারী জানিয়েছেন, এই সংস্থার তৈরি সতীচ্ছদই তাঁকে বেঁচে থাকতে সাহায্য করেছে। অপর একজন জানিয়েছেন, এই সংস্থার তৈরি সতীচ্ছদ যে কীভাবে আমায় সাহায্য করেছে তা ভাষায় বোঝাতে পারব না। সংস্থার মুখপাত্র দাবি করেছেন, সারা বিশ্বেই বিক্রি হচ্ছে তাদের তৈরি নকল সতীচ্ছদ। তবে তাদের বেশির ভাগ গ্রাহকই একটি বিশেষ ধর্মের নারী। যদিও হাইমেনস প্রতিস্থাপনের এই সংস্থাটির অনলাইন পরিষেবা বন্ধ করতে তৎপর হয়েছে মিসর। সেখানকার রাজনীতিবিদরা বিষয়টিকে বেআইনি বলেও দাবি করেছেন।

কমেন্টসমুহ
Secret Diary Secret Diary

Top