বাংলাদেশি প্রিয়তি শরীরে আঁকলেন মহাকাশের কান্না

গতবছর ‘মিজ আয়ারল্যান্ড’ খেতাব পাওয়ার পরই আলোচনায় আসেন মাকসুদা আকতার প্রিয়তি। তিনি আয়ারল্যান্ডে বাস করছেন গত ১৪ বছর ধরে। সম্প্রতি জ্যামাইকাতে অনুষ্ঠিত মিজ আর্থ প্রতিযোগিতায় প্রথম রানারআপও হয়েছেন এই বাংলাদেশি মেয়ে। তবে সবকিছুর সঙ্গে নিজেকে নিয়োজিত রেখেছেন সমাজ সেবায়ও। যেমন ফেসবুকে বন্ধু হতে আগ্রহীদের কাছে জানালেন বাংলাদেশি দরিদ্র শিশুদের সাহায্য করার আহ্বান। তবে এখন শীতের সময় তাই শীত কবলিত এলাকায় গরীব মানুষদের শীত বস্ত্র দিয়ে তাদের পাশে দাঁড়াতে চান তিনি। তাঁর ধারাবাহিকতায় এবার তিনি বিশ্বের জলবায়ু পরিবর্তনের জন্য একটি গ্লামার ন্যুড ফটোশুট করেছেন। সেই ছবি গুলো তিনি ফেসবুকে শেয়ার করেছেন।

1619323_1099678226722853_1645710913105814409_n

প্রিয়তির মেকাপ ও পেইন্টিং করছেন ক্রিস্টিন মাঙান এবং চুলের সাজ দিয়েছেন সারসা পাসমান। ফটো শুটের করিওগ্রাফি প্রিয়তি নিজেই করেছেন। যার নাম দিয়েছেন ‘গ্লোবাল ওয়ার্মিং সচেতনতা ক্যাম্পেইন ২০১৫ এর দল’। এর বিষয়বস্তু ছিল ‘পৃথিবীর জন্য মহাকাশ থেকে কান্না’। প্রিয়তি তাঁর শরীরেরই এঁকেছেন মহাকাশের কান্না। এই বিষয়টি নিয়ে প্রিয়তি তাঁর ফেসবুকে একটি লেখা প্রকাশ করেন যার চুম্বক অংশ পাঠকের জন্য দেওয়া হলো। পৃথিবীর জন্য মহাকাশ থেকে কান্না ‘পৃথিবীর জলবায়ুর পরিবর্তিত হয়েছে। তাপমাত্রা বেড়েছে এবং আগের চেয়ে আরও দ্রুত জলবায়ু পরিবর্তন ঘটছে যার ফলে পৃথিবীতে বন্যা ও খরা বাড়ছে। যার ফলে বিশ্বের জল সিস্টেমে গুরুতর প্রভাব পড়ছে।

10590445_1099678300056179_5105475702393842443_n

আমাদের প্রজন্মের মানুষরা দেখতে পাচ্ছিনা সবচেয়ে বড় পরিবেশগত কতটা চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন হচ্ছে পৃথিবী। তবে এখন কোন পরিবর্তন না হলেও ক্রমাগত আমরা প্রভাবিত হচ্ছি। অথচ জলবায়ুর এই পরিবর্তন নিয়ে আমাদের মাথা ব্যথা কম। তবে জলবায়ুর এই পরিবর্তনের দ্বারা একদিন আমাদের সবার অনেক প্রভাবিত হতে হবে। বিগত ১৫০ বছর ধরে আমরা আমাদের পৃথিবীর এই জলবায়ুর পরিবর্তনের মধ্যেই বসবাস করে আমাদের এই পৃথিবীর ভারসাম্য পরিবর্তন করেছি। আমরা জীবাশ্ম (যেমন কয়লা, তেল, গ্যাস হিসাবে) জ্বালানি,লাইভস্টক উৎপাদনে বিপুল পরিমাণ বন পুড়িয়ে শেষ করেছি।

অপ্রতিরোধ্য প্রমাণ আমরা এখন দেখছি, গ্লোবাল ওয়ার্মিং বেশিরভাগই মানুষের দ্বারা সৃষ্টি হয়। তাই আসুন আমাদের পৃথিবী আমরাই সংরক্ষণ করি এবং আপনারাও করুন।’ এ বিষয়ে প্রিয়তি প্রিয়.কমকে বলেন, ‘শুধু আমরা নই পৃথিবীর সবাই কোন না কোন ভাবে জলবায়ুর উপর কাজ করবে। এটা আমার দিক থেকে একটা সেবা মূলক কাজ করা। আমি আয়ারল্যান্ডের অনেক জায়গাতে যাব। গিয়ে বলব আসুন আমরা পৃথিবী বাঁচাই।’

কমেন্টসমুহ
Secret Diary Secret Diary

Top