১৮ বছরের নিচে হিজাব পড়া নিষিদ্ধ করলো ফ্রান্স, প্রতিবাদে মুসলিমরা

ফ্রান্সে ১৮ বছরের কম বয়সী নারীরা প্রকাশ্যে হিজাব পরতে পারবে না বলে দেশটির সিনেট একটি বিল পাস করেছে। বিতর্কিত এই বিল পাশের পর থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যাপক তীব্র নিন্দা ও সমালোচনা শুরু হয়।

কাতার ভিত্তিক সংবাদ মাধ্যম আলজাজিরার বরাতে জানা যায়, ফরাসি সরকার বলছে, বিচ্ছিন্নতাবাদ বিরোধী এই আইনের উদ্দেশ্য হচ্ছে দেশের সেক্যুলার ব্যবস্থাকে গতিশীল করা। কিন্তু সমালোচকরা বলছে, মূলত দেশটির মুসলিম সংখ্যালঘুদের টার্গেট করতেই এমন আইন আনছে ফ্রান্সের সরকার।

তবে সামাজিকমাধ্যমে ‘#হ্যান্ডসঅবমাইহিজাব’ লিখে এর প্রতিবাদ জানাচ্ছেন দেশটির মুসলিমরা।

আলজাজিরার খবরে বলা হয়, ফরাসি সিনেট বিলটির পক্ষে ভোট দিলেও তা আইনে পরিণত হয়নি এখনো। তবে শিগগিরই সেটা আইনে পরিণত করার প্রক্রিয়া চলছে।

সম্প্রতি বিলটি অনুমোদনের জন্য সিনেটে তোলেন ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রন। এ নিয়ে শুরু থেকেই প্রতিবাদ জানিয়ে আসছেন সেদেশের রক্ষণশীল মুসলিম সমাজ।

বিলটিকে মুসলমানদের ধর্ম বিশ্বাসে আঘাত দিবে উল্লেখ করে তারা বলছেন, এটি আইনে পরিণত হলে কিশোরীরা জনসম্মুখে হেনাস্তার শিকার হবেন।

ফরাসি গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়, বিচ্ছিন্নতাবাদ দূর করতে হিজাব পরা নিষিদ্ধ করার উদ্যোগ নিয়েছে ম্যাক্রন সরকার। ধর্মনিরপেক্ষতার পক্ষে চলমান লড়াই আরো এক ধাপ এগিয়ে নিতে এমন পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে।

বিলের বিরোধিতা করা রক্ষণশীল মুসলিমরা বলছেন, ধর্মনিরপেক্ষতা নয়, ইসলামকে নিশানা করেছে ম্যাক্রন সরকার। এটি ইসলাম বিদ্বেষের শামিল, যা কোনো অবস্থাতেই গ্রহণযোগ্য নয়।

কমেন্টসমুহ
Secret Diary Secret Diary

Top