‘মোটু’ ডাকায় চমেক ছাত্রলীগের দুগ্রুপে সংঘর্ষ, আহত ৫

চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজে প্রতিপক্ষের এক নেতাকে ‘মোটু’ ডাকা নিয়ে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সৃষ্ট সংঘর্ষে অন্তত ৫ জন আহত হয়েছেন। মঙ্গলবার (২৭ এপ্রিল) রাতে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষের পর উভয় গ্রুপের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে। 

চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের উত্তর জোনের উপ কমিশনার মোখলেসুর রহমান বলেন, সামান্য বিষয়ে তারা সংঘাতে জড়িয়েছে। এখন পুরো ক্যাম্পাসে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করতে হয়েছে। তবে পরিস্থিতি আমাদের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, রাতে ক্যাম্পাস ক্যাফেটেরিয়া থেকে বের হওয়ার সময় শিক্ষা উপমন্ত্রী নওফেলের অনুসারীরা আ জ ম নাসিরের অনুসারী রাহাতকে ব্যঙ্গ করে। এ নিয়ে প্রথমে কথা কাটাকাটি পরে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া হয়। ১০ থেকে ১৫ মিনিট ধরে চলা সংঘর্ষে ৪ জন আহত হয়। পুলিশ ঘটনাস্থলে আসলে পরিস্থিতি কিছুটা শান্ত হয়। পরবর্তীতে নাছিরের অনুসারীরা নওফেলের অনুসারী রানাকে একা পেয়ে মারধর করে। এ নিয়ে তারা আবারও সংঘর্ষে জড়ায়। অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে ক্যাম্পাসে অতিথির পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

উত্তর জোনের অতিরিক্ত উপ কমিশনার আবু বকর সিদ্দিক বলেন, উভয়পক্ষ এখন ছাত্রাবাসে অবস্থান করছে। তারা যাতে আবার সংঘর্ষে জড়াতে না পারে সেজন্য আমরা কঠোর অবস্থানে আছি।

প্রসঙ্গত, মেডিকেল কলেজ ক্যাম্পাসে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল এবং সাবেক সিটি মেয়র আ জ ম নাছিরের অনুসারীদের মধ্যে বিরোধ আগে থেকেই চলে আসছিল।

কমেন্টসমুহ
Secret Diary Secret Diary

Top