ঈদে ঘর সাজাতে ব্যস্ত নারীরা

দিন যতই যাচ্ছে ঈদের খুশি যেনো এগিয়ে আসছে। পরিবারের সবার সঙ্গে এই খুশি ভাগাভাগি করে নিতে এরইমধ্যে ঈদের পোশাক থেকে শুরু করে এরসঙ্গে আনুসাঙ্গিক সব কেনাকাটা শেষ। আর যারা সবে শুরু করেছেন তাদের কেনাকাটা চলবে চাঁদরাত পর্যন্ত।

ঈদকে কেন্দ্র করে যেমন নিজেকে সাজানোর ব্যস্ততা থাকে তেমনি ঘরকে অন্যরকম সাজাতে অনেক নারীরা ব্যস্ত থাকেন সেসময়। ঈদের সকাল থেকে শুরু করে রাত পর্যন্ত মেহমানের আগমন থাকে ঘর জুড়ে। আর সেই ঘরকে অন্যরকমভাবে সাজাতে বিভিন্ন মাকের্ট ঘুরে ঘরের জিনিস কিনছেন ক্রেতারা।

ঈদের দিন পুরো ঘরকে টিপটপ রাখতে অাপনিও সাজাতে পারেন যেভাবে।

বসার ঘর বসার ঘর বা ড্রয়িং সাজাতে হবে পুরোপুরি মেহমানের কথা মাথায় রেখে। মেহমান ঘরে ঢুকেই যেনো মুগ্ধ হয়ে যায়। যেহেতু ঈদ সেহেতু বসার সোফা নতুন বা পুরোনো যাই হোক না কেনো সব কিছুই যেনো পরিস্কার-পরিচ্ছন্ন থাকে। সোফার কভারটি উৎসবের কথা চিন্তা করে একটু লাইট রঙের কিনতে পারেন এবং তার সঙ্গে রাখতে পারেন বাহারি ডিজাইনের কুশন।

অব্যশই খেয়াল রাখবেন ঘরের আয়তন যদি ছোট হয় সেক্ষেত্রে অতিরিক্ত জিনিস দিয়ে না সাজিয়ে অল্প জিনিস দিয়ে সাজাবেন। পাশাপাশি বসার ঘরে হালকা লাইটের উপস্থিতি রাখতে পারেন। আর তার সঙ্গে রাখতে পারেন আকর্ষণীয় ফুলের টপের মধ্যে সুগন্ধি ফুলের তোড়া।

খাবার ঘর ঈদে অতিথি আপ্যায়ন মানেই মজাদার খাবারের সমারোহ। এইদিন সকাল থেকে শুরু করে রাত পর্যন্ত ঘরে থাকে অতিথিদের বাড়তি চাপ। সব অতিথিদের আপ্যায়ন যেহেতু খাবারের ঘরে পরিবেশন করানো হবে সেক্ষেত্রে খাবারের ঘরটি রাখতে হবে অত্যন্ত পরিস্কার এবং সাজাতে হবে চমৎকারভাবে। আপ্যায়নের টেবিলটি রাখতে হবে ঘরের মাঝখানে যেখানে থাকবে প্রচুর আলো ও বাতাস সম্পন্ন। খাবারের ঘরে পর্দার ব্যবস্থা রাখতে পারেন সেক্ষেত্রে হালকা রঙের পর্দা লাগানোই ভালো।

খাবারের টেবিলকে আরো আকর্ষণীয় করতে মাঝখানে রাখতে পারেন টিুস্য পেপার বক্স, গ্লাসস্ট্যান্ড, পছন্দ মতো টেবিলম্যাট। ঘরের একপাশে বড় একটি আয়নাও রাখতে পারেন।

ঘরকে আরেকটুকু সৌখিন করতে চাইলে খাবারের ঘরে দু’একটি গাছের টব রাখতে পারেন। এতে অথিতিরা বাড়তি আনন্দ পাবেন।

এছাড়া নিজের শোবার ঘরটিকেও সাজাতে পারেন অন্য আমাজে। বাহারি ডিজাইনের বেড কভার দিয়ে বিছানাকে করতে পারেন আকর্ষণীয়। জানালার পর্দা দিতে পারেন ভিন্ন রঙের। যেকোনো অথিতি যেনো আপনার শোবার ঘরে ঢুকে যোনো শান্তি পায়।

ঘর সাজানোর সমস্ত জিনিস রাজধানীর নিউমাকের্ট, চাঁদনী চক, গুলশান এর বিভিন্ন মাকের্টে হাতের নাগালের মধ্যে পাওয়া যায়।

কমেন্টসমুহ
Secret Diary Secret Diary

Top