পারফিউম

হলিউড সুন্দরী মেরিলিন মনরো রাতে শ্যানেল ফাইভ দিয়ে ঘুমাতেন। এটি একটি পারফিউম। আমাদের মধ্যেও আছেন এমন অনেকে, যাঁরা পারফিউম ছাড়া সময় পার করেন না। মোগল রাজাদের খুব পছন্দ ছিল সুগন্ধি। ঈদে তো পারফিউম বা বডি স্প্রে ছাড়া কারোরই চলে না। মিসরীয়রা নাকি প্রথম এর প্রচলন ঘটিয়েছিল লতাগুল্মের নির্যাস থেকে। প্রাণিজ চর্বি থেকেও নাকি তারা সুগন্ধি মলম বানিয়েছিল। ল্যাটিন শব্দ পারফিউমের অর্থ ধোঁয়া। রানি শেবা ধর্মীয় অনুষ্ঠান ছাড়াও সুগন্ধি ব্যবহার করতেন। গ্রিসে সুগন্ধি তৈরির কৌশল পাচার হয় পারস্য থেকে আলেকজান্ডারের মাধ্যমে। শেকসপিয়রের লেডি ম্যাকবেথ আরবের পারফিউম হাতের কাছে পেয়েছিলেন। ওটিই কিন্তু আতর। বলা হয়, গোলাপ থেকে প্রথম সুগন্ধি তৈরি করেন ইবনে সিনা। কৃত্রিম সুগন্ধির সূচনা হয় ঊনবিংশ শতাব্দীর শেষ দিকে। ব্রিটিশরা এ দেশে যে ‘বিলেতি এসেন্স’ নিয়ে এসেছিল সেগুলো ওই কৃত্রিম সুগন্ধি। আধুনিক সুগন্ধি শিল্পের অনেকটা ফরাসিদের দখলে। ফ্রান্সের দক্ষিণে আছে সুগন্ধি লতাগুল্মের বিশাল ভাণ্ডার। নবম খ্রিস্টাব্দে আরবীয় কেমিস্ট আল কিন্দাস পারফিউমের ওপর একটি বই বের করেন। বইটির নাম ‘বুক অব দ্য কেমিস্ট্রি অব পারফিউম অ্যান্ড ডিসটিলেশনস’। ধারণা করা হয়, এই বইটিই পারফিউম-সংক্রান্ত প্রথম বই। দ্বাদশ শতাব্দীতে এসে সুগন্ধি বোতলজাত এবং বাজারজাত হতে থাকে। পারফিউম দুই রকম-একটি শরীরে ব্যবহার উপযোগী, অন্যটি পোশাকে। দুটিই ঘামের দুর্গন্ধ তাড়ায়।

অনেক নাম ও দামের পারফিউম আছে এখন ঢাকার বাজারে। যেমন ভার্সাচি, গুচি, ডলচে অ্যান্ড গাবানা, ডি অ্যান্ড জি, মেরিজ পারফিউম, রয়েল মেরিজ, ডানহিল, লাঙ্ট, ডিস্কোয়ার্ড, ওডি অ্যাপারেল, ওয়ান ম্যান শো, হুগো বস, জাগুয়ার, কেলভিন ক্লাইন, মেস্কি ইত্যাদি। এগুলোর দাম শুরু হয় দুই হাজার টাকা থেকে। কোথাও গিয়ে ৪০ হাজার টাকায় ঠেকে। কোনোটা আবার লাখ ছাড়ায়।

দরদাম

পারফিউম : শ্যানেল ফাইভের দাম ৯ হাজার ২০০, গিভেনচির দাম পড়বে দুই হাজার ৬০০ থেকে পাঁচ হাজার, ডানহিল দুই হাজার ২০০ থেকে তিন হাজার, বিউটিফুল চার হাজার থেকে পাঁচ হাজার ৫০০, হুগো বস তিন হাজার ২০০ থেকে চার হাজার, কেলভিন ক্লেইন চার হাজার থেকে ছয় হাজার, এসতে ল্যাডর তিন হাজার, নিনা রিচির দাম পড়বে দুই হাজার ৭০০ থেকে চার হাজার, বিভিএল গারির দাম দুই হাজার ৫০০ থেকে চার হাজার, ক্রিস্টিয়ান ডিওর পাঁচ হাজার থেকে দশ হাজার, ব্লু লেডি ৮০০ থেকে এক হাজার ২০০ টাকা।

বিশ্বের বড় বড় সেলিব্রিটির নামেও পারফিউম রয়েছে। জেনিফার লোপেজ, দাম পড়বে দুই হাজার থেকে তিন হাজার ৫০০ টাকা। জেসিকা পার্ক তিন হাজার ৫০০, ডেভিড বেকহাম তিন হাজার থেকে ছয় হাজার, এলিজাবেথ অরেঞ্জ এক হাজার ৫০০ থেকে দুই হাজার ২০০ টাকা।

বডি স্প্রে : ভালো ব্র্যান্ডের পারফিউমের দাম সব সময় বেশি। তুলনায় বডি স্প্রে সাধ্যের মধ্যে হয়। যেমন-হ্যাভক ২৫০ থেকে ৩২০, ডু ইট ২৫০ থেকে ২৭০, নিভিয়া ২২০ থেকে ২৫০, ব্রুট ২৬০ থেকে ২৮০ টাকা। রেক্সোনা ও ডাভ পাবেন ২৫০ থেকে ২৭০ টাকার মধ্যে। ব্লু লেডির দাম ২৮০ টাকা। ফরেভার ২৫০, গুচি ২৮০-৩৫০, ইটারনাল লাভ ২৫০, আরমানি ৩৪০-৩৮০ টাকা। জিলেট ২৩০ থেকে ২৫০ টাকায়। এডিডাস ২৫০ থেকে ৩৫০ টাকা এবং জাটাক পাবেন ২৮০-৩৫০ টাকায়।

কোথায় পাওয়া যাবে

দেশে পারফিউম ওয়ার্ল্ডের আউটলেট করেছে বাংলা পারফিউম। যমুনা ফিউচার পার্কের নিচতলায় এই আউটলেট চালু করেছে প্রতিষ্ঠানটি। ঈদ পর্যন্ত প্রতিটি পণ্যের সঙ্গে বিশেষ উপহার দেবে বলে ঘোষণা দিয়েছে বাংলা পারফিউম কর্তৃপক্ষ। বাংলা পারফিউমস ডিস্ট্রিবিউটরস লিমিটেড অনেক ধরনের পারফিউম বাংলাদেশে বিক্রি করছে। যেমন গুচ্চি, ডলচে অ্যান্ড গাবানা, বারবেরি বডি, ভারসাচ্চি, ক্রিড, ল্যালিক, হুগো বস, অ্যাজারো, জিমি চু, ফেরারি, ভিকটোরনিক্স ইত্যাদি। এ ছাড়া ঢাকার বসুন্ধরা সিটি, প্লাজা এ আর, নাভানা টাওয়ার, পলওয়েল, ইউনেসকো সিটি সেন্টার, চট্টগ্রামের আফমি প্লাজা, সিলেটের আল-হামরায় বাংলা পারফিউম সুগন্ধি সরবরাহ করে। ঢাকা, সিলেট ও চট্টগ্রামের ৯টি আউটলেট আছে পারফিউম ওয়ার্ল্ডের। ৩২টি আন্তর্জাতিক ব্র্যান্ডের সুগন্ধি সরবরাহ করতে পারে বাংলা পারফিউম। এখানে সবচেয়ে কম দামি পারফিউমটির দাম এক হাজার ৮০০ টাকা। মেয়েরা বেশি পছন্দ করে গুচি, ভার্সাচি, হুগো বস, এসকাডা, ক্রিড, বারবেরির মতো জনপ্রিয় ব্র্যান্ডগুলো। ছেলেদের পছন্দ বস, ডানহিল, ফেরারি, জিরো জিরো সেভেন, অ্যাজারো বা ল্যাকোস্টে। ফ্লোরাল ফ্লেভারের সুগন্ধির মধ্যে গুচির এনভি মি, গিল্টি এবং ইনটেন্স নাম করেছে। মেয়েদের জন্য তৈরি পারফিউমগুলো পাওয়া যায় সাধারণত ৫০ থেকে ১০০ মিলিলিটারের বোতলে।

কোন ঋতুতে কেমন

গরমের সময় চিটচিটে আবহাওয়ায় বেশি টিকবে গাঢ় পারফিউমগুলো। অন্যদিকে শীতকালে হালকা সুবাসের সুগন্ধিই টিকে থাকবে অনেকক্ষণ।

ব্যবহারবিধি

পারফিউম প্রয়োগের সবচেয়ে উপযুক্ত সময় হলো গোসলের পর। অর্থাৎ শরীর যখন পরিষ্কার ও শুভ্র থাকবে। শরীরের যেসব স্থানে আপনি পারফিউম প্রয়োগ করবেন সেই স্থানগুলো অবশ্যই আর্দ্র হতে হবে। এ জন্য ওই স্থানগুলোতে ভালোভাবে ময়েশ্চারাইজার বা লোশন দিন। আপনার সাবান, লোশন ও পারফিউম হতে হবে একই ধরনের ফ্র্যাগরেন্সযুক্ত। যেমন, আপনি যদি ফুলের সৌরভের পারফিউম ব্যবহার করতে চান তাহলে সাবান আর লোশনও ফুলের সৌরভের হতে হবে। এমন স্থানগুলোতে পারফিউম প্রয়োগ করুন যেখানে রক্ত চলাচল বেশি। যেমন-গলা, হাতের কবজি, কানের পেছনে, বুকে, হাতের কনুই, হাঁটুর পেছন দিকে ইত্যাদি। আপনার পারফিউম যত তীব্র হবে তত বেশি দূর থেকে তা প্রয়োগ করুন। মোটামুটি ৫-৬ ইঞ্চি দূর থেকে প্রয়োগ করলে ভালো। পারফিউম প্রয়োগের পর সেই স্থান না শুকানো পর্যন্ত হাত দেবেন না। স্বাভাবিকভাবে তা শুকাতে দিন।

কেনার আগে বুঝে নিন

আসল পারফিউম স্প্রে করার পর ১৫ ঘণ্টা পর্যন্ত টিকে থাকে। কেনার আগে মেয়াদ দেখে কিনুন। পারফিউম স্প্রে করার পরপরই পাওয়া যায় অ্যালকোহল সলভেন্টের গন্ধ। ১০-১৫ সেকেন্ড পরও যদি সেটা থেকে যায়, তাহলে বুঝতে হবে পারফিউমের মেয়াদ শেষ। কারণ, পারফিউমের আসল সৌরভ বের হয় ১০-১৫ সেকেন্ডের মধ্যেই। ছায়াশীতল স্থানে রাখতে হয় পারফিউম।

পারফিউম

তফাত পারফিউম এবং বডি স্প্রের

পারফিউম একটু বেশি তেলতেলে হয়ে থাকে। পারফিউমের ঘ্রাণ কড়া হয়। বডি স্প্রেতে অ্যালকোহলের পরিমাণ বেশি থাকে। পানির পরিমাণও বেশি থাকে বডি স্প্রেতে। পারফিউমের ঘ্রাণ দীর্ঘস্থায়ী হয়। বডি স্প্রের ঘ্রাণ অল্প সময় পরই মিলিয়ে যায়।

পারফিউম কত প্রকার ও কী কী

অপেক্ষাকৃত লঘু বা হালকা তরলের পারফিউমকে বলা হয় ‘অ দি তোয়ালেত’। এর অর্থ ‘সুগন্ধিযুক্ত পানি’। এ ধরনের সুগন্ধির দাম অপেক্ষাকৃত কম। আর ‘অ্যাবসলিউট পারফিউম’ সংগ্রহ করতে চাইলে দামটা একটু বেশিই পড়বে। গুচির এই দুই ধরনের পারফিউমের দাম চার হাজার থেকে ১০ হাজার টাকা। ফুলেল সৌরভ পছন্দ না হলে মৌসুমি ফল কিংবা চকোলেটি ফ্লেভারের পারফিউমও দেখতে পারেন। এ ক্ষেত্রে এগিয়ে এসকাডা, মোশিনো বা থেরি মাগলারের মতো ব্র্যান্ডগুলো। এসকাডার রয়েছে ডিজায়ার মি, অ্যাবসোলিউট মি, ইনক্রেডিবল মি নামের পারফিউম। আরো আছে চেরি ইন দ্য এয়ার, আইল্যান্ড কিস এবং রকিং রিও। ফ্রুটি ফ্লেভারের এসব পারফিউমের দাম তিন হাজার ২০০ থেকে ৭ হাজার ৫০০ টাকার মধ্যে। ইতালির ব্র্যান্ড মোশিনোর আছে ফ্রুটি ফ্লেভারের হ্যাপি ফিজ এবং চিপ অ্যান্ড শিক নামের দুটি পারফিউম। দাম তিন হাজার ৫০০ থেকে সাত হাজার টাকার মধ্যে। গুলশানের পিংক সিটি মার্কেটে আছে রেইনবো পারফিউম ওয়ার্ল্ড। এখানে পরিচিত ব্র্যান্ডগুলোর পাশাপাশি পাবেন লানভিন, নিনা রিচি, গিভেন্সি, পাকো রাবান, লোলিটা লিমপেকা, ক্যারোলিনা হেরেইরা ও পল স্মিথ। স্টার এশিয়া এসব পারফিউম সরবরাহ করে গুলশান-১-এর জারা ফ্যাশন মলে, নেহা ফ্যাশনে, গুলশান-২-এর ইউনিমার্টে, বিউটিশপে, আর্টিস্টিতে, ঢাকা রিপাবলিকে এবং বেইলি রোডের স্টারডাস্টে।

কমেন্টসমুহ
Secret Diary Secret Diary

Top