ফ্যাশনে থ্রিডি পোশাক…

অবসরে ঘুরতে যাচ্ছেন খালি স্যুটকেস নিয়ে, চেকিং করতে এলে অবাক হচ্ছে নিরাপত্তা কর্মীরা আর হোটেলর ঘরে উঠে মনমতো ডিজাইন ও রঙের পোশাক প্রিন্ট করে নিচ্ছন- ভাবতে পারেন? ঠিক এমন সম্ভাবনার কথাই শোনাচ্ছেন নবযুগের ফ্যাশন ডিজাইনার ড্যানিট পেলেগ।

সিনেমার পাশাপাশি দেয়াল, রাস্তা কিংবা ছবিতে বাড়ছে ত্রিমাত্রিক অর্থাৎ থ্রিডি আর্টের ব্যবহার। তবে পোশাকের ক্ষেত্রে থ্রিডি আর্ট! অবাক হওয়ার কিছু নেই- আন্তর্জাতিক ফ্যাশন ডিজাইনারদের ধারণা, কিছুদিনের মধ্যেই বদলে যাবে ফ্যাশন ট্রেন্ড। সচেতন মানুষদের ওয়ার্ডরোবে জায়গা দখল করবে এই ত্রিমাত্রিক পোশাক।

জমকালো কালো রঙের ট্যাংটপ ও লাল জ্যাকেটের থ্রিডি পোশাকে সজ্জিত পেলেগ তার ফ্যাশন ডিজাইনিংয়ের গ্র্যাজুয়েশন কোর্সের সব পোশাক জমা দিয়েছেন থ্রিডি প্রিন্টার ব্যবহার করে। অবশ্য তিনিই প্রথম নন, থ্রিডি পোশাকের পথ প্রদর্শক ডাচ ডিজাইনার আইরিস ভ্যান হারপেন।

থ্রিডি পােশাকা নিয়ে বলতে গিয়ে পেলেগ জানান, এই পোশাক খুবই সময় উপযোগী এবং ফ্যাশনেবল। বিভিন্ন আকার, আকৃতি, ডিজাইনের এই পোশাকের ইলাস্টিসিটি বেশি থাকায় যে কেই পরতে পারেন যে কোন সময়ে। স্কার্ট, টপস্, ডিভাইডার প্রভৃতি পোশাকের ভিতর থেকে রঙিন আর্ন্তবাস উঁকি মারে- আর তাই আবেদনেও আকর্ষনীয় থ্রিডি পোশাক।

সম্প্রতি ‘লিবার্টি লিডিং দ্য পিপল’ শিরোনামে একটি ফ্যাশন শো অনুষ্ঠিত হয়েছে পেলেগের থ্রিডি আর্টে ডিজাইন করা পোশাক নিয়ে। ডেলেক, গ্যাবানা, ভ্যালিন্টিনোর মত মডেলরা রেড কার্পেটে হেটেছেন এই থ্রিডি প্রিন্টারে তৈরি পোশাক পরে। পেলেগ জানান, প্রিন্টারে পোশাক প্রিন্ট করতে লাগে প্রায় ২২ ঘন্টা। এছাড়া বিদ্যুত, কাঁচামাল, নির্মাণ খরচ সবমিলিয়ে এখনও বেশ ব্যয়বহুল এই থ্রিডি পোশাক।

তবে স্বপ্ন দেখেন- বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির উত্তরোত্তর উন্নতির এ যুগে সহজ পথ খুঁজে নেবে তার ত্রিমাত্রিক পোশাক তৈরির কারখানা। একটা সময় হয়তো বাড়িতে বসেই গান কিংবা সিনেমার মত ডাউনলোড করা যাবে থ্রিডি প্যাটার্ন আর তৈরি করা যাবে পছন্দমতো পোশাক।

– See more at: http://www.priyo.com/2015/Jul/28/15938748-%E0%A6%AB%E0%A7%8D%E0%A6%AF%E0%A6%BE%E0%A6%B6%E0%A6%A8%E0%A7%87-%E0%A6%A5%E0%A7%8D%E0%A6%B0%E0%A6%BF%E0%A6%A1%E0%A6%BF-%E0%A6%AA%E0%A7%87%E0%A6%BE%E0%A6%B6%E0%A6%BE%E0%A6%95#sthash.6hb0QSpl.dpuf

কমেন্টসমুহ
Secret Diary Secret Diary

Top