প্রতিরাতেই তার রুমে ৩/৪ ঘন্টা সময় কাটাতাম, তার নিজের ইচ্ছাতেই

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন তরুণ জানিয়েছে

২০০৯ সালে আমার কাজিন লন্ডন থেকে দেশে এসেছিলো। তখন ওর সাথে আমার সম্পর্ক হয়। তখন ওর বয়স ছিলো ১৮ আর আমার ২১। প্রতিরাতেই তার রুমে আমি ৩/৪ ঘন্টা সময় কাটাতাম, তার নিজের ইচ্ছায়। তবে আমরা কিস ছাড়া অন্য কিছু করতাম না। আর সে আমার… (বাকিটুকু ছাপার অযোগ্য বিধায় প্রকাশ করা হলো না)

আমি দিন দিন ওর প্রতি দুর্বল হয়ে যাচ্ছিলাম। এভাবে প্রায় এক মাস কেটে গেল। তারপর সে লন্ডন চলে গেল। যাওয়ার পরও আমার সাথে ফোনে এবং ফেসবুকে যোগাযোগ হত। একদিন আমি তাকে বললাম তার পরিবারের কাছে আমাদের কথা বলতে। সে আমাকে বলল এখন বললে সমস্যা হবে। আমি যদি লন্ডন যেতে পারি তাহলে সে আমাকে বিয়ে করবে। আমার খালা লন্ডন থাকেন, আমি তাকে সবকিছু বলি। খালা আমাকে বললেন তুমি ইন্ডিয়া চলে যাও। সেখান থেকে ইন্ডিয়ার ভিসা নিয়ে আসো। তারপর তোমাকে লন্ডনে আনতে পারবো। খালা আমার কাছ থেকে ওর নম্বর নিয়ে ওকে ফোন করলেন। জানতে চাইলেন আমি লন্ডন গেলে ও সত্যি বিয়ে করবে কিনা। সে বলল, আপনি উনাকে লন্ডন আনেন, আমি বিয়ে করবো।

এভাবে এক বছর কেটে গেল। হঠাৎ সে আমার সাথে যোগাযোগ বন্ধ করে দেয়। আমি ফোন করলে সে কল রিসিভ করেনা। ফেসবুকে ম্যাসেজ দিলে রিপ্লাই আসেনা। একটু পর দেখি আমাকে ফেসবুক থেকে রিমুভ করে দিয়েছে। আমি কিছুই বুঝতে পারিনি কেন সে আমার সাথে যোগাযোগ বন্ধ করে দিয়েছে। যাইহোক আমি ইন্ডিয়া চলে গেলাম। ওখানে গিয়ে তাকে ফোন করলাম।

অবাক ব্যাপার! সে বলে আমাকে চিনে না। খুব রাগ আর কষ্ট নিয়ে ৫ বছর ইন্ডিয়া থেকে দেশে আসলাম। তার কয়েকদিনের মাঝে লন্ডনের ভিজিট ভিসা হয়ে গেল। আমি লন্ডন চলে আসলাম। এসে আমার বড় ভাইয়ের ঘরে উঠলাম। ২দিন পর তাকে ফোন করলাম। আমি হাই হ্যালো বললাম, সে বলে আমাকে সে চিনেনা। তার কাছে ফোন করতে মানা করে। তারপর, এক সপ্তাহ পর ফেসবুকে ম্যাসেজ দিলে সে বলে, তুমি আমার মামাতো ভাই, আর কিছুই নও। আমাকে শয়তানে ধরেছে, আমাকে মুক্তি দাও। আমি উত্তর দেইনি। ৩ মাস পর ফুপুর বাসায় মানে ওর বাসায় যাই। সবার সাথে দেখা হল কিন্তু তার সাথে দেখা হচ্ছিলো না। কিছুক্ষন পর সে আসলো। আমি অবাক হলাম। ভালো আছি কিনা তাও জানতে চাইলো না। খুব কষ্ট পেলাম। এক সপ্তাহে তাদের বাসায় থেকেছি, একই টেবিলে খেয়েছি, একসাথে শপিং এ গিয়েছি অথচ সে কেমন আছি এটাও জানতে চায়নি।

তারপর লন্ডনে ৬ মাস থেকে চলে আসলাম। আজ প্রায় ৫ বছর হয়ে গেল তার সাথে আমার কোন যোগাযোগ নাই। সে এখনও বিয়ে করে নাই। আমি আজও জানলাম না আমার কি অপরাধ ছিলো কিংবা কি ভুল আমি তার সাথে করেছি। প্লিজ আমাকে বলুন কেন এমন হল? আমি এখন কী করতে পারি? খুব কষ্টের মাঝে আছি। বলে বুঝাতে পারবো না।

পরামর্শ

দেখুন ভাই। যা হয়েছে সেটা ভুলে যাওয়ার চেষ্টা কড়াই আপনার জন্য ভালো হবে। এখন আপনার কিছুই করার নেই মেয়েটিকে ভুলে যাওয়ার চেষ্টা ছাড়া। বাংলাদেশে এসে মেয়েটি সাময়িক আবেগে পড়ে গিয়েছিল। সেই আবেগ নিজের বাড়িতে গিয়ে কেটে গেছে। ব্যাপারটা এতটাই সহজ, আর কিছুই নয়। মেয়েটি কখনোই আপনাকে মন থেকে ভালোবাসেনি।

সবচাইতে বড় কথা ভাই, আত্মীয়স্বজনের মাঝে বিয়ে না করাই ভালো। এতে অনেক রকমের জটিলতা দেখা দেয়। তাছাড়া মেয়েটি আপনার ফুপাত বোন, এইসব নিয়ে বেশী পীড়াপীড়ি করলে অহেতুক আপনার ফুপুর সংসারে অশান্তি শুরু হবে। আপনার ফুপা ফুপির মাঝেও ঝামেলা হবে। ভাতিজা হিসাবে আপনি নিশ্চয়ই সেটা চান না? তাই ব্যাপারটা ভুলে গিয়ে নিজে ভালো থাকার চেষ্টা করুন।

আরেকটা কথা ভাই, আপনাকে লন্ডনে গিয়ে বিয়ে করতে হবে কেন। যে আপনাকে ভালবাসবে, সে সব ছেড়ে আপনার কাছে এসেই আপনাকে বিয়ে করবে। তাই ভবিষ্যতে এমন ফাঁদে পা দেয়ার আগে একটু ভেবে দেখবেন। অনেক বছর পেরিয়ে গেছে, মেয়েটিকে মনে রেখে অহেতুক তাঁকে গুরুত্ব দিচ্ছেন ভাই। এই গুরুত্ব সে ডিজারভ করে না। আর সে আপনার জন্য বিয়ে করছে না ভেবে থাকলে ভুল করবেন। তাঁর ওই দেশে অবশ্যই প্রেমিক আছে। আর আপনারও উচিত জীবনে সামনে এগোনো।

 

 

কমেন্টসমুহ
Secret Diary Secret Diary

Top