বয়স কমিয়ে ফেলুন ১০ বছর!

বয়স তো বাড়বেই। তাই বলে কি হার মেনে যাবেন সহজেই! শরীরের বয়স যতই বাড়ুক না কেন, মন যদি থাকে সতেজ তবে তারুণ্য আপনারই।

কী উপায়ে শরীরটাকে সতেজ রাখবেন তারই কিছু উপায় জানানো হয়েছে এই সময়ের এক প্রতিবেদনে।

পর্যাপ্ত ঘুম

তারুণ্য ধরে রাখতে সবার আগে দরকার পর্যাপ্ত ঘুম। শরীর মন দুইই ভালো থাকে এতে। ঘুমাতে যাওয়ার ঘণ্টাখানেক আগে নিজের ফোন সুইচ অফ করে দিন। ভালো ঘুমের জন্য যেটা ভীষণ জরুরি। ৭-৮ ঘণ্টা টানা ঘুম দিন। ঘুমানোর আগে বই পরার অভ্যাস ভালো। এই নিয়ম না মানলে চোখের নিচে কালো দাগ তো হবেই উপরি হিসাবে বয়সের তুলনায় বেশি বয়স্ক লাগবে।

রাগ জাগা নয়

খুব বেশি রাত জাগা থামান। তবে একদমই পার্টি করতে পারবেন না তা কিন্তু নয়। আগে থেকে বছরে চারটি দিন নির্দিষ্ট করে নিন কবে পার্টি না করলেই নয়।

সামাজিক হোন

সামাজিক সম্পর্কগুলো যত মজবুত থাকবে মনে ততটাই শান্তি আসবে। আর মনে যদি শান্তি থাকে তাহলে বয়সের তুলনায় গ্লোয়িং লুক পেতে বাধ্য। তাই আত্মীয় স্বজন, প্রতিবেশী এবং বন্ধু বান্ধবের সঙ্গে সুসম্পর্ক বজায় রাখুন।

সকালের নাস্তাটা ভালো চাই

প্রাতরাশ না করা খুবই খারাপ অভ্যাস। আজই এই বদভ্যাস ছাড়ুন। সকালের নাস্তায় নিজের পছন্দের কেক কিংবা পায়েস খেলে বয়সের তুলনায় অনেক কম দেখাবে। মনও থাকবে তরুণ। তাই ছোটবেলার চকলেট, লাইমজুসকে ইয়েস বলুন।

চুলের স্টাইল

বলা হয়, যে মেয়ে চুল কাটে সে নাকি নতুনের স্বাগত জানানোর ক্ষেত্রে এক ধাপ এগোয়। ব্যাপারটার কতটা সত্য তা নিয়ে মতভেদ থাকতে পারে। তবে নতুন নতুন হেয়ারস্টাইলে নিত্য নতুন লুক পাওয়া যায়। আর দেখতেও ভালো লাগে। আর নতুন করে তো বলে দিতে হবে না যে দেখতে ভালো লাগলে মনও থাকবে ভালো স্বাভাবিকভাবেই এক নিমেষে বয়স কমবে ১০ বছর!

গান শুনুন

পছন্দ রক হোক বা রবীন্দ্রসঙ্গীত, ভালো গান শুনলে মনও ভালো থাকে। আর পছন্দের ট্র্যাক যখন কানে যায় তখন আপনি চোখ বুজলেই যৌবন কিংবা কৈশোরে ফিরে যেতে বাধ্য।

শরীরচর্চা

শরীর চর্চার বিকল্প নেই। সবচেয়ে ভালো হয় সাইক্লিং কিংবা বাইক চালালে। কোনোকিছু সম্ভব না হলে স্কিপিং করুন। নিজেকে অনেক তরুণ লাগবে। নিজের বাচ্চাদের সঙ্গে ছোট হয়ে গিয়ে খেলাধুলো করতে পারেন। বয়স্ক ভাবলেই বয়স্ক না ভাবলে নয়। সব কিন্ত্ত মনের ব্যাপার।

কমেন্টসমুহ
Secret Diary Secret Diary

Top