যড়যন্ত্রকারীদের প্রতি উপযুক্ত জবাব

দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে আজকের জয়টি বাংলাদেশের জন্য নিছকই একটি জয় নয়; বরং ‘ষড়যন্ত্রকারীদের’ প্রতি মোক্ষম চপেটাঘাত। পাকিস্তানকে চুনকাম এবং তারপর দেশের মাটিতে পরপর দুই ম্যাচে ভারতকে হারিয়ে সিরিজ জেতার পর বাংলাদেশের চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি খেলা যখন নিশ্চিত তখনই শোনা গেল এক হতাশার খবর।
বাতাসে ভেসে বেড়ানো গুঞ্জন যখন সত্য বলে প্রতিয়মান হয় তখন আর ওয়ানডে র‌্যাংকিংয়ে সাত নম্বরে উঠে আনন্দ ফিঁকে হতে সময় লাগেনি টাইগার সমর্থকদের। তবে দৃঢ়প্রতিজ্ঞ ছিলেন বাংলাদেশ অধিনায়ক মাশরাফি মুর্তজা। তখনই তিনি এসব ‘ষড়যন্ত্র’ নিয়ে মাথা না ঘামিয়ে বলেছিলেন, ‘দুশ্চিন্তা করে লাভ নেই। অকারণ হৈঁচৈঁ করেও লাভ নেই। দেখা যাক কী হয়। কপালে যদি থাকে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি খেলব, না থাকলে হবে না।’
সবকিছুর পর জিম্বাবুয়ে যখন ওয়েস্ট ইন্ডিজ আর পাকিস্তানকে নিয়ে ত্রিদেশীয় সিরিজ আয়োজনের প্রস্তুতি নেয় তখন ধরে নেওয়া হয়েছিল যে, তাতে কিছুটা পরিবর্তন আসবে ওয়ানডে র‌্যাংকিংয়ে।
অনেক হিসাব-নিকাশের বাইরে বাংরাদেশের জন্য তখন একটাই পথ ছিল। আর তা হলো- দক্ষিণ আফ্রিকাকে অন্তত একটা ম্যাচে হারানো। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে যেহেতু বাংলাদেশ প্রথম ম্যাচে হেরেছে তাই ৩-০ ব্যবধানে সিরিজ জেতা আর সম্ভব নয়। তবে ২-১ ব্যবধানে জিতলে বাংলাদেশের রেটিং পয়েন্ট হবে ৯৬। অন্যদিকে ২-১ ব্যবধানে সিরিজ হারলে বাংলাদেশের পয়েন্ট ৯৩ থেকে ভগ্নাংশ পরিমাণ কমবে। কিন্তু তাতে আর কিছু আসে যায় না। টাইগারদের চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি খেলা এখন শতভাগ নিশ্চিত।
তবে পাকিস্তানের আসে যায়; কারণ ওয়েস্ট ইন্ডিজ যদি ত্রিদেশীয় সিরিজের সবগুলো ম্যাচ জিতে নেয় তাতে কপাল পুড়তে পারে তাদেরই। তবে কী পাকিস্তান নিজেই নিজেদের বিপদ ডেকে আনল? উত্তরের জন্য আপাতত অপেক্ষা করা ছাড়া উপায় নেই।
কমেন্টসমুহ
Secret Diary Secret Diary

Top