ওজন কমাতে সাহায্য করবে ৫টি ফ্যাটি খাবার!

ওজন কমানোর জন্য কি শুধু ফল, সবজি খেতে হবে। কিংবা লো ফ্যাট ফুড? যদি বলা হয় ফ্যাট জাতীয় খাবার খেয়েো ওজন কমানো সম্ভব। কি অবাক লাগছে? ফ্যাট জাতীয় খাবার তো ওজন বাড়ায়, সেটি ওজন কমাবে কিভাবে! গবেষণায় বলা হয়েছে কিছু ফ্যাট জাতীয় খাবার আপনার দেহের ওজন কমাতে সাহায্য করবে। আসুন জেনে নেওয়া যাক সেই খাবারগুলো সম্পর্কে।

১। ঘাস খাওয়ানো গরুর মাংস

নিউট্রিশন জার্নালের গবেষণায় বলা হয়েছে যে, সাধারণ গরুর মাংসের চেয়ে ঘাস খাওয়ানো গরুর মাংস স্বাস্থ্যের জন্য অধিক নিরাপদ। ঘাস খাওয়া গরুর মাংসে ওমেগা-৩ ফ্যাটি এসিডের পরিমাণ অনেক বেশি যা হৃদপিন্ড সুস্থ রাখতে সাহায্য করে থাকে। অন্যান্য মাংসের তুলনায় ঘাস খাওয়ানো গরুর মাংসের তুলনায় কম ক্যালরি থাকে। একটি সাধারণ মাংসের টুকরায় ৩৮৬ ক্যালরি এবং ১৬ গ্রাম ফ্যাট আছে। আর একটি ঘাস খাওয়ানো গরুর মাংসের টুকরায় ২৩৪ ক্যালরি ও ফ্যাট ৫ গ্রাম আছে।

২। অলিভ অয়েল

ত্বক ও চুলের যত্নে অলিভ অয়েলের ব্যবহার সম্পর্কে আমরা সবাই জানি। কিন্তু এই অলিভ অয়েল ওজন কমাতেও সাহায্য করে থাকে। অলিভ অয়েল দেহের ক্যান্সার প্রতিরোধ করে, আমাদের হৃদপিণ্ডের শক্তি বৃদ্ধি করে ও চর্বি রোধ করে থাকে। এতে অ্যাডিপন্সটিন নামক উপাদান আছে যা শরীরের চর্বি কমাতে সাহায্য করে থাকে। যেকোন খাবার ফ্যাট জাতীয় খাবারও অলিভ অয়েল দিয়ে রান্না করুন। এর ফ্যাট অনেক কমে যাবে।

৩। নারিকেল তেল

নারিকেল তেলে আছে উচ্চ মাত্রার ফ্যাট। যা ব্যাকটেরিয়া ধংস করে দেহের কলেস্টেরলের মাত্রা ঠিক রাখে। নারকেলের সম্পূর্ণ ফ্যাট আসে লিউরিক এসিড ও অন্যান্য উপাদান থেকে। একটি পরীক্ষায়, এক পক্ষের মানুষকে কিছুদিন নারিকেল তেল খেতে দেয়া হয়েছিল ও অন্য পক্ষের মানুষদের সয়াবিন তেল দেয়া হয়, তাপর কিছুদিন পর দেখা গিয়েছে যে যাদের নারিকেল তেল দেয়া হয়েছিল তাদের ওজন হ্রাস পেয়েছে। প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় নারিকেল তেলের রান্না করা খাবার রাখুন। এটি যেমন আপনার স্বাস্থ্য রক্ষা করবে সাথে সাথে এটি পেটের মেদ কমাতে সাহায্য করবে।

৪। ডার্ক চকলেট

আপনি কি চকলেট খেতে ভালবাসেন? মোটা হওয়ার ভয়ে চকলেট খেতে পারছেন না? তবে আপনার জন্য সুখবর আপনার পেটের মেদ কমাতে সাহায্য করবে ডার্ক চকলেট। একটি গবেষণায় এসেছে যে, যদি কোন ব্যক্তি ভারী খাবার খাওয়ার আগে ৩.৫ গ্রাম ডার্ক চকলেট খেয়ে থাকেন এবং ঠিক একই সময়ে যদি কেউ মিল্ক চকলেট খেয়ে থাকে তাহলে যেই ব্যক্তি ভোজনের আগে ডার্ক চকলেট খেয়েছে তার ১৭ ক্যালরি খরচ হয়েছে। ডার্ক চকলেট আমাদের ক্ষুধা নিবারন করে ও দেহের ওজন কমাতে সাহায্য করে।

৫। বাদাম মাখন

বাদামে ফ্যাট জাতীয় উপাদান থাকা সত্ত্বেও বাদাম মাখন বা পিনাট বাটার ওজন কমাতে সাহায্য করে থাকে। ইন্টারন্যাশনাল জার্নাল অফ ওবেসিটি এন্ড রিলেটেড মেটাবলিক ডিসওডারস ছয় মাসের জন্য দুই দলের মধ্যে পরীক্ষা করে থাকে। প্রথম দল একটি কম চর্বি, ক্যালোরি-সীমিত খাদ্য (১৮ শতাংশ চর্বি) থেকে এবং আরেক দল মাঝারি ফ্যাট, এবং বাকি অংশ( ৩৯ শতাংশ চর্বি) কাজুবাদাম থেকে পেয়ে থাকে। তাদের উভয় দলের ফ্যাটের পরিমাণ সমান হওয়ার সত্ত্বেও দ্বিতীয় দল ওজন কমাতে সার্থক হয়েছে। বাদামের এই গুণ বাদাম মাখনের মধ্যেও পাওয়া সম্ভব। প্রতিদিনকার খাবারে বাদাম মাখন রাখুন।

কমেন্টসমুহ
Secret Diary Secret Diary

Top