বদহজমের জন্য দায়ী দৈনন্দিন জীবনের ক্ষতিকর ১০টি অভ্যাস

পেট ফুলে থাকা এবং কোষ্ঠকাঠিন্য হচ্ছে বদহজমের লক্ষণ। অন্য কারণ ছাড়াও দৈনন্দিন জীবনের কিছু অভ্যাস এই সমস্যার জন্য দায়ী। খাদ্যভ্যাস সহ অন্যান্য অভ্যাসের স্বাভাবিক কার্যক্রম ব্যাহত হয় যদি দৈনন্দিন জীবন যাপনের ধারায় অসাবধান থাকা হয়।

মনে রাখতে হবে যে হজমতন্ত্রের সমস্যা বিভিন্ন ভাবে স্বাস্থ্যের উপর প্রভাব ফেলতে পারে এবং সেই সাথে দেহের শক্তির মাত্রা কমতে পারে যদি খাবারের বা অভ্যাসের ভুলগুলো চিহ্নিত করা না যায়। এসব কারণগুলো সমাধান না করলে গ্যাস এবং কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যার সমাধান হবে না।

তাই দেরি না করে হজমতন্ত্রের জন্য একটি সুস্থ অভ্যাস গড়ে তোলা প্রয়োজন। এজন্য ক্ষতিকর অভ্যাস গুলো আমাদের জেনে নেয়া প্রয়োজন।

যথেষ্ট পরিমান খাদ্যআঁশ গ্রহন না করা

আভ্যন্তরীণ অন্ত্রের চলাচলকে গতিশীল করতে আঁশ জাতীয় খাবার গ্রহন করা খুবই প্রয়োজনীয় কারন এসব খাবারের অভাবে কোষ্ঠকাঠিন্য হয়। তাই আঁশ জাতীয় খাবার গ্রহণের পরিমান বাড়াতে হবে।

রাতে দেরি করে খাওয়া

এই অভ্যাসটির কারনে বুকজ্বলা এবং অ্যাসিডিটির সমস্যা হতে পারে। কারণ দেরি করে খাওয়ার সাথে সাথেই ঘুমাতে যেতে হয়। তাই ঘুমাতে যাওয়ার কমপক্ষে ২ ঘণ্টা আগে রাতের খাবার খেয়ে নিন।

পেটে বাতাস ঢুকলে

যদি খুব দ্রুত খাবার খাওয়া হয় তাহলে সেই খাবারের সাথে কিছুটা বাতাসও পেটে ঢুকে যায়। এটি বদ হজমের অন্যতম প্রধান কারন। তাই খাবার দ্রুত না খেয়ে ধীরে ধীরে চিবিয়ে খেতে হবে।

একসাথে অনেক বেশি খাওয়া

ভাল হজমের জন্য একসাথে অনেক বেশি খাওয়া ঠিক নয়। সেই পরিমাণ খাবার যদি একসাথে না খেয়ে কয়েক বারে খাওয়া হয় তাহলে তা হজমতন্ত্রের জন্য বেশ ভালো হয়।

সোডা বা গ্যাস ড্রিঙ্কস

এসব গ্যাস ড্রিঙ্কসের প্রভাব হজমতন্ত্রের উপর দুই ভাবে পড়ে। এসব সোডা বা গ্যাস ড্রিঙ্কস পান করার পর পেট ফোলা ভাব দেখা দেয় এবং সেই সাথে অ্যাসিডিটিও দেখা দেয়। তাই সোডা বা গ্যাস ড্রিঙ্কস না খেয়ে ঘরে তৈরি ফলের জুস খান।

খাবার সাথে পানীয় গ্রহণ

অনেকেরই অভ্যাস আছে যেকোনো ভারী খাবার খাওয়ার সাথেই হজমের সুবিধা হবে ভেবে গ্যাস ড্রিঙ্কস এমনকি চা খাওয়া। এর ফল প্রকৃত পক্ষে বিপরীতই হয়ে থাকে। পেটে গ্যাসের সৃষ্টি হয়।

চুইংগাম

চুইংগাম চিবানোর সাথে সাথে কিছুটা বাতাস পেটের ভেতরেও ঢুকে যায়। এর ফলে পেটে গ্যাস হয় এবং ঢেঁকুর আসে।

অ্যালকোহল

হজমক্রিয়ার উপর অ্যালকোহল ভয়ঙ্কর খারাপ প্রভাব ফেলে। এর ফলে ডায়রিয়া হয় এমনকি পেটে আলসারও হতে পারে।

প্রাকৃতিক কাজ সময় মত না সারা

অনেকের অভ্যাস থাকে আটকে রাখা। এটা স্বাস্থ্যের জন্য খুবই ক্ষতিকর। এটা হজমক্রিয়ার সমস্যা তো করেই সেই সাথে অন্যান্য শারীরিক সমস্যারও কারন হয়ে দাড়ায়।

ধূমপান করা

ধূমপান বদহজমের অন্যতম একটি কারন। এর ফলে অ্যাসিডিটি তো হয়ই পেটে আলসারও হতে পারে। এছাড়া ধূমপান হজমতন্ত্রের উপর বিভিন্ন ভাবেই প্রভাব ফেলে।

লেখিকা

শওকত আরা সাঈদা(লোপা)

জনস্বাস্থ্য পুষ্টিবিদ

এক্স ডায়েটিশিয়ান,পারসোনা হেল্‌থ

খাদ্য ও পুষ্টিবিজ্ঞান(স্নাতকোত্তর)(এমপিএইচ)

মেলাক্কা সিটি, মালয়েশিয়া

 

কমেন্টসমুহ
Secret Diary Secret Diary

Top