জমে যাওয়া দুধ দিয়েই তৈরি করুন স্বাস্থ্যকর কিছু খাবার

কাঁচা দুধ এনজাইম এবং প্রোবায়োটিকে ভরপুর থাকে। যখন দুধ টক হতে শুরু করে তখন বুঝতে হবে দুধের উপকারি ব্যাকটেরিয়া প্রোবায়োটিক দুধের চিনি বা ল্যাক্টোজের উপর কাজ করতে শুরু করেছে। তখন আস্তে আস্তে দুধের মিষ্টি স্বাদ কমতে থাকে। অনেক বিশেষজ্ঞের মতে কাঁচা দুধ পান করা নিরাপদ এবং কাঁচা দুধের তৈরি উচ্চ প্রোবায়োটিক সমৃদ্ধ দইও উপকারি।

অনেক সময় যখন দুধ সামান্য কিছুটা টক হয়ে যায় বা কিছুটা জমে যায়। তখন সবাই জানি টক হয়ে যাওয়া বা জমে যাওয়া সেই দুধ দিয়ে ছানা বানানো যায়। তারপর সেটা দিয়ে মিষ্টি, সন্দেশ ইত্যাদি খাবার তৈরি করা সম্ভব। কিন্তু আমরা অনেকেই জানি না এই জমে যাওয়া দুধ দিয়ে আর কি কি তৈরি করা সম্ভব।

এখানে জমে যাওয়া দুধ দিয়ে কিছু উত্তম এবং স্বাস্থ্যকর খাবার তৈরির প্রক্রিয়া জানাতে চেষ্টা করবো-

স্ক্র্যাম্বল এগ

এই স্বাস্থ্যকর খাবারটি সবারই খাদ্য তালিকায় থাকা উচিত। এতে থাকে প্রচুর পরিমানে প্রোটিন এবং স্বাস্থ্যকর শর্করা। যখন টক দুধ এই দিয়ে স্ক্র্যাম্বল এগ বানানো হয় তখন তা বেশ ফ্লাপি হয় এবং খাবারটিতে বাড়তি প্রোটিন এবং ক্যালসিয়াম যোগ হয়।

স্মুদি

স্মুদি তখনি বেশি মজাদার হয় যখন ঘন এবং বেশ কিছু উপাদান সমৃদ্ধ হয়। তাই পরবর্তীতে স্মুদি বানাতে আইস ক্রিম না দিয়ে সেই দুধ দিয়ে দিতে পারেন। এটিতে থাকা ভাল ব্যাকটেরিয়া আপনাদের দেহের জন্য উপকারি হবে।

দই জমিয়ে ফেলুন

দোকান থেকে কেনা দইয়ের চেয়ে ঘরে তৈরি দই তুলনামূলকভাবে ভালো এবং স্বাস্থ্যসম্মতও হয়। তাই যখনি দেখবেন দুধ কিছুটা টক হয়ে যাচ্ছে সেই দুধ দিয়ে দই বানিয়ে ফেলুন। এটি ক্যালসিয়ামের মাত্রাও বৃদ্ধি করবে।

সুপ রান্নায় ব্যবহার করুন

যদি চান আপনার রান্না করা সুপকে আরো একটু ঘন, স্বাস্থ্যসম্মত এবং মজাদার করতে তাহলে সুপে সেই দুধ কিছুটা দিয়ে দিতে পারেন। এটা সুপের স্বাদই শুধু বৃদ্ধি করবেনা সাথে সাথে এর গুণগত মানও উন্নত করবে।

বাটারমিল্ক বানিয়ে ফেলুন

কিছুটা দুধ টক হয়ে গেলে সেটা ফেলে না দিয়ে এর সাথে টক দই মিশিয়ে ভাল করে ঝাকিয়ে নিয়ে বা চাইলে ব্লেন্ড করে নিয়ে তৈরি করে ফেলুন বাটারমিল্ক। তৈরি হয়ে যাবে একটি স্বাস্থ্যকর ড্রিঙ্কস যা প্রতিরোধক ক্ষমতাকে বৃদ্ধি করতে পারে।

তৈরি করে ফেলুন পনির

কটেজ চিজ বা পনিরের মূল উপাদানই হচ্ছে টক হয়ে যাওয়া দুধ। তাই এই দুধ দিয়ে খুব সহজেই পনির তৈরি করতে পারেন।

কেক তৈরিতে

অনেক কেক তৈরিতেই দুধ দেয়ার প্রয়োজন হয়। কিন্তু তখন যদি আপনার ঘরে দুধ না থাকে তাহলে আপনি সেই টক হয়ে যাওয়া দুধটি নিশ্চিন্তে ব্যবহার করতে পারেন। এটি খাবারের কোনো ক্ষতি করে না।

লেখিকা

শওকত আরা সাঈদা(লোপা)

জনস্বাস্থ্য পুষ্টিবিদ

এক্স ডায়েটিশিয়ান,পারসোনা হেল্‌থ

খাদ্য ও পুষ্টিবিজ্ঞান(স্নাতকোত্তর)(এমপিএইচ)

মেলাক্কা সিটি, মালয়েশিয়া

 

কমেন্টসমুহ
Secret Diary Secret Diary

Top