খাওয়ার পর স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর ৭ কাজ

দুপুরে বা রাতে খাবার খাওয়ার পর আপনি কী করেন? এক কাপ চা পান করেন, নাকি সিগারেট খান? নাকি একটু ঘুমিয়ে নেন? এর কোনটাই আপনার স্বাস্থ্যের জন্য ভাল নয়। প্রতিনিয়ত আমরা খাওয়ার পর এমন কিছু কাজ করি যে কাজগুলো স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর। সমীক্ষায় দেখা গেছে শতকরা ৯০ ভাগ মানুষ খাবার খাওয়ার পর হয় ঘুমায়, না হয় সিগারেট খায়। কিন্তু এই অভ্যাসগুলো শরীরে নানা রোগ সৃষ্টি করে থাকে এমনকি ক্যান্সারের মত ভয়ংকর রোগ হতে পারে। কারণ এসবের ফলে খাদ্য হজমে বাঁধা সৃষ্টি হয়। যার কারণে অকারণে ওজন বৃদ্ধি পাওয়া সহ নানান রোগ দেখা দিতে পারে।

১। ধূমপান

খাবার খাওয়ার পর একটি সিগারেট খাওয়া ১০ টি সিগারেট খাওয়ার সমান। দশটি সিগারেট আপনার ফুসফুসের যে ক্ষতি করে খাবার খাওয়ার পর একটি সিগারেট তা করে থাকে। যা কারণে ফুসফুস, গলা, পাকস্থলী ক্যান্সার হওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যায় বহুগুণ।

২। চা পান

খাবার খাওয়ার পর অনেকেই এক কাপ চা পান করে থাকেন। চায়ের থাকা ক্যাফেইন আয়রনকে আবদ্ধ করে ফেলে আর হজমশক্তি কমিয়ে দেয়। এই প্রভাব রক্ত স্বল্পতা মানুষদের উপর বেশি হয়ে থাকে। তাই রক্ত স্বল্পতা মানুষদের কমপক্ষে খাবার খাওয়ার এক ঘন্টা পর চা পান করা উচিত।

৩। গোসল করা

বিশেষজ্ঞদের মতে খাওয়ার সাথে সাথে গোসল করা উচিত নয়। পেটভরা অবস্থায় গোসল করলে আপনার হজমে সমস্যা সৃষ্টি হতে পারে। যার কারণে আপনি অসুস্থ হয়ে পড়তে পারেন।

৪। ফল খাওয়া

অনেকের অভ্যাস রয়েছে খাওয়ার পরে ফল খাওয়ার। খাওয়ার সাথে সাথে ফল খেলে এটি আপনার পাকস্থলিতে বাতাসে ভরে দেয়। যা স্বাস্থ্যের জন্য বেশ ক্ষতিকর। খাবার খাওয়ার এক ঘন্টা আগে বা পরে ফল খাওয়া উচিত।

৫। ঘুমানো

দুপুরে বা রাতে ভারী খাবার খাওয়ার সাথে সাথে ঘুমানো স্বাস্থ্যের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ। কারণ আমরা যখন শুয়ে পড়ি তখন পরিপাক  রস  পেটথেকে  অন্ননালী  মধ্যে  প্রবাহিত হয়, যা স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর। এটি পেটের ভিতরে স্তরে প্রভাব ফেলে যা অ্যাসিডিটি সমস্যার তৈরি করে।

৬। শারীরিক পরিশ্রম

অনেকে মনে করেন খাওয়ার পর শারীরিক পরিশ্রম করা ভাল। কিন্তু কথাটি সম্পূর্ণ সত্য নয়।  খাওয়ার পর হালকা হাঁটা যেতে পারে, কিন্তু কোন ভারী কাজ করা উচিত নয়।

৭। নাচা

খাবার খাওয়ার পর অনেকেই নাচ অনুশীলন করে থাকেন। এই কাজটিও স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর। এটি অন্ত্রের পুষ্টি শোষণ করে থাকে।

 

কমেন্টসমুহ
Secret Diary Secret Diary

Top