শীতকালে এড়িয়ে চলুন এই খাবারগুলো

গ্রীষ্ম, বর্ষা, শীত- প্রতিটা ঋতুতেই এমন কিছু খাবার থাকে যেগুলো না খেলে পুরো সময়টার মজাটাই ঠিকভাবে উপভোগ করা যায়না। মনে হয় কি যেন নেই, কি যেন নেই! কিন্তু এতো গেল অবশ্যই গ্রহণ করার মতন কিছু খাবারের কথা।

ঠিক এই খাবারগুলোর মতনই এমন কিছু খাবার রয়েছে যেগুলো নির্দিষ্ট ঋতুতে এড়িয়ে চলাটাই আমাদের স্বাস্থ্যের পক্ষে ভালো। এখন শীতকাল। নতুন নতুন শাক-সব্জি উঠেছে, গরম ধোঁয়া ওঠা নানারকম লোভনীয় খাবার আমাদের মনকে টেনে নিচ্ছে তাদের দিকে। কিন্তু এদের ভেতর থেকেও জেনে নিন এমন কিছু খাবারের নাম যেগুলো আপনার, অন্তত এই শীতকালীন সময়ে না খাওয়াটাই ভালো।

১. দুধ আপনার যদি কফ ও ঠান্ডাজনিত সমস্যা থেকে থাকে তাহলে দুধকে অবশ্যই এড়িয়ে চলুন শীতকালে। কফ সৃষ্টিতে সাহায্য না করলেও সেটাকে ভয়াবহ রকমের বাড়িয়ে তুলতে অনেকটাই সাহায্য করে দুধ ( ইন্ডিয়া টাইমস )। এছাড়াও এটি আপনার ভেতরে শ্বাস না নিতে পারা ও দম বন্ধ হয়ে আসার অনুভূতি সৃষ্টি করার জন্যে এই ঠান্ডায় যথেষ্ট।

২. চা, কফি ও কোমল পানীয় কোমল পানীয়কে বাদ দিলেও শীতের সময় শরীরকে আরেকটু তাজা রাখতে চা কিংবা কফি পান করেই থাকেন সবাই। তাতে সমস্যা নেই। তবে পরিমাণের দিকে একটু খেয়াল রাখুন। কারণ এগুলোতে ক্যাফেইন থাকে। ক্যাফেইন থাকে কোমল পানীয়তে। যেটি আপনার কফ ও ঠান্ডার সমস্যাকে বাড়িয়ে তুলতে পারে শরীরকে পানিশূন্য করার মাধ্যমে ( ইন্ডিয়া টাইমস )।

৩. চিনি শীতকালে শরীরকে ভালো রাখতে মিষ্টি খাবার ও চিনি অনেক বেশি উপকারী। অনেকে গরম চকোলেটও পান করে থাকেন এসময়। কিন্তু চিকিৎসকদের মতানুসারে চিনি গ্রহন করা ভালো হলেও অতিরিক্ত চিনি মানুষের রোগপ্রতিরোধকারী শক্তিকে নষ্ট করে বা কমিয়ে দিতে পারে ( দি ডেইলি মিল )। গবেষনায় অতিরিক্ত চিনি গ্রহনকারীদের ভেতরে ব্যাকটেরিয়াকে বাধা দেওয়ার প্রবণতা একেবারেই কম দেখা যায়।

৪. মশলা অনেকে শীতের শাক-সব্জীকে আরো মুখরোচক করে তুলতে কিংবা ঠান্ডাতে বিস্বাদ জিহ্বার স্বাদ ফিরিয়ে আনতে খাবারে অতিরিক্ত মশলা, মরিচ ও অন্যান্য স্বাদবর্ধক খাবার ব্যবহার করে থাকেন। এগুলো সাময়িকভাবে আপনাকে তৃপ্তি দিলেও পরবর্তীতে সৃষ্টি করে প্রচন্ড ভয়াবহ ঝামেলার। পেটের পীড়ার কারণ হয়ে দাড়আয় এই অতিরিক্ত-ঝাল-মশলা ( ফক্সনিউজ )। আর তাই শীতকালে পরিহার করুন অতিরিক্ত এই মশলাও।

কমেন্টসমুহ
Secret Diary Secret Diary

Top