সতর্ক থাকুন হাইপোথাইরয়ডিজমের এই প্রাথমিক লক্ষণগুলোর বিষয়ে

আপনি কি দিনের বেলায় ক্লান্ত অনুভব করেন এবং কাজ করার এনার্জি পান না? অথবা সর্বদাই ঘুম ঘুম ভাব থাকে আপনার এবং খাদ্য গ্রহণের কোন পরিবর্তন ছাড়াই ক্রমশ ওজন বেড়ে যাচ্ছে আপনার? তাহলে আপনার ডাক্তারের শরণাপন্ন হওয়া প্রয়োজন। কারণ সম্ভবত আপনি হাইপোথাইরয়ডিজমের সমস্যায় ভুগছেন।

স্ট্রেসের মাত্রা বৃদ্ধি পাওয়া, রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যাওয়া এবং ব্লাড সুগার লেভেলের উঠা-নামার কারণে হাইপোথাইরয়ডিজম একটি সাধারণ সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে আজকাল। থাইরয়েড গ্ল্যান্ড যখন পর্যাপ্ত পরিমাণে থাইরয়েড হরমোন নিঃসরণ করতে অক্ষম হয় তখনই এই সমস্যাটির সৃষ্টি হয় এবং এটি হওয়ার আরেকটি প্রধান কারণ হচ্ছে আয়োডিনের ঘাটতি।

হাইপোথাইরয়ডিজমের সমস্যাটি প্রাথমিক পর্যায়ে শনাক্ত করতে পারলে এর বৃদ্ধিকে ঠেকানো যায়। ডা. আইজেক মাথাই আন্তর্জাতিকভাবে প্রশংসিত হোলিস্টিক ফিজিশিয়ান এবং বেঙ্গালুরুর SOUKYA এর প্রতিষ্ঠাতা তার “ডা. মাথাইস হলিস্টিক হেলথ গাইড ফর ওমেন” বইটিতে হাইপোথাইরয়ডিজমের প্রাথমিক লক্ষণগুলোর বিষয়ে বর্ণনা করেছেন। চলুন তাহলে জেনে নেয়া যাক লক্ষণগুলোর বিষয়ে।

১। ঠান্ডার প্রতি সংবেদনশীলতা

আপনি যদি ঠান্ডা সহ্য করতে না পারেন বা তাপমাত্রা সামান্য কমে গেলেই যদি আপনার তা মানিয়ে নিতে কষ্ট হয় তাহলে এটি হাইপোথাইরয়ডিজমের একটি লক্ষণ।

২। কোষ্ঠকাঠিন্য

হাইপোথাইরয়ডিজম হলে মেটাবলিজম ধীর গতির হয়। তাই দীর্ঘমেয়াদী কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যায় ভোগাও হাইপোথাইরয়ডিজমের লক্ষণ। নিয়মিত আঁশ সমৃদ্ধ খাবার খাওয়ার পরও যদি আপনার কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা থাকে তাহলে সতর্ক হওয়া প্রয়োজন।

৩। ডিপ্রেশন

হাইপোথাইরয়ডিজমের ফলে মানসিক কাজ ধীর গতির হয় এবং প্রাথমিক অবস্থায় বিষণ্ণতা দেখা দিতে পারে। যদি আপনার মনোযোগের সমস্যা দেখা দেয় অথবা আপনার মেজাজ খুব দ্রুত উঠানামা করে তাহলে আপনার থাইরয়েড স্টিমুলেটিং হরমোনের লেভেল চেক করা প্রয়োজন।

৪। ক্লান্তি ও কাজে ধীরগতি

হাইপোথাইরয়ডিজমের সবচেয়ে সাধারণ লক্ষণ হচ্ছে ক্লান্ত অনুভব করা। যদি তেমন কোন কারণ ছাড়াই আপনি ক্লান্ত অনুভব করেন, সকালে ঘুম থেকে উঠতে সমস্যা হয় অথবা দিনের যেকোন সময় তন্দ্রা আসে আপনার তাহলে একজন ডাক্তারের সাথে কথা বলুন এবং হাইপোথাইরয়েডের পরীক্ষাটি করান।

৫। ওজন বৃদ্ধি পাওয়া

ওজন বৃদ্ধি পাওয়া হাইপোথাইরয়ডিজমের আরেকটি সাধারণ লক্ষণ। শরীরের ফ্যাট ও কার্বোহাইড্রেটের মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করে থাইরয়েড গ্ল্যান্ড থেকে নিঃসৃত হরমোন। এই হরমোনের অনুপস্থিতি বা কম নিঃসরণের ফলে পরিপাক ঠিকভাবে হয়না ফলে ওজন বৃদ্ধি পায়।

৬। জয়েন্ট বা মাসেল পেইন

যদি সকালে অস্থিসন্ধিতে শক্ত অনুভব করেন এবং মাংসপেশীতে দুর্বল অনুভব করেন তাহলে আপনার থাইরয়েড টেস্ট করিয়ে নেয়া প্রয়োজন। রয়্যাল সোসাইটি অফ মেডিসিন নামক জার্নালে প্রকাশিত গবেষণা প্রতিবেদনে বলা হয় যে, পেশীর দুর্বলতা ও জয়েন্টের ব্যথা নির্দিষ্ট ক্ষেত্রে হাইপোথাইরয়ডিজমের ইঙ্গিত হতে পারে।

হাইপোথাইরয়ডিজমের সমস্যায় পুরুষের চেয়ে নারীরাই বেশি ভুগে থাকেন। হঠাৎ করেই নারীর মিনেস্ট্রুয়াল সাইকেলের পরিবর্তন হলে এবং রক্তপাতের পরিমাণ বৃদ্ধি পেলে সতর্ক হওয়া প্রয়োজন। এছাড়াও স্বাদ ও গন্ধের অনুভূতি কমে যাওয়া, চুল ও আইভ্রু পাতলা হয়ে যাওয়া, ত্বক শুষ্ক ও ফ্যাকাসে হয়ে যাওয়া এবং নখ ভঙ্গুর হয়ে যাওয়া হাইপোথাইরয়ডিজমের আরো কিছু প্রাথমিক লক্ষণ। এই উপসর্গগুলোকে অবহেলা না করে ডাক্তারের পরামর্শ নিন এবং হাইপোথাইরয়ডিজম প্রতিহত করুন।

কমেন্টসমুহ
Secret Diary Secret Diary

Top