ব্যথা দূর করে দেবে প্রাকৃতিক এই পেইনকিলারগুলো

বিভিন্ন কারণে শরীরে ব্যথা হতে পারে। বিশেষত মাথাব্যথা সময় নেই, কারণ নেই হঠাৎ করে শুরু হয়ে যেতে পারে। আবার একটু বেশি হাঁটলেন শুরু হতে পারে পা ব্যথা। যেকোন ব্যথা থেকে মুক্তির জন্য আমরা পেইনকিলারে শরণাপন্ন হয়ে থাকি। কিন্তু এই পেইনকিলার শরীরের জন্য বেশ ক্ষতিকর। ক্ষতিকর পেইনকিলার খাওয়ার পরিবর্তে যদি প্রাকৃতিক পেইনকিলার খেয়ে ব্যথা কমানো যায়, তবে কেমন হয় বলুন তো? যন্ত্রণাদায়ক ব্যথা দূর করার প্রাকৃতিক পেইন কিলার আপনার রান্নাঘরে মজুদ আছে! আজ তাহলে পরিচিত হয়ে নিন প্রাকৃতিক এই পেইনকিলারগুলোর সাথে।

১. হলুদ হলুদ বুক জ্বালাপোড়া, অস্থির ব্যথা এবং ইনফ্লামেশন দূর করে দেয়। হলুদের কিউমিন, অ্যান্টি- ইনফ্লামেটরি উপাদান ব্যথা, প্রদাহ দূর করতে সাহায্য করে। তবে উচ্চ মাত্রায় দীর্ঘদিন হলুদ সেবন শরীরের জন্য ক্ষতিকর হয়। এমনকি গলব্লাডারের সমস্যা আছে, এমন রোগীরা হলুদ খাওয়া থেকে বিরত থাকা উচিত।

২. আদা এক গবেষণায় দেখা গেছে আদা পেট ব্যথা, বাতের ব্যথা দূর করতে বেশ কার্যকরী। গরম পানিতে আদা কুচি দিয়ে জ্বাল দিন। এটি বরফের ছাঁচে ঢেলে দিন। তারপর আদা পানির বরফ সারাদিন খান। এটি পেটের ব্যথা কমিয়ে দিবে। গর্ভকালীন সময় অথবা সার্জারির পর আদা বেশ কার্যকর।

৩. রসুন এক গ্লাস কুসুম গরম পানিতে ছয় কোয়া রসুন কুচি মিশিয়ে নিন। এটি দিয়ে দিনে দুইবার কুলকুচি করুন। দেখবেন গলা ব্যথা গায়েব হয়ে গেছে। রসুনের অ্যান্টিমাইক্রোবিয়াল উপাদান ব্যথানাশক। তা ব্যাকটেরিয়া দূর করে দেয়।

৪। ফিশ অয়েল ফিশ অয়েল অ্যান্টি ইনফ্লামেটরী উপাদানসমৃদ্ধ। গবেষণায় দেখা যে যেসব ঘাড় এবং পিঠের ব্যথার রোগীদের দিনে ১২০০ মিলিগ্রাম ফিশ অয়েল সাপ্লিমেন্টারি খাওয়ানো হয়েছে তাদের অর্ধেক বেশি রোগীরা পেইনকিলার খাওয়া বন্ধ করে দিয়েছেন।

৫. লবঙ্গ লবঙ্গের তেল দাঁতের ব্যথা দূর করতে বেশ কার্যকর। এক টুকরো তুলোর বলে কয়েক ফোঁটা লবঙ্গের তেল লাগিয়ে নিন। এটি দাঁতে ব্যথার স্থানে রাখুন। লবঙ্গের তেল সাময়িকভাবে ব্যথা দূর করতে সাহায্য করবে।

৬. অ্যাপেল সাইডার ভিনেগার এক গ্লাস পানিতে এক চামচ অ্যাপেল সাইডার ভিনেগার মিশিয়ে নিয়মিত পান করুন। এটি বুক জ্বালাপোড়া দূর করে বুক ব্যথা কমিয়ে দেয়।.

কমেন্টসমুহ
Secret Diary Secret Diary

Top