মাত্র ১ মিনিটের ৬ টি অভ্যাস নিশ্চিত করবে সুস্থ জীবন!

কখনো কি ভেবে দেখেছেন এই যে নিরন্তর ছুটে চলা কাজের পেছনে এবং ব্যস্ততায় নিজেকে ভুলে যাওয়ার অভ্যাসটি কোথায় হারাবে যদি আপনি সুস্থ না থাকেন? আমরা অনেকেই ভাবি না। বইয়ের পাতায় পড়ে থাকি ‘স্বাস্থ্যই সকল সুখের মূল’ কিন্তু সুখ খুঁজতে থাকি অন্য সব কিছুতে। অসুস্থ হয়ে পড়লে সব ব্যস্ততা থেমে যাবে এক নিমেষেই। তাই নিজেকে সুস্থ রাখার কথা ভাবুন সবার প্রথমে, তারপর ব্যস্ত হোন জীবন যাপনের তাগিদ নিয়ে। সময় নিয়ে ভাবছেন? সময়ের দোহাই দেবেন না, কারণ মাত্র ১ মিনিটের ছোট্ট কিছু অভ্যাস আপনার সুস্থ জীবনের জন্য অনেক কার্যকরী। মাত্র ১ মিনিটের এই কাজগুলো করেই দেখুন না, অনেকটা সুস্থ থাকতে পারবেন।

১) জুতো রাখা আলনা ঘরের বাইরেই রাখুন এবং প্রয়োজনে দরজায় লিখে রাখুন জুতো ঘরের ভেতর না আনার কথা। এতে করে জুতোয় লেগে থাকা বাইরের নানা রোগ জীবাণু, ধুলোবালি, ব্যাক্টেরিয়া ঘরের ভেতরে প্রবেশ করবে না। এছাড়াও এই ভালো অভ্যাসটি ধুলো সংক্রান্ত অ্যালার্জির সমস্যা থেকেও রেহাই দেবে।

২) একটানা ২০ মিনিট কাজ করার পর অন্তত ১ মিনিট চোখ বন্ধ করে রাখুন। এতে করে চোখের ওপরের চাপ কমবে। চোখ বন্ধ রাখার পাশাপাশি কয়েকবার ঘন ঘন চোখের পাতাও ফেলুন। এতে চোখের ব্যায়ামও হবে। নিজের চোখকে সুস্ত রাখতে পারবেন।

৩) অনেকেই হাঁচি দেয়ার সময় রুমাল বা টিস্যু কাছে না পেলে হাতের তালু দিয়ে মুখ ঢেকে নিয়ে থাকেন। এই কাজটি না করে বাহুতে হাঁচি দিন। হাতের তালুতে হাঁচি দিলে জীবাণু আপনার হাতে চলে যায় এবং অসাবধানতাবশত আপনার হাত থেকে মুখে চলে যেয়ে রোগের সৃষ্টি করে।

৪) রান্না ঘরের যে মাজুনি দিয়ে বাসনকোসন পরিষ্কার করেন তা কি পরিষ্কার করা হয়? মোটেই না। পরীক্ষায় দেখা যায় কমোডের সিটের চাইতেও বেশি জীবাণু থাকে একটি অপরিষ্কার রান্নাঘরের থালাবাসন ধোয়ার স্পঞ্জে। গরম পানি দিয়ে পরিষ্কার করে আগুনের তাপে শুকিয়ে রাখবেন স্পঞ্জ অথবা ওভেনে ১ মিনিট হিট দিয়ে রান্নাঘরের থালাবাসন ধোয়ার স্পঞ্জটি জীবানুমুক্ত করে নিন।

৫) দুবার দাঁত পরিষ্কার করার পরও কিন্তু সমস্যার সমাধান হয়ে উঠে না। নিয়মিত দাঁতের পাশাপাশি জিহ্বা পরিষ্কার করার অভ্যাস গড়ে তুলুন। এতে করে দাঁত ও মাড়ি থাকবে সুরক্ষিত এবং অনেক ধরনের সমস্যা থেকে রেহাই পেয়ে যাবেন।

৬) মানসিক চাপ খুব খারাপ একটি সমস্যা যা আমরা অবহেলাই করে থাকি। কিন্তু এই মানসিক চাপ বাড়তে দিলে স্বাস্থ্য সমস্যা এমনকি মানসিক স্বাস্থ্য সমস্যাও বাড়তে থাকে। যখনই চাপ বেশি লাগবে অন্তত ১ টি মিনিট হলেও ঠাণ্ডা হয়ে বসুন। কিছুক্ষণ মেডিটেশন করে নিন।

 

কমেন্টসমুহ
Secret Diary Secret Diary

Top