সরিষা বীজের চমৎকার কিছু উপকারিতা

আমেরিকান রান্নার একটি জনপ্রিয় উপাদান হচ্ছে সরিষা বীজ। খাবারের স্বাদ  বৃদ্ধিতে এই বীজ ব্যবহার করা হয় এবং সরিষার সস খুবই পছন্দনীয় সেখানে। গ্রীক চিকিৎসক হিপোক্রেটিস এর আগের যুগ থেকেই চিকিৎসা কাজে ব্যবহার হয়ে আসছে এটি। সাদা, বাদামী এবং কালো এই ৩ প্রকারের সরিষা বীজ পাওয়া যায়। সারা বিশ্বের মানুষ এটি ব্যবহার করছেন। গ্রীক, রোমান, এশিয়ান এবং আফ্রিকানরা তাদের খাবারে ব্যবহার করে থাকেন সরিষা বীজ। সহজলভ্যতা এবং খাবারের স্বাদ বৃদ্ধি করা ছাড়াও সরিষা বীজের অনেক স্বাস্থ্য উপকারিতাও আছে। সরিষা বীজের চমৎকার কিছু উপকারিতার বিষয়ে জেনে নিই চলুন।

১। ক্যান্সারের চিকিৎসায়

গ্লুকোসাইনোলেটস এবং মাইরোসিনেজ নামক উপাদানের উপস্থিতির কারণে সরিষা বীজ  ক্যান্সার কোষের বৃদ্ধি ঠেকাতে পারে বলে মনে করা হয়। কারণ ক্যান্সার কোষের বৃদ্ধি ঠেকাতে যে ফাইটোকেমিক্যাল ব্যবহার করা হয় তাতে এই দুটি উপাদান থাকে।

২। রিউমেটিক আরথ্রাইটিস

রিউমেটিক আরথ্রাইটিস এর ব্যথা কমতে সাহায্য করে সরিষা বীজ। এতে যে সেলেনিয়াম ও ম্যাগনেসিয়াম থাকে তা এই সমস্যা থেকে মুক্ত হতে সাহায্য করে।

৩। মাইগ্রেন

সরিষা বীজের ম্যাগনেসিয়ামের উপস্থিতি মাইগ্রেন হওয়ার প্রবণতা কমায়। সরিষার সামান্য ছোঁয়া আপনার মাছে উপস্থিত ওমেগা ৩ ফ্যাটি আসিডের উন্নতিতে সাহায্য করে।

৪। শ্বসনতন্ত্রের বাঁধা দূর করে

শ্বসনতন্ত্রে কোন সমস্যা যেমন- কফ জমে যাওয়া থেকে মুক্ত হতে সাহায্য করে সরিষা বীজ।

৫। নিদ্রালুতা প্রতিরোধে

যদি আপনার নিদ্রালুতার সমস্যা দূর করতে চান তাহলে আপনার প্রতিদিনের মসলার তালিকায় রাখুন সরিষা।

৬। রোগ প্রতিরোধ করে

সরিষা বীজে নির্দিষ্ট পুষ্টি উপাদান থাকে যা বিভিন্ন রোগ প্রতিরোধে সাহায্য করে।

৭। হজম উপযোগী ফাইবার  

হজম প্রক্রিয়ায় সাহায্য করে সরিষা বীজ। মল নির্গমনে সাহায্য করার মাধ্যমে সার্বিক বিপাক প্রক্রিয়ার উন্নতিতে সাহায্য করে সরিষা বীজ।

৮। রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করে

কপার, আয়রন, ম্যাগনেসিয়াম এবং সেলেনিয়াম ইত্যাদি উপাদানগুলো থাকায় সরিষা বীজ রক্তচাপের চিকিৎসায় সাহায্য করে। এই উপাদানগুলো অ্যাজমা অ্যাটাক প্রতিরোধের ক্ষেত্রেও কাজ করে।

৯। চুলের বৃদ্ধিতে সাহায্য করে

সরিষা বীজের নির্যাস থেকে তৈরি সরিষার তেল ভিটামিন এ এর চমৎকার উৎস। আর ভিটামিন এ চুলের বৃদ্ধির জন্য প্রয়োজনীয় একটি উপাদান। তাই এর ব্যবহারে চুলের বৃদ্ধি দ্রুত হয়। এছাড়াও এতে প্রোটিন, ক্যালসিয়াম, ভিটামিন ই, ওমেগা ৩ ও ৬ ফ্যাটি এসিড থাকে যা চুলকে শক্তিশালী হতে সাহায্য করে। এটি চুলকে উজ্জ্বল ও দীপ্তিময় হতেও সাহায্য করে।

এছাড়াও সরিষা বীজ প্রাকৃতিক স্ক্রাবার হিসেবে কাজ করে, ত্বককে আর্দ্র রাখে, বয়স বৃদ্ধিকে ঠেকায়, সংক্রমণের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করতে সাহায্য করে, দুর্গন্ধ দূর করতে সাহায্য করে, পেশীর ব্যথা থেকে মুক্ত হতে, ঠান্ডা ও পিঠের ব্যথা নিরাময়ে এবং জ্বর নিরাময়ে সাহায্য করে।

কমেন্টসমুহ
Secret Diary Secret Diary

Top