ভাত কী স্বাস্থ্যকর খাবার?

ভাত (যা একধরনের বীজ) অনেকেরই প্রধান খাদ্য, কিন্তু এই কার্বোহাইড্রেট সমৃদ্ধ শস্যটি কী স্বাস্থ্যকর? এটি নির্ভর করে আপনি কী ধরনের চাল পছন্দ করছেন ভাত রান্নার জন্য তার উপর।

সাদা চাল ‘পরিশোধিত শস্য’ বলে কম পুষ্টিকর হিসেবেই গণ্য করা হয়, কারণ এই চাল ভাঙ্গার সময় এর ভুষি এবং বীজাণু আলাদা করে ফেলা হয়। এই প্রক্রিয়ার ফলে বি ভিটামিন, আয়রন এবং ফাইবার দূর হয়ে যায়। তারপর ও সাদা চালে বি ভিটামিন ও আয়রন থাকে কিন্তু এতে ফাইবার থাকেনা।

বাদামী চালও সাদা চালের মতোই কিন্তু একে ‘আস্ত শস্য’ হিসেবে গণ্য করা হয়, কারণ এর অভক্ষণযোগ্য বাহিরের খোসাই (তুষ) কেবল ফেলে দেয়া হয়। যেহেতু বাদামী চালে তুষ এবং  বীজ অপরিবর্তিত থাকে তাই এটি অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, ভিটামিন ই এবং ফাইবারের ভালো উৎস।

বস্তুত ১ কাপ রান্না করা বাদামী চালে ৩.৫ গ্রাম ফাইবার থাকে, অথচ একই পরিমাণ সাদা চালে ১ গ্রামের ও কম ফাইবার থাকে।

মজার / আকর্ষণীয় বিষয় হচ্ছে : গবেষকেরা পরামর্শ দিয়েছেন যে, শস্যের একটি অংশকে সাবঅ্যালিউরন  স্তর বলে যা বাদামী চালে থাকে কিন্তু সাদা চালে থাকেনা। এটি উচ্চ রক্তচাপ এবং  অ্যাথেরোস্ক্লেরোসিস এর বিরুদ্ধে সুরক্ষা দিতে পারে।  

কয়েক হাজার নারী ও পুরুষের উপর করা একটি বড় গবেষণায় প্রকাশ করা হয়েছে যে, সাদা চালের পরিবর্তে বাদামী চাল ব্যবহার করলে টাইপ ২ ডায়াবেটিস হওয়ার ঝুঁকি কমে।

একটি বিষয় মনে রাখা প্রয়োজন : বেশিরভাগ মানুষই মনে করেন যে, বাদামী চাল হোল গ্রেইন রাইস বা গোটা শস্য ধানের সমার্থক। কিন্তু Whole grain council এর  মতে, হোল গ্রেইন রাইস চালের ধরণের উপর নির্ভর করে বিভিন্ন বর্ণের হতে পারে।

সকল শস্যই হোল গ্রেইন বা আস্ত শস্য হিসেবে জীবন শুরু করে। মাঠে প্রাকৃতিকভাবে জন্মানোর সময় উদ্ভিদের বীজকে হোল গ্রেইন বলা হয়। এই বীজকে ‘কার্নেল’ও বলা হয় যা তিনটি অংশ – ব্র্যান বা খোসা, জার্ম বা বীজাণু এবং এন্ডোস্পার্ম নিয়ে গঠিত, এরা অভক্ষণযোগ্য খোসা দিয়ে আবৃত থাকে। এই খোসাই কার্নেলকে সূর্যরশ্মি, পানি, রোগ এবং পোকার আক্রমণ থেকে সুরক্ষা দেয়।

বন্য ধান হচ্ছে পানিতে জন্মানো ঘাসের বীজ, এতে বাদামী চালের চেয়ে সামান্য বেশি প্রোটিন থাকে। গবেষণায় জানানো হয়েছে যে, এর মধ্যে নির্দিষ্ট অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এবং কোলেস্টেরল কমানোর উপাদান থাকে।

পুষ্টির দিক দিয়ে সাদা চালের চেয়ে বাদামী এবং বন্য চাল ভালো। তবে দোকান থেকে কেনা  প্যাকেটজাত চালের মধ্যে উচ্চমাত্রার সোডিয়াম থাকে বলে সতর্কতার প্রয়োজন। ১ কাপ রান্না করা বাদামী চালে ৮ মিলিগ্রাম সোডিয়াম থাকে। যেহেতু চাল ক্যালোরি ও কার্বোহাইড্রেটে পরিপূর্ণ তাই যদি আপনি রক্তের চিনির মাত্রা ও ক্যালোরি নিয়ে চিন্তিত থাকেন তাহলে আপনার ভাত গ্রহণের পরিমাণ আধা কাপে সীমিত রাখুন। ১ কাপ ভাতে ২০০ ক্যালোরি এবং ৫০ গ্রামের বেশি কার্বোহাইড্রেট থাকে।  

কমেন্টসমুহ
Secret Diary Secret Diary

Top