মা থেকে শিশুতে এইডস সংক্রমণ বন্ধে কিউবার সাফল্য

বিবিসি জানিয়েছে, কিউবার এই সাফল্যকে জনস্বাস্থ্যে বিশ্বের শ্রেষ্ঠ অর্জনগুলোর একটি বলে বর্ণনা করেছেন ডব্লিউএইচও-র প্রধান ড. মার্গারেট চ্যান।

কয়েক বছরের ধারাবাহিক প্রচেষ্টায় এই সাফল্য পেয়েছে কিউবা। এই চিকিৎসা পদ্ধতিতে এইচআইভি ভাইরাস বহনকারী বা সিফিলিস আক্রান্ত গর্ভবতীদের আগাম চিকিৎসার আওতায় আনা হয়, তাদের পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে মায়ের শরীর থেকে গর্ভের সন্তানের শরীরে যেন রোগ প্রবেশে করতে না পারে, তার জন্য ওষুধ প্রয়োগ করা হয়।

একই পদ্ধতি প্রয়োগ করে বিশ্বের অন্যান্য দেশও এ বিষয়ে সাফল্য পাবে বলে আশা করছে ডব্লিউএইচও।

প্রতি বছর বিশ্বের প্রায় ১৪ লাখ এইচআইভি বহনকারী নারী গর্ভবতী হন। চিকিৎসা না করালে গর্ভকালে, প্রসবপূর্ব ব্যথাকালীন সময়ে, প্রসবের সময় বা বুকের দুধ পান করানোর সময় মায়ের শরীরের ভাইরাস সন্তানের শরীরে বাহিত হওয়ার ১৫ থেকে ৪৫ শতাংশ পর্যন্ সম্ভাবনা থাকে।

মা ও শিশু উভয়কে ভাইরাসরোধী ওষুধ খাওয়ালে সংক্রমণের ঝুঁকি কমে যায়।

অপরদিকে, প্রতি বছর বিশ্বের প্রায় ১০ লাখ গর্ভবর্তী নারী সিফিলিসে আক্রান্ত হন।

এদের ক্ষেত্রেও আগাম পরীক্ষা-নিরীক্ষা ও চিকিৎসায় অনাগত শিশুকে এসব জটিলতার কবল থেকে মুক্ত রাখা যায়।

প্রাপ্ত দাপ্তরিক তথ্যানুযায়ী, কিউবায় এইচআইভি থাকা মায়েদের দুই শতাংশেরও কম সংখ্যক সন্তান ভাইরাসটি নিয়ে জন্মগ্রহণ করে। পুরো বিশ্বে এই সংখ্যাটিই সর্বনিম্ন।

কমেন্টসমুহ
Secret Diary Secret Diary

Top