সুস্বাস্থ্যের জন্য যেসব এড়িয়ে চলবেন

আমরা নিজেদের অজান্তেই আমাদের প্রাত্যহিক জীবনে এমন কিছু অভ্যাস রপ্ত করি যা স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর। শুধু সচেতনতার অভাবে আমরা বুঝতেও পারি না যে এসব অভ্যাস আমাদের স্বাস্থ্যকে ঝুঁকির মুখে ফেলতে পারে। অথচ একটু সচেতন হলেই এসব অভ্যাস পরিত্যাগ করে সুস্থ থাকা সম্ভব। সম্প্রতি টাইমস অব ইন্ডিয়ার এক অনলাইন প্রতিবেদনে এমন কয়েকটি ক্ষতিকর অভ্যাসের কথা তুলে ধরা হয়েছে। চলুন তাহলে জেনে নেই সেই ক্ষতিকর অভ্যাসগুলো কী কী?

অনেকক্ষণ বসে থাকা

আপনি যদি চাকরিজীবী হয়ে থাকেন তাহলে কাজের তাগিদে আপনাকে দীর্ঘক্ষণ অফিসের চেয়ারে বসে থাকতে হতে পারে। প্রতিদিন একনাগাড়ে ঘণ্টার পর ঘণ্টা বসে থাকাটা শরীরের জন্য খুব ক্ষতিকর। সুস্থ থাকতে চাইলে আপনাকে অবশ্যই এই অভ্যাস বাদ দিতে হবে। একনাগাড়ে বসে না থেকে কাজে বিরতি নিয়ে হাঁটাহাঁটি করতে পারেন। অফিস শেষে বাসায় ছুটে গিয়েই টিভি দেখতে বসে পড়ার অভ্যাস থাকলে সেটাও দূর করতে হবে।এক্ষেত্রে আপনি বাসায় গিয়ে প্রতিদিন ব্যমায়ের অভ্যাস করতে পারেন। তাহলে শরীরকে ফিটনেস রাখার পাশাপাশি সুস্থও থাকতে পারবেন।

নিয়ম না মেনে ব্যায়াম করা

শরীর ফিট রাখার জন্য নিয়মিত ব্যায়ামের বিকল্প নেই। কিন্তু আপনি ব্যায়ামের নিয়ম মেনে করছেন তো? প্রতিদিন নিয়ম করে দৌড়াচ্ছেন কিংবা জিমে ঢুকেই ভারী ব্যায়াম শুরু করে দিচ্ছেন? এটা থেকে সাবধান। হালকা ব্যায়াম না করে কখনও ভারী ব্যায়াম করতে যাবেন না। ওয়ার্মআপ বা হালকা ব্যায়ামের মাধ্যমে আগে শরীরের মাংসপেশিকে উজ্জীবিত করে নিন। তারপর ভারী ব্যায়াম শুরু করুন। এতে করে আপনার শরীরের রক্ত চলাচল প্রক্রিয়া স্বাভাবিক থাকবে এবং পরিশ্রম করার শক্তিও বেশি পাবেন। গবেষণায় দেখা গেছে, আগে হালকা ব্যায়াম করে নিলে ভারী ব্যায়াম করার সময় চোট পাওয়ার সম্ভাবনা অনেকটাই কমে যায়।

অতিরিক্ত ঘুম

স্বাস্থ্যের জন্য গভীর ঘুম খুবই উপকারী। কিন্তু মাত্রাতিরিক্ত ঘুমালে তা আপনার শরীরে বিরূপ প্রভাব ফেলে। প্রতিদিন সাত থেকে ১০ ঘণ্টা ঘুমান উচিত। এর কমবেশি হলে তা শরীরের জন্য ক্ষতির কারণ হয়ে দাঁড়ায়। মোবাইল ফোনে অ্যালার্ম দিলেও প্রতিদিন সকালে ওঠার সময় কি স্নুজ বোতাম চাপতে হচ্ছে আপনাকে? কিংবা অ্যালার্ম বন্ধ করে দিয়ে ঘুমিয়ে পড়ছেন? এমন অভ্যাস থাকলে তা বাদ দিন। প্রতিরাতে নিয়ম করে একই সময়ে ঘুমাতে যান এবং সকালে একই সময়ে জেগে ওঠার অভ্যাস রপ্ত করুন।

অপর্যাপ্ত পানি পান

সুস্থ্য থাকার জন্য প্রতিদিন পর্যাপ্ত পরিমাণে পানি পান করার চেয়ে ভালো অভ্যাস আর হতে পারে না। কিন্তু যদি পর্যাপ্ত পরিমাণ পানি পান না করেন, তাহলে শরীরকে খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি উপাদান থেকে বঞ্চিত করছেন আপনি। পর্যাপ্ত পানি পান না করার অভ্যাস থাকলে এখনই তাকে বিদায় জানান। বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ, প্রতিদিন একজন পূর্ণবয়স্ক মানুষের কমপক্ষে পাঁচ লিটার পানি পান করা উচিত।

কমেন্টসমুহ
Secret Diary Secret Diary

Top