আটসাট জিন্সে মারাত্মক স্বাস্থ্যঝুঁকিতে নারীরা!

আটসাট জিন্স নারীদের মধ্যে খুবই জনপ্রিয়। কিন্তু এ ধরনের জিন্সের কারণেই অনেক নারীই অসুস্থ হয়ে পড়ছেন। ডাক্তারের শরণাপন্ন হতে হয়েছে এবং দীর্ঘ সময় চিকিৎসা নিতে হয়েছে। সম্প্রতি অষ্ট্রেলীয় এক নারীকে হাসপাতালে পর্যন্ত ভর্তি হতে হয়েছে।

৩৫ বছর বয়সী এ নারী আটসাট জিন্স পরে কয়েকঘন্টা ধরে হাঁটু গেড়ে উপুর হয়ে বসে কাজ করছিলেন। রাতে বাসায় হাঁটার সময় তিনি তার পায়ে ব্যথা অনুভব করেন। ক্রমেই সেটা বাড়তে থাকে। এক পর্যায়ে তার হাঁটু বেলুনের মতো ফুলে যায়, তিনি নড়তে পারছিলেন না এবং ফ্লোরে পড়ে যান। তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নেয়া পর্যন্ত কয়েক ঘন্টা সময় তাকে ওই ফ্লোরেই তীব্র যন্ত্রণা নিয়ে বসে থাকতে হয়েছে।

ডাক্তাররা জানিয়েছেন, টাইট জিন্স পরার কারণে এ নারী ‘কম্পার্টমেন্ট সিনড্রোম’ নামে এক ধরনের রোগে আক্রান্ত হয়েছেন, যার ফলে তাকে হাসপাতালে ভর্তি হতে হয়েছে ডাক্তারদেরকে বাধ্য হয়ে শেষ পর্যন্ত তার জিন্স প্যান্টটি কেটে ফেলতে হয়েছে।

‘কম্পার্টমেন্ট সিনড্রোম’ সাধারণত সন্নিবেশিত এক গুচ্ছ পেশীতে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণের ফলে হয়ে থাকে এবং এটা বিশেষ করে হাঁটুতে হয়।

আটসাট জিন্সের কারণে এভাবে ফুলে যেতে পারে হাঁটু

জার্নাল অব নিউরোলজি, নিউরোসার্জারি এন্ড সাইকিআট্রি জার্নালে সম্প্রতি এ কেস স্টাডিটি প্রকাশিত হয়েছে।

অষ্ট্রেলিয়ার রয়্যাল এডিলেইড হাসপাতালের পরীক্ষায় দেখা গেছে, ওই নারীর পা দুটোতে পর্যাপ্ত রক্ত চলাচল করার উপযুক্ত ছিল। কিন্তু টাইট জিন্স পড়ে এক পায়ের ওপর বসে কাজ করায় নিচের পা অস্বাভাবিকভাবে ফুলে যায় এবং পায়ের পেশী ও নার্ভ মারাত্মক ক্ষতিগ্রস্থ হয়। এ পর্যায়ে তিনি তার পায়ের অনুভূতি শক্তিও হারিয়ে ফেলেন। হাসপাতালে আনার পর তার হাঁটুর পেশীতে এক ধরণের তরল ওষুধ দিলে প্রায় চারদিন পর তিনি আস্তে আস্তে হাঁটতে সক্ষম হন।

অস্ট্রেলিয়ার চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, এর আগেও তারা এমন অনেক রোগী পেয়েছেন, আটসাট জিন্স পড়ার কারণে যাদের একই ধরনের সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়েছে। টাইট জিন্স পড়ার কারণে রোগীদের উরু সম্পূর্ণ অনুভূতিহীন হয়ে পড়েছে, এমন রোগীও পেয়েছেন তারা। অবশ্য এ ধরণের সমস্যা হালকা-পাতলা গড়নের নারীদের ক্ষেত্রেই বেশি ঘটে।

তাই ডাক্তাররা নারীদের আটসাট জিন্স পড়ে ’ফ্যাশন ভিকটিম’ না হওয়ার আহবান জানিয়েছেন।

কমেন্টসমুহ
Secret Diary Secret Diary

Top