শিশুর উচ্চতা বৃদ্ধিতে যে খাবার গুলোর ভূমিকা অপরিসীম

শিশুদের লম্বা হওয়ার পিছনে মায়েরা অনেক সচেতন থাকেন । সাধারণত মানুষের উচ্চতার বিষয়টি জেনেটিকাল। অর্থ্যাৎ বংশ পরম্পরার উপর নির্ভর করে। কিন্তু কখনো কখনো পরিমিত পুষ্টিকর খাবার ও সঠিক ব্যায়ামের মাধ্যমেও হাড়ের তথা শরীরের বৃদ্ধি ঘটানো সম্ভব। মানুষের শরীর একটি নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত বৃদ্ধিপ্রাপ্ত হয় তার পরে আর হয় না। তাই উচ্চতা বৃদ্ধি করার জন্য যা করার তা ওই সময়ের মধ্যেই করতে হবে। সম্প্রতি বিজ্ঞানীরা গবেষণা করে এমন কিছু খাবারের কথা বলেছেন যা শিশুদের খাওয়ালে ছোট বেলা থেকেই তাদের হাড় শক্তিশালী হবে ও বৃদ্ধি প্রাপ্ত হবে। আসুন জেনে নিই উচ্চতা বৃদ্ধি করবে এমন কিছু খাবারের সম্পর্কে:

১। দুধ:
দুধ একটু উচ্চ ক্যালসিয়াম সমৃদ্ধ খাবার। এটি শিশুদের হাড় গঠন করে ও তা বৃদ্ধি করতে সহায়তা করে। দুধের ভিটামিন ও ক্যালসিয়াম শরীরের ক্ষয় রোধ করে আপনার সন্তানের শরীরের কোষের বৃদ্ধি ঘটাতে সাহায্য করে, এটি প্রোটিন এর একটি খুব ভাল উৎস। প্রতিদিন দুধ পান করলে শিশুর উচ্চতা অনেকখানি বেড়ে যাবে।

২। তাজা ফলমূল ও শাকসবজি:
তাজা ফল ও শাকসবজি সবচেয়ে দ্রুত শিশুর বৃদ্ধি ঘটায়। এতে থাকে ফাইবার, ভিটামিন, পটাশিয়াম এবং ফলেটস যা শিশুর হাড় উন্নয়নে সহায়তা করবে। ভিটামিন এ আপনার সন্তানের হাড় এবং টিস্যু উন্নয়নে সাহায্য করবে। ভিটামিন এর ভালো কিছু উৎস হচ্ছে পেঁপে, গাজর, ফুলকপি, শাক, মিষ্টি আলু, আম, এবং তরমুজ ইত্যাদি।

৩। শস্যদানা:
শস্য শক্তির ভাণ্ডার। তারা ফাইবার, ভিটামিন, আয়রন, ম্যাগনেসিয়াম এবং সেলেনিয়াম এর একটি খুব ভাল উৎস। শস্য আপনার সন্তানের ক্রমবর্ধমান বৃদ্ধি ঘটাবে। গুরুত্বপূর্ণ যে ক্যালোরি সমৃদ্ধ শস্য গুলো হচ্ছে, বাদামী চাল, গোটা শস্য, ভুট্টা এবং গমের ফুড। এগুলো আপনার সন্তানের উচ্চতা বাড়াতে সাহায্য করবে।

৪। ওটমিল:
ওটমিল সন্তান-সন্ততির উচ্চতা বৃদ্ধির জন্য একটি অলৌকিক খাদ্য। এটা উদ্ভিদ প্রোটিন এর একটি খুব ভাল উৎস এবং পেশী বৃদ্ধি এবং চর্বি কমাতে সাহায্য করে।

৫। ডিম:
ডিমে প্রোটিন এবং ভিটামিন প্রচুর পরিমাণে রয়েছে। এর ফলে শরীরের বৃদ্ধি হয়ে থাকে এবং লম্বা হয়।

৬। আভাকাডো:
আভাকাডো দেহে বিভিন্ন পুষ্টি সরবরাহ করে। দুপুরে খাবারের সময় অর্ধেকটা আভাকাডো খেলে তা লম্বা হতে সহায়তা করে।

৭। স্যুপ:
স্যুপ স্বাস্থ্য উপযোগী একটি খাবার। স্যুপে রয়েছে ক্যালরি, যা খিদে বাড়িয়ে দেয়। অতিরিক্ত খাবার গ্রহণ কোষের বৃদ্ধি ঘটায়। যা লম্বা হতে সহায়তা করে।

৮। ডার্ক চকোলেট:
ডার্ক চকোলেট বাচ্চাদের লম্বা করতে সহায়তা করে। এতে থাকা ক্যালরি কোষ বৃদ্ধিতে সহায়তা করে ফলে বাচ্চারা লম্বা হয়ে ওঠে।

কমেন্টসমুহ
Secret Diary Secret Diary

Top