পুরুষের কাছে নারীরা কী চায়

নারীরা যে কী চায় তা ঈশ্বরও জানে না- বিশ্বের প্রায় সকল দেশের কোন না কোন মনীষীর এ সংক্রান্ত বাণী রয়েছে। অনেকেই মনে করেন নারীরা দামী শাড়ি, সোনা কিংবা হীরার অলংকার, ডালা ভর্তি উপহার  কিংবা বিদেশে ভ্রমণ করতে পছন্দ করেন। আবার অনেক পুরুষ বলেন ‘নারীর চাওয়ার শেষ নেই’। আদৌ কি তাই? সঙ্গী অভিনয় জগতের তারকা হোক, গৃহিনী হোক কিংবা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী হোক প্রতিটি নারীর চাওয়া কিন্তু একই।

সংবেদনশীল পুরুষেরা সব সময় নারীর পছন্দের শীর্ষে। আপনার নারী সঙ্গী হয়তো খুব তুচ্ছ কারণে হাউমাউ করে কান্না করছেন,তার কান্না দেখে আপনার প্রচণ্ড হাসি পাচ্ছে, তাই বলে তখন ভুলেও হাসতে যাবেন না।  হাসি চেপে রেখে চেষ্টা করুন তাকে টিস্যু পেপার এগিয়ে দিতে এবং তার মাথায় হাত বুলিয়ে দিতে।

নারীর প্রতি যত্নবান হোন । নারীরা যত্নবান পুরুষদের পছন্দ করেন। গাড়ি থেকে নামার সময় নারী সঙ্গীর দিতে হাতটা বাড়িয়ে দিন।  রাস্তা পার হওয়ার সময় সাবধানে রাস্তা পার করে দিন।  কিংবা কোনো রেস্টুরেন্টে খেতে গেছেন তার পছন্দকে মূল্যায়ন করুন।  এসব ছোটোখাটো বিষয়ে সে আপনার প্রতি দুর্বল হয়ে পড়বে।

নারীরা আন্তরিকতা পছন্দ করেন। নারীরা আন্তরিকতার কারণে সব সময় পুরুষ সঙ্গীর সঙ্গে থাকতে পছন্দ করেন এবং খোঁজখবর রাখতে পছন্দ করেন।  নারী সঙ্গীকে কিছুক্ষণ ফোন না দিলে তিনি নিজ থেকে ফোন করে জানতে চান, এখন  কি করছো, এতক্ষণ কোথায় ছিলে, কার সঙ্গে ছিলে। এসব কথা শুনে আপনার মনে হতে পারে নারী সঙ্গী কি আপনাকে সন্দেহ করছেন। আসলে কিন্তু তা নয়। তারা আন্তরিকতার কারণে পুরুষ সঙ্গীকে এসব কথা জিজ্ঞেস করেন। আপনি সম্পর্ক ভালো রাখতে আন্তরিকতার সঙ্গে এসব কথার উত্তর দিন। এবং তার খোঁজখবর রাখুন।

অতীতের প্রেম নিয়ে নারী সঙ্গীর সঙ্গে কথা বলতে যাবেন না।  কোনো কারণে আপনার সাবেক প্রেমিকার সঙ্গে আপনার দ্বন্দ্বের সৃষ্টি হয়েছিল এবং এক পর্যায়ে হয়তো ভেঙ্গে গেছে, তাই বলে বর্তমান প্রেমিকা কিংবা স্ত্রীর কাছে সাবেক প্রেমিকার দুর্নাম করতে যাবেন না। একইভাবে আপনার বর্তমান প্রেমিকার সাবেক প্রেমিককে নিয়ে কোনো কথা বলতে যাবেন না। এমনকি কখনও জানতে চাইবেন না কিভাবে তাদের সম্পর্কের ছেদ ঘটলো।

কাজ থেকে ফেরার পর অধিকাংশ পুরুষ নীরব থাকতে পছন্দ করেন। যা কিনা অধিকাংশ নারী তা পছন্দ করেন না। নারীরা চায় তার পুরুষ সঙ্গীর কাছে সারাদিনের ঘটে যাওয়া কথা খুলে বলতে এবং সঙ্গীর সারাদিনের রুটিন জানতে। নারী সঙ্গীর সঙ্গে মন খুলে কথা বলুন। শেয়ার করুন নিজের সারাদিনের কাজের কথা। দেখবেন সম্পর্ক মধুর হবে।

অধিকার খাটাতে গিয়ে বেশি জেরা করতে যাবেন না। কে ফোন করলো, কে এসএমএস করলো, কে ইমেইল এরকম অযাচিত প্রশ্ন করতে যাবেন না।

মানিব্যাগটি যথাসম্ভব তরতাজা রাখুন। আপনার সঙ্গীকে নিয়ে কোথাও ঘুরতে গেলে আপনার সামর্থ্য অনুযায়ী তাকে তার পছন্দের জিনিস কিনে দিন। অনেক ব্যয়বহুল হতে হবে এমন কিন্তু নয়। হতে পার নারী সঙ্গীর পছন্দের চকলেট, আইক্রিম, ফুল কিংবা কাচের চুড়ি।

বিশ্বস্ত এবং এক নারীতে সন্তুষ্ট এমন পুরুষদের পছন্দ করেন নারীরা। নারীরা  সম্পর্কের বিশ্বস্ততাকে টাকা, পয়সা অন্যান্য মূল্যবান সামগ্রীর চাইতে অনেক বেশি প্রাধান্য দেয়, যা অনেকেরই অজানা।

নারীরা স্টাইলিশ পুরুষ পছন্দ করেন। সময়ের সঙ্গে আপনার ব্যাক্তিত্বের সঙ্গে মানায় এমন পোশাক পরুন। ভালো ব্রান্ডের পারফিউম, বডি স্প্রে ব্যবহার করুন।

প্রশংসা শুনতে নারীরা পছন্দ করেন। তার রূপের, সাজের, কাজের, পোশাকের এমনকি রান্নার প্রশংসা করুন। সঙ্গীর বিশেষ দিন যেমন জন্মদিন কিংবা অন্যান্য বিশেষ  দিনে শুভেচ্ছা জানান। তাকে সারপ্রাইজ দিন। নারীরা কাজের মূল্যায়ন পেতে পছন্দ করে। অফিসে যাওয়ার সময় মানিব্যাগ, টাই এগিয়ে দিলে তাকে ধন্যবাদ দিন।

নারীরা সব সময় তার সঙ্গীর কাছ থেকে নিরাপত্তা আশা করেন। তাই বলে মান্না বা সাকিব খানের মতো মারামারি করতে হবে এমন নয়। যতটা সম্ভব আপনার সঙ্গীকে আগলে রাখুন।

কমেন্টসমুহ
Secret Diary Secret Diary

Top