বন্ধুত্ব কি চিরস্থায়ী? অন্তত টিনএজারদের ক্ষেত্রে নয়

টিনএজারদের চারিত্রিক বৈশিষ্ট্যের মিল না থাকলে তাদের বন্ধুত্ব চিরস্থায়ী নাও হতে পারে। নতুন এক গবেষণায় এ তথ্য দেওয়া হয়েছে।

আমেরিকার ফ্লোরিডা আটলান্টিক ইউনিভার্সিটির প্রফেসর ব্রেট লরসেন তার গবেষণায় বলেন, টিনএজারদের মধ্যে অমিল নানা ধরনের ব্যক্তিত্বের সংঘাত সৃষ্টি করে। এ কারণে তাদের বন্ধুত্ব স্থায়িত্ব পায় না। তবে বয়ঃসন্ধিকালের সময়টিতে তারা যাদের সঙ্গে মনের বহু মিল খুঁজে পান, তাদের সঙ্গে গাঢ় বন্ধুত্ব গড়ে ওঠে।

গবেষণায় ৪১০ জন টিনএজারকে পর্যবেক্ষণে রাখা হয়। এদের ৫৭৩টি বন্ধুত্বকে নমুনা হিসেবে গ্রহণ করা হয়। এরা সবাই সপ্তম থেকে বারোতম গ্রেডের শিক্ষার্থী।

দেখা গেছে, সপ্তম গ্রেডে বন্ধুত্ব গড়ে ওঠে এমন ক্ষেত্রে এক-চতুর্থাংশেরও কম বন্ধুত্ব স্কুলের পরবর্তী সময় পর্যন্ত টিকে ছিল। প্রতি ১০টি বন্ধুত্বের একটি টিকে থাকে মিড স্কুল থেক হাই স্কুল পর্যন্ত। সপ্তম গ্রেডে গড়ে ওঠা বন্ধুত্বের ১ শতাংশ বারোতম গ্রেড পর্যন্ত টিকে থাকে। তবে এসব বন্ধুত্বের বৈশিষ্ট্য লিঙ্গ, চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য, দৈহিক গঠন এবং প্রতিযোগিতার ওপর নির্ভর করে।

একই লিঙ্গের বন্ধুত্বের চেয়ে ভিন্ন লিঙ্গের বন্ধুত্ব ভেঙে যাওয়ার হার চারগুণ বেশি। এর পরই দৈহিক বৈশিষ্ট্য শক্তিশালী শর্ত হিসাবে কাজ করে। এ ক্ষেত্রে অন্যান্য ছেলে-মেয়েদের কাছে জনপ্রিয়তা এবং প্রতিযোগিতা বন্ধুত্ব টিকে থাকা বা ভেঙে যাওয়ার ওপর প্রভাব রাখে। এ দুই ক্ষেত্রে পার্থক্য যত বেশি হয়, বন্ধুত্ব ভেঙে যাওয়ার সম্ভাবনা ২৫-৪৩ শতাংশ বেড়ে যায়।

লরসেন বলেন, টিনএজাররা সাধারণত সমমনাদের বন্ধু হিবাবে ভাবতে পছন্দ করেন। এ গবেষণায়া বোঝা গেছে, কোন বিষয়গুলো তাদের মধ্যে পার্থক্যের সৃষ্টি করে। এ ছাড়া চলাফেরার ক্ষেত্রে পারস্পরিক অংশগ্রহণের ওপরও বন্ধুত্ব নির্ভর করে। যেমন- উচ্চবিত্ত কেউ যদি অধিকাংশ খরচ বহন করে এবং দরিদ্র পরিবারের কেউ যদি খরচের সামান্য অংশও বহন করতে না পারে, সে ক্ষেত্রে পার্থক্য সৃষ্টি হয়। পারস্পরিক সহযোগিতামূলক বন্ধুত্বের অভাব সৃষ্টি হয় এখানে। আর তাদের বন্ধুত্ব ভেঙে যাওয়ার সম্ভাবনা খুব বেশি।

কমেন্টসমুহ
Secret Diary Secret Diary

Top