সঙ্গীতেই মিলবে রোগের মুক্তি

সুস্থ ও সুন্দর মনন সৃষ্টিতে সঙ্গীতের প্রভাব অপরিসীম তা আমরা জানি। সঙ্গীত যেভাবে মানুষকে আকর্ষণ করে অন্য কোন কিছুই তা পারেনা। সঙ্গীতে মানুষ সিক্ত হয়, আন্দোলিত হয়, বেদনার্ত হয়। সঙ্গীত আমাদের মস্তিস্কের আবেগের অংশকে উদ্বেলিত করে। প্রতিদিনের কাজের চাপে যখন আমরা ক্লান্ত-বিষণ্ণ হয়ে পড়ি তখন সঙ্গীতেই মেলে মুক্তি। তবে নতুন তথ্য হচ্ছে সঙ্গীত শুধু আমাদের ক্লান্তি-ই দূর করেনা বরং জটিল রোগ থেকেও সারিয়ে তোলে। তেমনি একটি রোগ হচ্ছে মৃগী রোগ। মৃগী রোগের চিকিৎসায় প্রথাগত চিকিৎসার পাশাপাশি সঙ্গীত একটি কার্যকর চিকিৎসা হতে পারে। নতুন এক গবেষণায় এ তথ্য উঠে এসেছে।

যুক্তরাষ্ট্রের দ্য ওহিও স্টেট ইউনিভার্সিটির স্নায়ুবিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ক্রিস্টিন ক্যারিটন এর নেতৃত্বে একদল গবেষক গবেষণাটি করেন। যুক্তরাষ্ট্রের মেডিকেল সেন্টারে ২১ জন মৃগী রোগীর উপর গবেষণা চালিয়ে তারা দেখেছেন যে গান শোনার পরে মৃগী রোগীদের মস্তিস্ক সুস্থ মানুষের চেয়ে ভিন্ন ভাবে সাড়া দেয়।

গবেষকরা বলছেন, বেশির ভাগ মানুষ সাধারণত অস্থায়ী মৃগীরোগে ভুগে থাকেন। সঙ্গীতে যা অনেকটাই সেরে যায়। গান শোনার পরে তাদের মস্তিস্কের তরঙ্গ প্রবাহে পরিবর্তন আসে। মৃগীরোগের প্রচলিত চিকিৎসা চলাকালে রোগীদের গান শুনিয়ে ইতিবাচক এই প্রভাব আবিষ্কার করেছেন বলে তাদের দাবি।

টরেন্টোতে আমেরিকান সাইকোলজিকেল অ্যাসোসিয়েশন এর ১২৩তম বার্ষিক সম্মেলনে গবেষণাটি উপস্থাপন করা হয়। এছাড়াও সঙ্গীত হারানো স্মৃতি ফিরে পেতে কার্যকর ভূমিকা রাখে। গবেষণায় দেখা গেছে, গান শোনার ফলে দুই প্রজন্মের পুরনো স্মৃতি অনেক বৃদ্ধ লোক মনে করতে পারেন, যার ফলে কিছুক্ষণের জন্যে তিনি হারিয়ে যেতে পারেন মধুর শৈশবে। গানের সুর, ছন্দ ও কথাই এর কারণ।

কমেন্টসমুহ
Secret Diary Secret Diary

Top