ব্যাথা কমায় সঙ্গীত

মন ভালো করতে সঙ্গীতের জুড়ি নেই। কিন্তু আপনি কি জানেন, সার্জারির কষ্ট কমাতেও ভূমিকা রাখতে পারে সঙ্গীত?

যেনতেন শারীরিক কষ্ট নয়, সার্জারির আগে, সার্জারির সময় এবং সার্জারির পরে রোগীর কষ্ট কমাতে সাহায্য করে সঙ্গীত। শুধু তাই নয়, সার্জারি নিয়ে দুশ্চিন্তা এবং পেইনকিলার খাওয়ার প্রয়োজনও কমায় তা।

সাত হাজার রোগীর থেকে প্রমাণ সংগ্রহ করার পর গবেষকেরা মত দিচ্ছেন, সার্জারির সময় কী সঙ্গীত শুনবেন তা ঠিক করার সুযোগ দেওয়া উচিত রোগীকে। তবে তারা এটাও বলেন যে সার্জারির সময়ে যেন এই সঙ্গীত ডাক্তারদের কাজে ব্যাঘাত না ঘটায়। সার্জারির সময়ে রোগীকে স্বাচ্ছন্দ্যে রাখার জন্য এভাবে সঙ্গীত ব্যবহার করাটা সহজ এবং নিরাপদ একটি উপায়।

সঙ্গীত এবং চিকিৎসা সম্পর্কিত যত গবেষণা আছে সেসব বিশ্লেষণ করে দেখা হয় এই গবেষণায়। The Lancet জার্নালে প্রকাশিত এই গবেষণায় দেখা যায়, গান শোনার পর সার্জারিতে গেলে রোগীরা দুশ্চিন্তায় কম ভোগেন এবং সার্জারির ব্যাপারে বেশি সন্তুষ্ট থাকেন। এ ছাড়া তাদের ব্যাথাও কম হতে দেখা যায়, ফলে কম পরিমাণে পেইনকিলার প্রয়োজন হয় তাদের।

যদিও সার্জারির সময়ে, আগে এবং পরে এই তিন সময়েই সঙ্গীত উপকারে আসে, তবে এটাও দেখা যায় যে সার্জারির আগে গান শুনলে বেশি উপকৃত হন রোগী। নিজেদের পছন্দের সঙ্গীত শোনার ক্ষেত্রে তাদের ব্যাথা কম হয়ে থাকে। ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেলের সময় থেকেই গবেষকেরা জানেন রোগীকে মানসিক শান্তি দেয় এবং ব্যাথা কমায় সঙ্গীত। কিন্তু এই গবেষণা বৈজ্ঞানিকভাবে তা প্রমাণ করে।

আরও বিশদভাবে এই প্রভাব পরীক্ষা করার জন্য সংশ্লিষ্ট গবেষকেরা রয়াল লন্ডন হসপিটালে সিজারিয়ান সেকশন এবং হিস্টেরোস্কোপি সার্জারি রোগীদেরকে সঙ্গীত শোনানোর কথা ভাবছেন। রোগীদের থেকে তাদের পছন্দের প্লেলিস্ট সংগ্রহ করা হবে এবং তাদের বালিশের সাথে লাগানো একটি ইনবিল্ট লাউডস্পিকারের মাধ্যমে সেই গান তাদেরকে শোনানো হবে।

মূল: Study: Listening to music before, during, and after surgery reduces the need for painkiller by Kate Kelland, Reuters
ফটো ক্রেডিট: news.yahoo.com

কমেন্টসমুহ
Secret Diary Secret Diary

Top