যেসব ভুল আচরণে নিজের অজান্তেই সন্তানের সাথে বাড়ছে আপনার দূরত্ব

একটি শিশু পৃথিবীতে আসে মা বাবার ভালবাসাকে সাথী করে। যতই সে বড় হয় ততই মা বাবার মনে প্রশ্নের উদ্রেক হতে থাকে, তারা কি ঠিকভাবে সন্তানকে মানুষ করতে পারছেন? মা বাবা অবশ্য বুঝতে পারেন না, তাদের কিছু ভুলের কারণেই ছোট্ট সন্তানটি তাদের কাছ থেকে বহু দূরে সরে যাচ্ছে। মা বাবা সন্তানের আচরণ নিয়ে উদ্বিগ্ন থাকেন, কিন্তু নিজের আচরণের ভুল ত্রুটি ধরতে পারেন না। এমন কিছু বিষয় আছে যা কখনই সন্তানের সাথে করা উচিত না। মিলিয়ে দেখুন এই ভুলগুলো আপনিও করছেন কি না!

অন্যের রাগ সন্তানের ওপর দেখানো

আপনি সন্তানের বাবা। আপনি বেশ রাত করে বাসায় ফেরেন। আপনার ছোট্ট সন্তানটি রাত জেগে আপনার জন্য অপেক্ষা করে। কিন্তু এদিকে বসের বকাঝকা বা কলিগের কোন আচরণে আপনার মাথায় রক্ত চড়ে আছে। তাই বাসায় ঢুকে মাথা ঠাণ্ডা করার জন্য ছোট বাচ্চাটাকে বেছে নিলেন। তাকে অযাথা বকাঝকা শুরু করলেন, একটা চড়ও কষিয়ে দিলেন। এতে ফলাফল কী হবে জানেন? আপনার সন্তান ধীরে ধীরে আপনার কাছ থেকে দূরে সরে যেতে থাকবে। হয়ত কিছুদিন পর দেখবেন আপনি অফিস থেকে আসার আগেই সে ঘুমিয়ে পড়েছে। তাই আজই এ বাজে অভ্যাস ঝেড়ে ফেলুন।

অন্যের সন্তানের সাথে নিজের সন্তানের তুলনা

এ কাজটা মা বাবারা প্রায়ই করেন। ‘অমুকের ছেলে এটা পারে, অমুকের মেয়ে পরীক্ষায় ফাস্ট হয়েছে, কিন্তু তুমি কী করেছ?’ এমন অনেক প্রশ্ন প্রায়ই মা বাবা ছোট সন্তানের উদ্দেশ্যে ছুঁড়ে দেন। আপনি বুঝতে পারেন না, কিন্তু আপনার সন্তান ঠিকই হীনমন্যতায় ভোগে। তার কাছে মনে হতে থাকে সে এই পৃথিবীর জন্য অযোগ্য। তাই নিজের সন্তানের ভালো দিকগুলো খুঁজে বের করুন, তাকে উৎসাহ দিন। সবাইকে আইনস্টাইন বানানোর প্রয়োজন নেই, কাউকে মার্ক জুকারবার্গ বা বিল গেটস হওয়ারও সুযোগ দিন।

কোন সন্তানকে বেশি প্রাধান্য দেওয়া

অনেকেরই পিঠাপিঠি ভাইবোন থাকে। কিন্তু বড় ভাই হঠাৎ অবাক হয়ে লক্ষ্য করে মা বাবার সকল টান, ভালোবাসা যেন ছোট বোনটিকে ঘিরে। মায়ের যে চুমুটা খেয়ে সে প্রতি রাতে ঘুমিয়ে পড়ত বা বাবার যে গল্প শুনে তার চোখে খেলা করত স্বপ্নের ঝিলিক, সেগুলো এখন শুধুই ছোট বোনটির। মা বাবা এমন আচরণ করলে বড় সন্তানটির খুবই খারাপ প্রভাব পড়ে। একটা সময় গিয়ে দেখবেন সে তার ছোট ভাই বা বোনকে সহ্যই করতে পারছে না এবং এই কষ্টটা তাকে সারাজীবন বহন করতে হবে। তাই শুধু নতুন অতিথিকে না, পুরাতন অতিথিকেও যত্ন করতে শিখুন।

সন্তানের সামনে ঝগড়া করা

এই বিষয়টি একটা ছোট বাচ্চার ওপর কী প্রভাব ফেলে মা বাবা বুঝতে পারবেন না। যখন মা বাবা দাঁত কিড়মিড় করে ঝগড়া করে, যখন তাদের মুখের গরম কথাবার্তাগুলো হাতাহাতিতে রূপ নেয়, তখন ছোট্ট সন্তানটি বড্ড অসহায় হয়ে পড়ে। সে তখন নিরাপত্তাহীনতায় ভোগে। মা বাবার প্রতি তার শ্রদ্ধাবোধও অনেক কমে যায়। চিন্তা করে দেখুন তো আপনি তার প্রিয় মাকে কুৎসিত গালি দিচ্ছেন বা আপনি তার প্রিয় বাবাকে বালিশ ছুঁড়ে মারছেন, বিষয়টা কি আদৌ মেনে নেওয়া যায়? তাই সন্তানের সামনে আর ঝগড়া নয়।

স্বাধীনতা অর্জনের চেয়ে যেমন রক্ষা করা কঠিন, ঠিক তেমনি সন্তান জন্ম দেওয়ার চেয়ে মা বাবা হওয়া কঠিন। সন্তান মানুষ করার কোন ধরাবাঁধা কোর্স নেই, তবে নিজের বিবেক, বুদ্ধি এবং শ্রদ্ধাবোধ দিয়ে তাকে বড় করে তোলার চেষ্টা করলে আর কোন ঝামেলা থাকে না। হ্যাঁ, মানুষ হিসাবে ওই ছোট্ট বাচ্চাটিরও কিন্তু শ্রদ্ধা পাওয়ার অধিকার আছে।

সূত্র
বিউটি মান্ত্রা ও ওম্যান’স ডে

কমেন্টসমুহ
Secret Diary Secret Diary

Top