আপনার জীবনের যে “গুরুত্বপূর্ণ” ব্যাপারগুলো বাস্তবে ভীষণ মূল্যহীন!

ছোট্ট এই জীবনে কত কিছুকেই তো ভীষণ মূল্য দিয়ে থাকি আমরা। নিজের পরিবার আর ক্যারিয়ার থেকে শুরু করে সুন্দর চেহারা, অর্থবিত্ত, এমনকি নিজের ফেসবুক আইডিটি নিয়ে পর্যন্ত আমাদের অহংকারের সীমা নেই। কিন্তু আপনার জীবনের এইসব “গুরুত্বপূর্ণ” বিষয় কি আসলেই গুরুত্বপূর্ণ? বাস্তব জীবনে কি এগুলোর আদৌ কোন মূল্য আছে? জানতে চাইলে পড়ে দেখুন এই লেখাটি, জীবন সম্পর্কে আপনার ধারণা আগাগোড়া বদলে যাবে!

১) আজকাল অনেকেরই জীবনের ভীষণ গুরুত্বপূর্ণ অংশ হয়ে দাঁড়িয়েছে ফেসবুক। দিনের অনেকটা সময় ফেসবুকে না কাটালে দিন সম্পূর্ণ হয় না, ফেসবুককে কেন্দ্র করে গ্রুপিং থেকে শুরু করে মারামারি-কাটাকাটি হওয়াও বিচিত্র কিছু না। জেনে রাখুন, ভার্চুয়াল এই জগতকে এতটা গুরুত্ব দিয়ে নিজেকে আসলে বাস্তবতা থেকে অনেক দূরে নিয়ে যাচ্ছেন আপনি। ফেসবুকে সেলিব্রেটি মানেই আপনি বাস্তবেও বড় মানুষ, এমনটা ভাবার ভুল করতে যাবেন না একেবারেই।

২) বিয়ে করার সময় প্রত্যেক মানুষই ধনী পরিবার ও সুন্দর চেহারার মানুষ খোঁজেন। ধুমধাম করে বিয়ে না হলে আজকাল ইজ্জত থাকে না। লক্ষ লক্ষ টাকা খরচ করে ওয়েডিং ফটোগ্রাফি, পোশাক-আশাক ইত্যাদি কিন্ত দাম্পত্যে সুখ আনে না। যদি আনত, তাহলে পৃথিবীতে সবাই-ই সুখী হতো।

৩) স্কুল, কলেজ বা ভার্সিটিতে অনেক জনপ্রিয় আপনি? কিংবা ফেসবুকে সেলিব্রেটি স্ট্যাটাস দাতা, গ্রুপে গ্রুপে অনেক জনপ্রিয়তা আপনার? জেনে রাখন, এই ঠুনকো জনপ্রিয়তে বাস্তবতার কঠোরতার সামনে কোন কাজেই আসবে না আপনার।

৪) অতীত এমন একটা জিনিস, যাকে বদলে ফেলার কোন উপায় নেই। তাই মূল্যবান ভেবে যে অতীতকে আঁকড়ে ধরে বসে আছেন, বাস্তব জীবনে সেগুলো আসলে চরম মূল্যহীন। বর্তমানকে আঁকড়ে ধরে ভবিষ্যতের স্বপ্ন নিয়ে বাঁচাই বুদ্ধিমানের কাজ।

৫) অসংখ্য বন্ধু আপনার, বন্ধুদের জন্য জীবনও দিতে পারেন? জেনে রাখুন, সত্যিকারের বন্ধু হয় জীবনে খুব কম মানুষ। বন্ধুত্ব নিয়ে যতই বড় বড় কথা বলি না কেন আমরা, বাস্তব জীবনে বন্ধুত্বই সবার আগে হারিয়ে যায়।

৬) প্রেম বা ভালোবাসা নিয়ে মহান গল্প-গাঁথার কোন অভাব নেই। কিন্তু বাস্তবতা এটাই যে আর্থিক সচ্ছলতা বা অন্য কোন অসুবিধার সামনে প্রেম-ভালোবাসা শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করতে সময় নেয় না। পৃথিবীতে মানুষ সবচাইতে বেশী ভালোবাসে নিজেকেই আর এটাই সবচাইতে বড় সত্য।

৭) আপনি দেখতে কেমন, মোটা না চিকন, ভালো না খারাপ, কালো না ফর্সা ইত্যাদিতে আসলে কিছুই যায় আসে না। যদিও আমরা মানুষেরা নিজেদের মাঝে বিভেদ করি এই চেহারা আর লিঙ্গ দিয়েই। কিন্তু একটা নির্দিষ্ট বয়সের পর আপনি নিজে থেকেই বুঝে যাবেন যে সুস্থ ভাবে বেঁচে থাকতে পারাটাই আসলে সবচাইতে জরুরী। সূত্র- বিউটি মান্ত্রা

কমেন্টসমুহ
Secret Diary Secret Diary

Top