ঈদের দিনে ঘরের সাজ

ঈদের বাকি মাত্র কটা দিন। নিজের সাজ সজ্জার জিনিস কেনার সঙ্গে গৃহসজ্জার কথাও মাথায় রাখা চাই। বাড়িতে আগত অতিথিদের কাছে আপনার রুচি প্রকাশের জন্য ঘরের সাজ অন্যতম একটি মাধ্যম। তাই ঈদের কয়েক দিন আগে থেকেই ঘর সাজানোর প্রস্তুতি নিতে হবে। কারণ, সামান্য কৌশলে ঘরের সাজে ব্যবহৃত পুরোনো আসবাব ছড়াবে নতুনের আবেশ। সেজন্য-

ঘরের দেয়ালে বা আসবাবের আড়ালে থাকা ঝুল, ফ্যান, টিউবলাইট ব্যাকবার পরিস্কার করে নিতে হবে। বিছানার চাদর, কুশন কভার, বালিশের কভার ধুয়ে পরিষ্কার করতে একদমই ভোলা যাবে না। এগুলো ধুয়ে আয়রন করে নিলেও নতুনের আবেশ ছড়াবে। তবে ঘরের লুকে সম্পূর্ণ নতুনত্ব আনতে পছন্দের বিছানার চাদর, পর্দা, কুশন কভার কিনে নিতে পারেন। ব্যবহৃত আসবাবের অবস্থান পরিবর্তন না করেও এগুলো ব্যবহারে ঘরে যোগ করতে পারেন ভিন্ন মাত্রা।

পুরোনো ঘরে নতুনের মতো ঝকঝকে মেঝে পেতে ডিটারজেন্ট কিংবা লিকুইড ক্লিনার দিয়ে পরিষ্কার করতে পারেন। পরিষ্কার করতে হবে ডাইনিং টেবিলসংলগ্ন চেয়ার, ওয়্যারড্রোবের নতুন-পুরাতন কাপড়সহ ঘরের আসবাব পত্রের সব। বাড়ির সবচেয়ে প্রয়োজনীয় জায়গা বাথরুমে ফ্রেশ লুক দিতে রাখতে হবে এয়ার ফ্রেশনার। সাবান, হ্যান্ডওয়াস, ঝকঝকে বাতি, চকচকে আয়না এবং পরিষ্কার টাওয়েলও রাখা চাই বাথরুমে। বাথরুমের কর্ণার খালি থাকলে সেখানে স্থান করে নিতে পারে ছোট্ট গাছের টব। এতে বাথরুমের পরিবেশ অনেক ফ্রেশ থাকবে।

ঘরের সাজে পর্যাপ্ত আলো-বাতাস চলাচলের ব্যবস্থা থাকা জরুরি। ডাইনিং টেবিল পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার পাশাপাশি টেবিলের কভারটা সাদা বা হালকা উজ্জ্বল রঙের হলে ভালো হয়। এতে খাবার পরিবেশনের পাত্রগুলো উজ্জ্বল দেখাবে। ঈদের দিন আপ্যায়নের সময় যাতে কোনো কিছু খুঁজতে না হয়, সেজন্য চামচ, প্লেট, কাপ, পিরিচসহ প্রয়োজনীয় সব গুছিয়ে রাখতে হবে টেবিলের ওপরই। পছন্দসই টেবিলম্যাট, গ্লাসস্ট্যান্ড, টিস্যু পেপার বক্স রাখতে পারেন ডাইনিং টেবিলের মাঝামাঝিতে। ডাইনিং কভারের ওপর অ্যামব্রয়ডারি বা প্রিন্ট থাকতে পারে। ডাইনিং টেবিলের ওপর রাখা যেতে পারে কিছু তাজা ফুল। খাবারের সময় তাজা ফুলের মধুময় গন্ধে মনে লাগবে স্নিগ্ধতার পরশ।

বেডরুমে ঘনিষ্ঠ অতিথিরা যাবে না তাই কি হয়? তাছাড়াও নিজের ভালোলাগার জন্য বেডরুমটার সাজ প্রয়োজন। পর্দার রঙের সঙ্গে মিল রেখে বেড কভারগুলো ব্যবহার করতে পারেন। পছন্দের লাইটের ব্যবস্থাও করা যেতে পারে। খাটের পাশে স্ট্যান্ড লাইট থাকতে পারে। ড্রেসিং টেবিলের দুই পাশে দুটি ছোট ফুলদানি রেখে দিতে পারেন। ঘরের চেহারাটাই পাল্টে যাবে।

বারান্দায় বসার জায়গা থাকলে সেখানে লো হাইট বা নিচু বসার আসবাবপত্র বেছে নিতে পারেন। বারান্দার চারপাশে রাখতে পারেন হরেক রকম গাছ। বারান্দা একটু বড় হলে দোলনাও রাখা যেতে পারে। সিঁড়িতে ঢোকার আগে সাইড দেয়ালে একটা আয়না রাখলে অন্য রকম অনুভূতি আসবে। অতিথিসহ যে কেউ ঘরে ওঠার সময় নিজেকে ভালোভাবে দেখে নিতে পারেন।

ঘরের বুকশেলফটি বসার ঘরের যেকোনো স্থানে রাখতে পারেন। পাশাপাশি টবে সবুজ গাছ রাখলে তা অন্য রকম আবেদন সৃষ্টি করবে। ঈদের আগের রাতে কেনা তাজা ফুল দিয়ে সাজানো যেতে পারেন আপনার ঘরের কোণ। সম্ভব হলে পুরো বাড়িতে নতুন রঙ করে নিতে পারেন। ঘরের আসবাব নতুন বার্নিশ করতে পারলে ভালো হয়। ফুলের টব, কার্পেট, রঙ করলে পুরনো জিনিসে পাবেন নতুনের আবেশ।

কমেন্টসমুহ
Secret Diary Secret Diary

Top