যে ৫ টি কারণে কিছুটা স্বার্থপরতা আপনার সম্পর্কের জন্য ভালো

স্বার্থপর মানুষ কেউই পছন্দ করেন না। কিন্তু নিজের মধ্যে যে স্বার্থপরতা রয়েছে তা অনেকেই স্বীকার করতে চান না। কারণ হতে পারে তিনি স্বার্থপরের মতো যে কাজগুলো করেন তা হয়তো তার চোখে স্বার্থপরতা নয়। অন্য যে মানুষটি দেখছেন তার চোখে হয়তো সেটিই স্বার্থপরতা। সুতরাং একেকজনের কাছে এই স্বার্থপরতার বিষয়টি একেক রকম।

সকলের মতেই ভালোবাসার সম্পর্কে স্বার্থপরতা একেবারেই বেমানান। সম্পর্কে শুধুমাত্র দুপক্ষের ছাড় দেয়ার মনোভাব এবং ত্যাগ করার বিষয়টিই প্রাধান্য পায় অনেকের কাছে। স্বার্থপর মানুষেরা সম্পর্ক করতে জানেন না এবং সম্পর্ক টিকিয়ে রাখতে পারেন না বলেই জানেন অনেকে। কিন্তু জানেন কি, কিছু কিছু বিষয়ে একটু স্বার্থপরতা আপনার এবং আপনার সম্পর্কের জন্য অনেক ভালো? সম্পর্ক টিকিয়ে রাখতে এবং সঠিকভাবে এগিয়ে নিতে হলে কিছুটা স্বার্থপর হওয়ার প্রয়োজন রয়েছে।

১) স্বার্থপরতা মানেই শুধু নিজের সুবিধা দেখা নয়

ধরুন আপনি নিজের একটি ক্যারিয়ার গড়তে চান যা আপনার সম্পর্কের বর্তমান অবস্থাতে একটু সমস্যার সৃষ্টি করছে, আপনি তখন কি করবেন? একটু স্বার্থপর তো হতেই হবে। আপনার ক্যারিয়ার কি শুধু আপনার জন্যই? না, আপনার ক্যারিয়ার আপনার সম্পর্কের ভবিষ্যতের ভালোর জন্য, সম্পর্কে আপনার নিজের সম্মানের জন্য। সুতরাং এসকল ক্ষেত্রে একটু স্বার্থপর হওয়া ভালো। তবে এই স্বার্থপর চিন্তার সাথে সাথে ভালোবাসার মানুষটিকে বোঝানোর ক্ষমতাও তৈরি করে ফেলুন নিজের মধ্যে।

২) অন্যের বিষয়ের আগে নিজের কিছু বিষয় ভাবা স্বার্থপরতা নয়

সম্পর্কে থাকলে ভালোবাসার মানুষটি আপনার কাছে অনেক গুরুত্বপূর্ণ হন তা খুবই স্বাভাবিক। কিন্তু, সম্পর্কে আপনার স্থানটিও বেশ গুরুত্বপূর্ণ তা ভুলে যাবেন না। আপনি যদি সবই তার ইচ্ছে মতো করেন তাহলে সম্পর্কে আপনার স্থানটি আপনি নিজেই নষ্ট করে ফেলছেন। পরবর্তীতে আপনার সঙ্গীও কিন্তু ভেবে বসবেন আপনি শুধুই তার সিদ্ধান্তের উপর নির্ভরশীল এবং অনেকেই নির্ভরশীল মানুষের সাথে জীবন কাটাতে চান না। সুতরাং আপনার কিছু বিষয় সঙ্গীর সামনে আনুন। সঙ্গীর সব মতামতে হ্যাঁ বলে দেয়ার কোনো অর্থ নেই, আপনার নিজস্ব কিছু বলার থাকলে তা বলে দিন। এই ধরণের একটু স্বার্থপরতা আপনার সম্পর্কটি রক্ষা করবে।

৩) অতিরিক্ত কিছু হতে দেখলে তা বন্ধ করা স্বার্থপরতা নয়

আপনার ভালোবাসার মানুষটি খুব আপন করে আপনাকে পেতে চান যা আপনার জন্য একেবারেই সম্ভব নয়, কিন্তু আপনি ভাবলেন আপনাদের সম্পর্কের কি হবে, তা ভেবে মেনে নিলেন তার অন্যায় এবং অতিরিক্ত আবদার। এক্ষেত্রে ভুলটি কিন্তু আপনিই করছেন। আপনাদের অতিরিক্ত ঘনিষ্ঠ হওয়াও কি সম্পর্কের জন্য ভালো? সুতরাং এসব ক্ষেত্রেও একটু স্বার্থপরতা আপনার সম্পর্কের জন্য ভালো। আপনি অন্তত বুঝতে পারবেন আপনার সঙ্গী আপনাকে কোন চোখে দেখেন এবং আপনার না বলাটা তিনি কীভাবে নিয়েছেন।

৪) মাঝে মাঝে নিজের জন্য কিছুটা সময় বের করা স্বার্থপরতা হলেও সম্পর্কের জন্য ভালো

ধরুন প্রতিদিনের রুটিন আপনার কাছে অসহ্য লাগা শুরু হয়েছে, আপনি তখন কি করেন? অবশ্যই একটু ভিন্ন ধর্মী কিছু করেন। সম্পর্কের ক্ষেত্রেও ব্যাপারটি সেধরনেরই। আপনি প্রতিদিন তার সাথে ঘণ্টার পর ঘণ্টা সময় কাটিয়ে একটু একঘেয়েমিতে আছেন। তাহলে আপনার উচিত হবে একটু স্বার্থপর হয়ে নিজের জন্য সময় বের করে নেয়া। এতে করে কেটে যাবে আপনার একঘেয়েমি। সম্পর্কটি কিন্তু মধুরও করতে পারেন এই স্বার্থপরতা দিয়ে।

৫) ভুল মানুষটিকে ছেড়ে দেয়ার স্বার্থপরতা কিন্তু খারাপ কিছু নয়

সম্পর্কে থাকার পর দেখতে পাচ্ছেন আপনি একজন ভুল মানুষের সাথে সম্পর্ক করেছেন তখন কি করবেন? তখনও কি নিজের দুঃখকে মেনে নিয়ে সেই ভুল মানুষটি এবং একটি বিষাক্ত সম্পর্ক টেনে নিয়ে চলবেন? তাতে কি লাভ হবে? কিছুই নয়। বরং একটু স্বার্থপরতা দেখানো উচিত এক্ষেত্রেও। আপনি অন্তত একটু সুখে থাকতে পারবেন বিষাক্ত সম্পর্ক থেকে বেড়িয়ে। এবং সেই মানুষটিও খুঁজে নিতে পারবেন অন্য আরেকজনকে। বিষাক্ত সম্পর্ক টেনে নিয়ে দুজনের মধ্যে বিষ নিয়ে বসে থাকার কোনো অর্থই নেই। যেতে দিন তাকে। ভালো থাকবে আপনাদের মধ্যকার সুন্দর মুহূর্তগুলো এবং আপনারাও।

সূত্রঃ এলিটডেইলি

 

কমেন্টসমুহ
Secret Diary Secret Diary

Top