সৌন্দর্যের প্রথম ধাপ

যতই হোক প্রসাধনের ব্যবহার, সুস্থ ও সুন্দর থাকতে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা বজায় রাখতেই হবে। অপরিচ্ছন্ন ত্বকে মানাবে না মেকআপ, অপরিষ্কার চুল ভালো দেখাবে না কোনো স্টাইলেই। তাই নিজের জন্য চাই একটু সময়।
হারমনি স্পার আয়ুর্বেদিক রূপবিশেষজ্ঞ রাহিমা সুলতানা বলেন, ‘শরীর ও মনের পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতাই সৌন্দর্যের প্রথম কথা। তবে সে জন্য প্রতিদিন উপটান বা ফেসপ্যাক লাগাবার প্রয়োজন নেই।’ নিয়মিত যত্নে কিছু নিয়ম জানিয়ে দিলেন তিনি।

মুখ ধোয়া
সারা দিনের ঘাম আর ধুলা-ময়লায় মুখের ত্বক হয়ে পড়ে চিটচিটে। এমন অবস্থায় মুখ ধুয়ে নিতে হবে। রাহিমা সুলতানা বলেন, যখন প্রয়োজন মনে হবে, তখন মুখ ধুলেই হবে। পরিষ্কার থাকতে হলে যে একটু পরপরই মুখ ধুতে হবে, এমন কোনো কথা নেই।
ফেসওয়াশ ব্যবহার প্রসঙ্গে সোনালী’স এইচডি মেকআপ স্টুডিওর রূপবিশেষজ্ঞ সোনালী ফেরদৌসী মজুমদার বলেন, যাঁদের ত্বক শুষ্ক প্রকৃতির, তাঁদের জন্য প্রতিদিন রাতে একবার ফেসওয়াশ ব্যবহার করা ভালো। আর যাঁদের ত্বক একটু তৈলাক্ত ধরনের, তাঁরা সারা দিনে দুবার ফেসওয়াশ ব্যবহার করতে পারেন। মাঝেমধ্যে পারলারে গিয়ে ফেসিয়াল করাতে পারেন।
কেউ কেউ মুখে সাবান ব্যবহার করেন। রাহিমা সুলতানা জানালেন, গ্লিসারিনযুক্ত সাবান মুখে লাগানো যেতে পারে।
নেই বিকল্প
রাহিমা সুলতানা বলেন, প্রতিদিন সকালে গোসল করে নেওয়া উচিত। গোসলের পর অবশ্যই চুল ভালোভাবে মুছে নিতে হবে। ভেজা চুল আঁচড়ানো ঠিক নয়। চুলের ফাঁকে ফাঁকে আঙুল চালানো যেতে পারে। তবে হেয়ার ড্রায়ার ব্যবহার করা ঠিক নয় একদমই। চাইলে সব কাজের শেষে রাতেও আর একবার গোসল করা যেতে পারে। গোসলের পর শরীরে লোশন লাগানো উচিত।
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের চর্মরোগ বিভাগের অধ্যাপক মুনীর রশিদ জানান, প্রতিদিন গোসলের সময় কসমেটিক সাবান লাগানো যেতে পারে। তবে সাবান লাগালে যাঁদের চুলকানি হয় অথবা যাঁদের অ্যাটোপিক ডার্মাটাইটিস নামক রোগ আছে, তাঁদের প্রতিদিন সাবান লাগানো উচিত নয়। এ ছাড়া কোনো রোগের কারণে যাঁরা ওষুধযুক্ত সাবান ব্যবহার করেন, তাঁদেরও প্রতিদিন সাবান ব্যবহার করা অনুচিত।
ত্বক শুষ্ক প্রকৃতির হলে সপ্তাহে তিন দিন সাবান লাগাতে পারেন। শুষ্ক ত্বকে সাবান ব্যবহারের পর অবশ্যই ময়েশ্চারাইজার লাগাতে হবে। ত্বকের ধরন বুঝে সাবান বেছে নিন।
হাতের জন্য একটু সময়
সোনালী ফেরদৌসী মজুমদার বলেন, ছোট বা বড় যেমন আকারের নখই হোক না কেন, নখ পরিষ্কার রাখাটা জরুরি। নেইলকাটার দিয়ে নখ কেটে নিয়ে ফাইলার দিয়ে ফাইল করে রাখা যেতে পারে। ব্রাশে সাবান লাগিয়ে নিয়ে ব্রাশের সাহায্যে হাত পরিষ্কার করা যেতে পারে।
নখের হলদে দাগ দূর করতে কয়েক দিন নখে নিয়মিত লেবু ঘষার পরামর্শ দিলেন তিনি। কিউটিকল-কাটার দিয়ে নখের পাশের বাড়তি চামড়া (কিউটিকল) কেটে ফেলতে পারেন। তবে খেয়াল রাখতে হবে, কিউটিকল কাটতে গিয়ে যেন জোরে টান লেগে না যায়। বাফার আর শাইনার ব্যবহার করলে নখে আসবে চকচককে ভাব। এ ছাড়া ম্যানিকিওর করানো যেতে পারে।
পরিচ্ছন্ন পায়ের জন্য
পায়ের নখ ছোট করে কেটে পরিষ্কার রাখার পরামর্শ দিলেন সোনালী ফেরদৌসী মজুমদার। পায়ের ত্বক মসৃণ রাখতে প্রতিদিন রাতে পায়ে পেট্রেলিয়াম জেলি লাগাতে হবে। সকালে উঠে পা আবার পরিষ্কার করে নেওয়া উচিত। মাসে অন্তত দুবার পেডিকিওর করানো ভালো।
সপ্তাহে এক দিন ঝামা পাথরের সাহায্যে পা ঘষে নেওয়ার পরামর্শ দিলেন রূপবিশেষজ্ঞরা। এভাবে পা পরিষ্কার করার পর পেট্রেলিয়াম জেলি লাগানো উচিত। ব্রাশে সাবান বা শ্যাম্পু লাগিয়ে প্রতিদিন পা পরিষ্কার করার পরামর্শ দিলেন রাহিমা সুলতানা।
স্ক্রাবিং করতে হলে
রাহিমা সুলতানা বলেন, ১৫ দিন অন্তর মুখে স্ক্রাবিং করা যেতে পারে। ঘন ঘন স্ক্রাবিং করা ঠিক নয়। চালের গুঁড়ো, টকদই, শসার রস এবং দুই-তিন ফোঁটা তেল মিশিয়ে স্ক্রাবার তৈরি করা যেতে পারে। শুষ্ক ত্বকের জন্য একটু মধু মিশিয়ে নেওয়া যেতে পারে। এটি মুখ, হাত এবং পায়ে ব্যবহার করা যায়। তেলের সঙ্গে চিনি অথবা লবণ মিশিয়ে হাত বা পায়ের জন্য স্ক্রাবার তৈরি করা যায়। হাত-পা প্রতি সপ্তাহেই স্ক্রাব করা যেতে পারে।
চুল থাক পরিষ্কার

সপ্তাহে তিন দিন চুলে শ্যাম্পু লাগানোর পরামর্শ দিলেন বিশেষজ্ঞরা। শ্যাম্পু করার পর কন্ডিশনার লাগানো উচিত। কেউ কেউ চুলে সাবান লাগান, এটি ঠিক নয়। প্রত্যেকের চুলের ধরন অনুযায়ী শ্যাম্পু বেছে নেওয়া উচিত।
যেসব দিনে শ্যাম্পু করছেন না, সেসব দিন অনেকে গোসলের সময়ও চুল ভেজাতে চান না। এটি ঠিক নয়। প্রতিদিনই পানি দিয়ে চুল ধুয়ে নেওয়া ভালো। ধুলাবালিতে গেলে চুল বেঁধে রাখার পরামর্শ দিলেন সোনালী ফেরদৌসী মজুমদার। বাইরে গেলে স্কার্ফ দিয়ে চুল ঢেকে রাখতে পারেন। অন্যের তোয়ালে, চিরুনি বা চুলে ব্যবহার্য অন্য কোনো জিনিস ব্যবহার না করাই ভালো।

যখন ফিরি ঘরে

সারা দিনের কাজ শেষে ঘরে ফিরেই মুখ, হাত ও পা ধুয়ে নেওয়ার পরামর্শ দিলেন বিশেষজ্ঞরা। রাহিমা সুলতানা বলেন, ভেজা হাত দুটোকে মাথা ও ঘাড়ের ওপর দিয়ে বুলিয়ে আনলে মনে আসবে প্রশান্তি। দুহাতের কনুই পর্যন্ত ধুয়ে নিতে হবে।
কেউ চাইলে গোসল করে নিতে পারেন। তবে শরীরের যতটা অংশ ধোয়া হক, ততটা অংশে ময়েশ্চারাইজার লাগাতে হবে।
মেকআপ তুলতে
বাড়ি ফিরেই মেকআপ তুলে ফেলা উচিত। হাতের তালুতে একটু তেল নিয়ে মুখে ম্যাসাজ করে নিন। যাঁদের ত্বক তৈলাক্ত, তাঁরা হাতের তালুতে তেল নেওয়ার পর একটু পানি মিশিয়ে নিয়ে মুখে ম্যাসাজ করতে পারেন। এরপর ভেজা তুলা দিয়ে মেকআপ তুলে ফেলুন। শুধু পাউডার লাগিয়ে থাকলে সেটিও ধুয়ে ফেলা উচিত। মেকআপ তুলতে মেকআপ রিমুভার ব্যবহারের পরামর্শ দিলেন সোনালী ফেরদৌসী মজুমদার।
চোখের খেয়াল রাখুন
মুখ পরিষ্কার করতে গিয়ে চোখ ও এর আশপাশের ত্বকের ব্যাপারে সতর্ক থাকার পরামর্শ দিলেন রাহিমা সুলতানা। মুখ পরিষ্কার করার সময় চোখ বা এর আশপাশের অংশে ঘষাঘষি করা ঠিক নয়। এই অংশটুকু বাদ দিয়ে ফেসওয়াশ এবং স্ক্রাবার লাগানো উচিত। চোখ পরিষ্কার রাখতে পরিষ্কার পানি ছাড়া অন্য কোনো কিছুর প্রয়োজন নেই।
জেনে নিন
ঢাকার স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের চর্মরোগ বিভাগের প্রধান অধ্যাপক জাকির হোসাইন জানালেন, ত্বক পরিষ্কার না রাখলে ত্বকে বিভিন্ন ধরনের জীবাণুর সংক্রমণ হতে পারে। এর ফলে ত্বকে চুলকানি হতে পারে অথবা ফোড়া বা গোটা উঠতে পারে। ব্যাকটেরিয়ার সংক্রমণ হলে আক্রান্ত স্থানে ব্যথাও হতে পারে। হতে পারে খোস-পাঁচড়া। এ ছাড়া আমাদের দেশের আবহাওয়ায় গরমের দিনে অপরিষ্কার ত্বকে ছত্রাকের সংক্রমণ হতে পারে।
চুল পরিষ্কার না রাখলে খুশকি হতে পারে, এর ফলে চুল পড়ার আশঙ্কা বেড়ে যাবে বহুগুণে। অপরিষ্কার চুলে বাসা বাঁধতে পারে উকুন। এ ছাড়া মাথার ত্বকেও ফোড়া ও গোটা উঠতে পারে।

কমেন্টসমুহ
Secret Diary Secret Diary

Top