সাদি কা লাড্ডু নাকি খেলেও পস্তাতে হয়, আর না খেলেও তাই। অগত্যা কে আর চায় সাত তাড়াতাড়ি বিয়ে করে গলায় ঘণ্টা পড়তে! বিয়ের কথা শোনা মাত্রই তাই নাক সিঁটকানোও শুরু। তবে বিয়ের লাড্ডু না কি যত তাড়াতাড়ি খাওয়া যায় ততই মঙ্গল। এতে যেমন নিজেদের মধ্যে বোঝাপড়াও গড়ে ওঠে, তেমনই দাম্পত্য জীবনটাকে অনেক বেশি উপভোগও করা যায়। তাই তাড়াতাড়ি বিয়ের সিদ্ধান্ত আসলে খুবই ভাল। কেন?

 

১) বিয়ের নাকি কোনও পারফেক্ট সময় বলে কিছু নেই। আপনি ঠিক করলেন বিয়ে করবেন। কিন্তু বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই দেখা যায়, বিয়ের সময় উপস্থিত হলেই মনের ভিতরে দ্বন্দ্বের উদ্ভব হয়। মনে হয় ঠিক করছি তো? এটা বেশি তাঁদের ক্ষেত্রেই হয় যাঁরা প্রতিষ্ঠিত। তাড়াতাড়ি বিয়ে করলে মেয়েদের ক্ষেত্রে অনেকটা সমস্যার সমাধান হয়।

 

২) কম বয়সে বিয়ে করলে মেয়েদের উপরে মা হওয়ার চাপও থাকে না। ছেলে মেয়েদের পড়াশোনা, স্কুল এই সব নিয়ে প্রথম থেকেই ভাবতে হবে না।  চুটিয়ে বেড়াতে পারবেন।

পড়ুন: জাস্ট ম্যারেড? জেনে নিন ১০ ইনভেস্টমেন্ট প্ল্যান

৩) কম বয়সে নতুন পরিবেশে মানিয়ে নেওয়াটাও অনেক সহজ হবে। মানিয়ে নেওয়ার সময়টাও বেশি পাবেন।

 

৪) সব কিছুর পরেও আপনি পড়াশোনা করে নিজের কেরিয়ারের দিকে মন দিতে পারবেন। সংসার এবং কর্মক্ষেত্র— দু’দিকেই সমান তালে নজর রাখতে পারবেন।

 

৫) কম বয়সী অভিভাবকেরা সন্তানের অনেক বেশি কাছের হয়। ছেলে মেয়েরা তাদের বাবা-মার সঙ্গে অনেক সহজে মিশে যেতে পারে। তাতে ছেলে মেয়েদের উপরে নজর রাখাও হয়ে যায় অনেক সহজ।

 

এখন আপনি প্রশ্ন তুলতেই পারেন? প্রতিষ্ঠিত না হয়ে মেয়েদের বিয়ে করাটা ঠিক নয় বলতেই পারেন? আগেই বলা হয়েছে, বিয়ের কোনও নির্দিষ্ট সময় নেই। সবটাই নির্ভর করছে একজনের মানসিকতার উপরে।