পুরনোতেই হোক নতুন কিছু, জেনে নিন কার্যকরী কিছু গৃহস্থালি টিপস!

অতি পছন্দের জিনিসগুলো পুরোন আর বাতিল হয়ে যাওয়া খুব স্বাভাবিক একটা ব্যাপার। চারপাশের আর দশটা জিনিসের মতন সময়ের সাথে সাথে একটা সময় এগুলোও চলে যায় বাতিলের খাতায়। কিন্তু মাঝে মাঝে তাদের ভেতরে কিছু জিনিসগুলো এতটাই পছন্দের হয়ে যায় যে কোনরকমভাবেই সেগুলোকে ফেলে দিতে ইচ্ছে করেনা। কেমন হত যদিএক পলকে জাদুমন্তরের মতন একেবারে নতুন করে দেওয়া যেত এই পুরোন আর বাতিল পণ্যগুলোকে? চলুন জেনে আসি পুরোন বাতিল জিনিসকে একদম নতুনের মতন করে আবারও ব্যবহার করার এই সহজ উপায়গুলো।

কাপড়, কাপড়ের জুতো বা ব্যাগের ময়লাভাব আর দাগ দূর করতে

পুরোন যেকোন জিনিসে ময়লাটেভাব চলে আসে আর সেই সাথে অনেক সময় সামান্য দাগের কারণেও বাতিলের খাতায় চলে যায় আমাদের পছন্দের জিনিসটি। বিশেষ করে কাপড় বা কাপড়ে তৈরি জিনিসগুলো। পোশাক থেকে শুরু করে বিছানার চাদর, সোফার কাভার, জুতো, ব্যাগ, পর্দা, তোয়ালে, মোজা, ন্যাপকিন ইত্যাদি কত কিছুই পড়ে এই তালিকায়। আর তাই এই ময়লাটে ভাব আর দাগকে দূর করতে জেনে নিন খুব সহজ আর অত্যন্ত কার্যকরী এই প্রক্রিয়াটি।

এ প্রক্রিয়ায় প্রথমেই বালতিভর্তি ইষদুষ্ণ পানি নিয়ে তাতে একে একে সমপরিমাণ অক্সি ক্লিন, তরল ক্লোরক্স ২ ও বাজারে পাওয়া ভালোমানের কোন ডিটারজেন্ট মেশান ( প্রিটি হ্যান্ডি গর্ল )। এরপর পানির সাথে উপাদানগুলোকে ভালো করে গুলে নিয়ে তাতে নিজের পুরোন আর বাতিল জিনিসটি ডোবান। দেখুন, কত সহজেই জেলীর দাগ থেকে শুরু করে অন্য যেকোন দাগ, কাপড়ের বাদামীভাব, পুরোন ময়লাটেভাব- সবকিছু দূর হয়ে যায়!

পুরনো আসবাবকে নতুন করতে

আসবাব একটু পুরনো হলেই ফেলে দিয়ে নতুন কিনবেন, এমন বোকামি আজকাল কেউ করে না। কেন? কারণ মারাত্মক খরচের ব্যাপার এখন আসবাব কেনা। পুরনো আসবাবকে মিস্ত্রি ডাকিয়ে সারিয়ে নিন। কোথাও ফাটা বা ভাঙা থাকলে ঠিক করান। তারপর সম্পূর্ণ ভিন্ন একটা রঙ দিয়ে বার্নিশ করে নিন। আর দেখুন, একেবারেই নতুনের মত হয়ে গেছে!

ছেঁড়া-ফাটাকে নতুন করতে

ছেঁড়া কিংবা ফেটে যাওয়া বিছানার চাদর, ফেঁসে যাওয়া ওড়না বা জিন্স- মাঝে মাঝে প্রচন্ড ঝামেলায় ফেলে দেয় আমাদের। জিনিসটা এত ভালো, অথচ কেবল পুরোন হওয়ার ফলে কিংবা ছিঁড়ে যাওয়ার কারণে বাতিল করে দিতে হয় আমাদের সেগুলোকে। কিন্তু ফেলে না দিয়েও কিন্তু এই বাতিল কাপড়গুলোকেই নতুন করে ফেলতে পারেন আপনি। আর এক্ষেত্রে অন্য কিছু নয়, বরং খানিকটা চিন্তাশক্তি ব্যবহার করতে হবে আপনাকে। খানিকটা বোতামের এদিক-ওদিক, খানিকটা আলগা রং, রিবন, বড় কিছুকে কেতে নতুন কিছু তৈরি- এরকম আরো নানারকম উপযোগী জিনিসটি সহজেই আপনার পুরোন আর ছিঁড়ে যাওয়া কাপড়কে করে তুলতে পারে নতুন ( টিএলসি )। যেমন পুরনো চাদর বা পর্দা দিয়ে সহজেই তৈরি করতে পারেন কুশনের কাভার! অন্যদের কাছে তখন আর বাতিল কিছু নয়, বরং নতুন কিছুই মনে হবে।

ফ্যাকাশে রংকে দূর করতে

কাপড়ের তৈরি জিনিস পুরোন হলে সেটা ফ্যাকাশে হবেই। এতে কষ্ট পাওয়ার কিছু নেই। তবে কষ্টটা তখন লাগে যখন আপনার অতি প্রিয় আর একদম দাগহীন ও অটুট থাকা পোশাক বা কাপড়ের তৈরি জিনিসগুলো শুধু এই রঙ ফ্যাকাশে হয়ে যাওয়া বা ভাঁজপূর্ণ দাগে ভরে যাওয়ার কারণে বাতিল করে দিতে হয়। তবে এবার বাতিলের খাতায় না ফেলে বরং খানিকটা ডাই-এর কারিশমা দেখুন আপনি। নিজের পছন্দমতন ডাইটি কিনুন। প্যাকেটের নির্দেশনানুসারে পরিমাণমতন গরম পানির ভেতরে ডাই পাউডার গুলিয়ে নিন। এরপর আপনার কাপড়টিকে ভালোমতন সেই মিশ্রণের ডোবান আর মেশান। খুব বেশি না। মাত্র পাঁচটা মিনিট এভাবেই রাখুন আপনার প্রিয় কাপড়টিকে মিশ্রণের ভেতরে ( সেন্টসেশনাল গার্ল )। ফলাফল? নিজেই দেখে নিন! কতটা অদ্ভূতভাবে একেবারে নতুনের মতন বদলে গিয়েছে আপনার পছন্দের কাপড়টি। কাপড়, বিশেষ করে জিনসের তৈরি জিনিসের ক্ষেত্রে এই পদ্ধতি অত্যন্ত কার্যকরী।

হাতল ভাঙা হাঁড়িকুঁড়ি, বালতি বা কাঁচের পাত্র

ভেঙে গিয়েছে বলেই ফেলে দিতে হবে প্রিয় জিনিসটিকে? একদম নয়। ভাঙা অংশটুকু ফেলে দিয়ে, স্থান্তি শিরিষ কাগজ দিয়ে মসৃণ করে ব্যবহার করুন ফুলের তব হিসাবে! মাটি বা কাঁচের ভাঙা জিনিস দিয়ে দারুণ টব হয়!

পুরোন টি শার্টকে ব্যবহার করতে

শার্ট আর টি-শার্টের সবচাইতে বেশি পুরোন, ছিঁড়ে বা ফেঁসে যাওয়া জায়গাগুলো হচ্ছে হাত আর কলার। তাই আপনার পুরোন শার্ট কিংবা টি-শার্টটিও হয়তো কেবল এই সামান্য ত্রুটির জন্যেই ফেলে দিতে হতে পারে। তবে ফেলে না দিয়ে সামান্য চেষ্টাতেই কিন্তু কাপড়টিকে আবার নতুন করে তুলতে পারেন আপনি। এজন্যে প্রথমেই ডাই করে নিন শার্টটি। এরপর সেটার হাত আর কলার কেটে ফেলুন। খানিকটা বোতাম আর সুতোর আঁকিবুঁকি দিয়ে সাঁজিয়ে ফেলুন সেটাকে। খুব সহজেই একেবারে নতুন একটি টপস পেয়ে যাবেন আপনি বিনা খরচাতেই ! এছাড়াও এই টি শার্ট দিয়ে তৈরি করতে পারেন ছোট কোন কিছুর ঢাকনি বা পুতুলের জামাও।

এমন আরও অসংখ্য জিনিস আসলে বাতিল পণ্য থেকে তৈরি করা সম্ভব।

কমেন্টসমুহ
Secret Diary Secret Diary

Top