পৃথিবীর যত অপ্রয়োজনীয় অথচ প্রচণ্ড দামি জিনিস!

পৃথিবীতে ঠিক কতজন মানুষ আজ না খেয়ে রয়েছেন বলতে পারেন? সংখ্যাটা হাতের আঙ্গুলে গুণতে গেলে গুলিয়ে ফেলবেন আপনি। ভাববেন, তাহলে এতটাই কি দরিদ্র আমাদের পৃথিবীর মানুষগুলো? কী হল? মনটা খারাপ হয়ে গেল বুঝি? তাহলে এবার আপনাকে দেখাব এমন কিছু জিনিস যেগুলো আপনাকে চোখে আঙ্গুল দিয়ে দেখিয়ে দেবে আসলে পৃথিবীর কিছু মানুষের হাতে কত অকেজো টাকা রয়েছে। কখনো কি ভেবেছেন এক প্লেট ভাতের জন্য ২০ টাকা যেখানে মানুষ যোগাড় করতে পারেননা, সেখানে একটা চকোলেট বাক্সের দাম কোটি টাকা? চলুন দেখে আসি এমনই কিছু অপ্রয়োজনীয় অথচ প্রচণ্ড ব্যয়বহুল জিনিস।

১. পিজ্জা

সাধারণ পিজ্জার তুলনায় একটু অন্যরকম এই পিজ্জাটিতে কোনোরকম রত্ন না থাকলেও রয়েছে অত্যন্ত আকর্ষণীয় ও দুর্লভ কিছু উপাদান। নিউইয়র্কে অবস্থিত নিনোস বেল্লিসিমা পিজ্জার পিজ্জারিয়াতে গেলে খুব সহজেই হাতের নাগালে পেয়ে যাবেন আপনি এই খাবারটিকে। তবে সেটা মুখের ভেতরে পুরতে হলে এর প্রতিটি অংশের জন্যে মোট ১২৫ ডলার গুণতে হবে আপনাকে ( ডেইলি কোয়েনচার্স )। মোট আটটি অংশ নিয়ে গঠিত এই পিজ্জাটির ভেতরে রয়েছে ক্রিম ফিশ, চাইভ- অনিয়ন, চাররকমের ক্যাভিয়ার, আটলান্টিকের চিংড়িমাছের চিকন করে কাটা লেজ, স্যামন মাছের পুর আর খানিকটা ওয়াসাবি। আটজনের জন্যে যথেষ্ট এই পিজ্জাটিকে এখন অব্দি পৃথিবীর সবচাইতে দামি পিজ্জা বলে মনে করা হয়।

২. ক্রিকেট বল

নিশ্চয়ই ভাবছেন, সোনা-রুপোয় মোড়া ক্রিকেট বল দিয়ে কি আর খেলা হয়? নিশ্চয়ই সেসবের ধারে কাছে নেই এটি। কিন্তু না। পৃথিবীর সবচাইতে এই দামি ক্রিকেট বলটির ভেতরে রয়েছে ৫,৭২৮টি হীরের টুকরো (ওয়ানডারলিস্ট)। ৬৮,৫০০ ডলারের এই অসম্ভব সুন্দর বলটিকে অবশ্য খেলতে নয়, ২০০৭ সালের ক্রিকেট বিশ্বকাপের সেরা খেলোয়ারের পুরস্কার হিসেবে ব্যবহার করা হয়।

৩. টি-ব্যাগ

রোজ সকালে যে জিনিসটা ছাড়া আমাদের চলেই না সেটি হচ্ছে এক কাপ চা। কিন্তু চায়ের মতোন এই অতি প্রয়োজনীয় জিনিসটিকেও অযথাই রত্ন দিয়ে ভরিয়ে ফেলে জবরজং আর ব্যয়বহুল করে তুলেছে ব্রিটেনের অন্যতম জনপ্রিয় প্রতিষ্ঠান পিজি টিপস। তাদের হয়ে চায়ের ব্যাগকে মহামূল্যবান অলঙ্কারে সাজিয়ে দিতে সাহায্য করেছে বুডলস। তবে একেবারে এমনিতেই নয়, পিজি টিপসের ৭৫ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীকে কেন্দ্র করেই ২৮০টি হীরে দিয়ে সাজানো চায়ের ব্যাগ তৈরি করে পিজি টিপস। যার দাম পড়ে প্রায় ১৪ হাজার ডলার ( ওয়ানডারলিস্ট )!

৪. টেলিভিশন

বর্তমান জীবনে আর কিছু থাকুক কিংবা না থাকুক, সারাদিনে একবার টিভির সামনে এসে না বসতে পারলে মোটেই স্বস্তি পাওয়া যায়না। আর যাবেই বা কি করে? প্রতিদিনের খবর, দরকারী সব তথ্য- এসবকিছু তো একমাত্র টিভির মাধ্যমেই জানতে পারি আমরা। আর এই টিভিকেই আরো একটু বেশি আকর্ষণীয় করে তুলতে এলসিডি টিভি ইয়ালোস ডায়ামন্ড নির্মাণ করা হয়। যেটা কিনতে গেলে আপনার খরচ পড়বে প্রায় ১৩০,০০০ ডলার (ওয়ানডারলিস্ট )। তবে একটি প্রশ্ন থেকেই যায়। আর প্রশ্নটা হচ্ছে, মানুষ এই টিভি দিয়ে টিভিতে প্রদর্শিত অনুষ্ঠানগুলোকে দেখবে নাকি খোদ টিভিকে? উত্তরটা না জানা থাকলেও ইচ্ছে হলে আপনি কিনতেই পারেন বিশাল আকারের সাদা স্বর্ণ আর ২০ ক্যারটের হীরে দিয়ে মোড়ানো এই ব্যয়বহুল টিভিটিকে।

৫. চকোলেটের বাক্স

চকোলেট কে না পছন্দ করে? ছোট থেকে বুড়ো- সবারই পছন্দের তালিকায় একটা জিনিস মিলে যায়ই। আর সেটি হলো চকোলেট। কিন্তু ভাবুন তো, একটা চকোলেটের বাক্সের দাম ঠিক কত হতে পারে? ভাবছেন, আর কতই বা হবে! কিন্তু শুনলে অবাক হবেন যে, লে চকোলেট তৈরি অত্যন্ত ব্যয়বহুল। এই চকোলেট বাক্সটির দাম মোট দেড় মিলিয়ন ডলার (ওডি )! তা হবেই বা না কেন? শুধু তো চকোলেট নয়, এটি কিনলে আপনি পাবেন পান্না আর নীলাকান্ত মণির সুন্দর অলংকারও! ঠিক ধরেছেন। চকোলেট কেমন খেতে সেটা প্রাধান বিষয় না হলেও এই বিশেষ চকোলেটের বাক্সটিতে মূল্যবান অলংকার আর রত্ন যেন সুন্দর করে সাজানো থাকে সেদিকটাতে বেশ ভালোভাবেই নজর রেখেছেন এর প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠানটি।

কমেন্টসমুহ
Secret Diary Secret Diary

Top