মস্তিষ্ককে রিল্যাক্স করুন বিজ্ঞানসম্মত উপায়ে

কাজের চাপ থেকে চাই একটু নিস্তার। একটু বিশ্রাম, একটু নিরবতা, একটু শান্তি। সপ্তাহ শেষের ছুটির দিনটি কিভাবে শান্তিময় করা যায়, তাই হয়ত ভাবছেন আপনি। দাওয়াত খাওয়াও একটা কাজ মনে হয় মাঝে মাঝে। আবার কোথাও বেড়াতে যাবেন, একদিনের ছুটিতে যাতায়াতের কষ্ট সয়ে বেড়ানো যেন আরও পরিশ্রমের মাত্রা বাড়িয়ে দেয়। তাহলে কী করবেন, কিভাবে আবার নতুন কর্মমূখর সপ্তাহের জন্য তৈরি হবেন? আসুন বিজ্ঞানসম্মত উপায়ে কিভাবে দূর করবেন শ্রান্তি, ফিরিয়ে আনবেন ফুরফুরে মেজাজ।

১। পৃথিবীর সবচেয়ে আরামদায়ক গানটি শুনুন
রেডক্স স্পা এর একটি গবেষণায় দেখা গেছে মার্কনি ইউনিয়নের ‘ওয়েটলেস’ গানটি নারীদের অনেক বেশী রিল্যাক্স হতে সাহায্য করে। ৬০ বিপিএম এর নিরন্তর রিদম মস্তিষ্ক এবং হৃদস্পন্দনকে একই রিদমে নিয়ে আসে। এই প্রসেসকে বলে ‘এন্ট্রেইনমেন্ট’। এমনই ঠান্ডা স্রোতের কোন গান বেছে নিন। চোখ বন্ধ করে কিছুক্ষণ শুধু গানটি শুনুন।

২। সংগীর সাথে ঘনিষ্ট হন
আপনি কি জানেন, চুম্বন অক্সিটোসিন ক্যামিক্যাল নিঃসরণ করে? এর ফলে স্ট্রেস হরমোন করটিসলের লেভেল হ্রাস পায়। আমেরিকান এসোসিয়েশন ফর দ্যা এডভান্সমেন্ট অফ সায়েন্স এর ২০০৯ সালের একটি গবেষণায় পাওয়া গেছে এই তথ্য।

৩। হাসির সিনেমা দেখুন
স্ট্রেস থেকে মুক্তির জন্য হাসির বিকল্প নেই। ২০০৯ সালে হিউমারে প্রকাশিত একটি জার্নালে দেখা গেছে, মানসিক স্ট্রেস কমাতে হাসির গুরুত্ব অনেক। এমন একটি সিনেমা দেখুন যা আপনাকে দেবে নির্মল আনন্দ। এতে আপনার মস্তিষ্কের নার্ভ রিল্যাক্স হবে। করটিসলের লেভেল নিয়ন্ত্রণে থাকবে।

৪। যোগ ব্যায়ামের ক্লাস করুন
সারা সপ্তাহ তো সময় নেই। ছুটির দিনে একটা ক্লাস করুন যোগ ব্যায়ামের। যোগ ব্যায়ামের নির্দিষ্ট শ্বাস-প্রশ্বাসের নিয়মগুলো, বসার ভঙ্গী আপনার মাসলকে রিল্যাক্স করবে। এতে উদ্বিগ্নতা, বিষণ্ণতা, হতাশা, অবসাদ কাটে। গবেষণায় দেখা গেছে, যোগ ব্যায়াম মনোযোগ বাড়ায়, কর্মক্ষমতা বাড়ায় এমনকি জীবনের প্রতি দৃষ্টিভঙ্গী উন্নত করে।

৫। চকোলেট খান
নিজেকে ফ্রেশ রাখতে চকোলেটের বিকল্প নেই। ডী-স্ট্রেস ডায়েটের লেখক এনা মেগীর গবেষণায় দেখা গেছে, প্রতিদিন ৪০ গ্রাম চকোলেট খাওয়া স্ট্রেস দূর করে, মস্তিষ্কে বেটা এন্ডরফিন নিঃসরণ করে। এই রাসায়নিককে বলা হয় “সুখী রাসায়নিক”!

৬। মোবাইল বন্ধ রাখুন
আপনি কখনো খেয়াল করেছেন কি, আপনার মোবাইল আপনাকে সারাক্ষণ কাজের সাথে যুক্ত রাখে? তাই যখন পুরোপুরি রিল্যাক্স করতে চান, আপনার মোবাইল থেকে দূরে থাকুন। কাজের কোন শেষ নেই। কিন্তু নিজের মানসিক প্রশান্তিরও প্রয়োজন আছে। তাই স্ট্রেসকে গুরুত্ব দিন। কাজ থেকে বিরতি নিন। যে টুকু সময়ের জন্য এই বিরতি, সেটুকুকে একদম ঝামেলা মুক্ত রাখুন।

৭। পোষা প্রাণী
আপনি একটি বিড়াল পুষতে পারেন। অথবা একটি কুকুর। অথবা পাখী। যা আপনার ভাল লাগে, প্রিয় কোন প্রাণীকে রাখতে পারেন ঘরে। গবেষণায় দেখা গেছে, পোষা প্রাণী স্ট্রেস দূর করে। এদের সাথে খেলা, সময় দেওয়া এক নির্মল আনন্দ দেয় মানুষকে। আপনার অবসরকে পরিপূর্ণ রিল্যাক্স করতে তাই সাহায্য নিতে পারেন কোন পোষা প্রাণীর।

কমেন্টসমুহ
Secret Diary Secret Diary

Top