বিরিয়ানিটা আমিই রাঁধি : জাহানারা আলম

ক্রিকেট মাঠে যেমন বল আর ব্যাটের লড়াই নিয়ে ভাবেন, ঈদের দিনে তেমনি বিরিয়ানির স্বাদ নিয়েও ভাবতে হয় তাঁকে। এবার ঈদের পোশাক, জুতা, ঘর সাজানোসহ খুঁটিনাটি সব বিষয় নিয়েই ভাবতে শুরু করেছেন। তিনি জাহানারা আলম। বাংলাদেশ জাতীয় মহিলা ক্রিকেট দলের অধিনায়ক। নকশার জন্য ছবি তোলার ফাঁকে তাঁর সঙ্গে কথা হচ্ছিল মিরপুরের শেরেবাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামের গ্যালারিতে বসে।
জাহানারা সাজগোজ করতে পছন্দ করেন। অন্যান্য উৎসবের চেয়ে ঈদের দিন তিনি একটু বেশি যত্ন নিয়েই সাজেন। পোশাকের সঙ্গে মিলিয়ে বেছে নেন জুতা, গয়নাসহ নানা অনুষঙ্গ। দফায় দফায় ঘুরতে বের হন। তাই বেশিক্ষণ টেকে, এমন মেকআপই করেন ঈদের দিন। আজকাল রান্নাবান্নার প্রতিও বেশ আগ্রহ বেড়েছে তাঁর। নিজের রান্না করা বিরিয়ানি পরিবার ও কাছের মানুষদের বেশ প্রশংসাও পেয়েছে। ‘আমার রান্না করা বিরিয়ানি নাকি সেরা হয়। আম্মু তাই ঈদের দিন সকালে আমাকেই রান্নাঘরে পাঠান বিরিয়ানি রান্না করতে। তাই বলে সেমাই-পায়েস বা গরুর মাংসও খারাপ রান্না করি না,’ বললেন টাইগ্রিস দলের অধিনায়ক।
পোশাকের মধ্যে শাড়িই বেশি পছন্দ জাহানারার। তবে ঈদের দিন ঘোরাঘুরির সুবিধার জন্য সালোয়ার-কামিজ বেছে নেন। এবারও তা-ই পরবেন। গ্রামের বাড়ি খুলনাতেই পরিবারের অন্য সবার সঙ্গে ঈদ উদ্যাপন করেন জাহানারা। পাঁচ ভাইবোনের মধ্যে সবার বড় হওয়ায় ছোটদের সব আবদার যেন থাকে ‘বড় আপু’র কাছেই। আগে ঈদের দিন সালামি পেলেও, এখন অন্যদের সালামি দিতে হয় জাহানারাকে। খেলা নিয়ে ব্যস্ত থাকেন অন্য সময়ে, তাই ঈদের দিনটা রাখেন শুধুই পরিবারের জন্য। আর ঈদের বিকাল তোলা থাকে বন্ধুদের জন্য। তাঁদের সঙ্গে আড্ডা আর ঘুরে বেড়িয়ে সময় কাটান এই মিডিয়াম ফাস্ট বোলার।
ফারজানা ফাহমি

কমেন্টসমুহ
Secret Diary Secret Diary

Top