বরকতময় সেহরি খাওয়ার গুরত্ব

সেহরি খাওয়া সুন্নত। সেহরিতে রয়েছে বরকত ও কল্যাণ। ইয়াহুদি-খ্রিস্টানরাও রোজা পালন করতো কিন্তু তারা ভোর রাতে সেহরি খেতো না। তাই রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম ভোর রাতে সেহরি খাওয়ার বিশেষ তাগিদ দিয়েছেন। যে কারণে সেহরি খাওয়া উম্মাহর জন্য সুন্নাত। সেহির খাওয়ার বিধান ও ফজিলত হলো-

>> সেহরি পেট ভরে খাওয়া জরুরি নয়, বরং ন্যুনতম এক ঢোক পানি পান করলেও সেহরির সুন্নত আদায় হয়ে যাবে। হাদিসে এসেছে, ‘রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম ইরশাদ করেন- تسحروا فإن في السحور بركة অর্থাৎ ‘তোমরা সেহরি খাও। কেননা, সেহরিতে বরকত রয়েছে। (মুসলিম)

>> অন্য হাদিসে রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, ‘সেহরি খাওয়া বরকতপূর্ণ কাজ। সুতরাং তোমরা তা পরিত্যাগ করো না। এক ঢোক পানি দিয়ে হলেও সেহরি কর। কারণ যারা সেহরি খায় আল্লাহ তাআলা তাদের ওপর রহমত বর্ষণ করেন এবং ফেরেশতারা তাদের জন্য রহমতের দোয়া করেন।’ (মুসনাদে আহমদ, মুসান্নাফ ইবনে আবি শায়বা, ইবনে হিব্বান)

আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহকে সেহরির বরকত ও কল্যাণ লাভে বিশ্বনবির সুন্নাত পালনে সেহির খাওয়ার তাওফিক দান করুন। আমিন।

কমেন্টসমুহ
Secret Diary Secret Diary

Top