সম্পর্কের জটিলতা কমাতে টেক্সট নয়, কল করুন!

প্রযুক্তি যতই এগিয়ে যাচ্ছে ততই যেন আমরা একজন আরেকজনের কাছ থেকে দূরে সরে যাচ্ছি। মুখোমুখি বসে কথা বলার তুলনায় আমরা অভ্যস্ত হয়ে পড়ছি টেক্সট মেসেজে, চ্যাটবক্সে। এতে বাড়ছে ভুল বোঝাবুঝি, কমছে সম্পর্কের দৃঢ়তা। জানব রিলেশনশিপ কলামিস্ট রিটা ওয়াটসনের কাছ থেকে-
ডা. টার্কল একজন লাইসেন্সপ্রাপ্ত ক্লিনকাল সাইকোলজিস্ট। তিনি বলেন, “আপনি যতবার আপনার ফোন চেক করেন ততবার আপনি একটা উদ্দীপনা লাভ করেন। কিন্তু একই সাথে আপনি হারান আপনার বন্ধু, শিক্ষক, ভালবাসার মানুষ বা সহকর্মী এই মাত্র যা বললেন, অনুভব করলেন!”
পিউ রিসার্চ স্টাডি সেন্টারের ২০১৫ সালের গবেষণায় জানা যায়, “যুক্তরাষ্ট্রের ৯২ শতাংশ তরূণদের হাতেই আছে স্মার্টফোন এবং ৯০ ভাগের সাথেই মোবাইল সব সময় থাকে। এদের মধ্যে ৩১% কখনোই তাদের মোবাইল বন্ধ করেন না আর ৪৫% মাঝে মাঝে মোবাইল বন্ধ করেন। এই “always-on” না সব সময় কানেকটেড থাকার ট্রেন্ড আমাদেরকে কথা, ভাষা, যোগাযোগের শারীরিক মাধ্যমগুলো থেকে বিচ্ছিন্ন করছে। ডিজিটাল যোগাযোগ মানুষে মানুষে প্রযুক্তির দেয়াল তৈরি করে চলেছে।”
ডা. সানহং লুও নর্থ ক্যালিফোর্নিয়ার একজন সামাজিক ব্যক্তিত্ব, তিনি সম্পর্কের ওপর পড়াশোনা করেছেন, গবেষণা করেছেন। তিনি ২০১৪ সালে একটি গবেষণার ফলাফল জমা দেন যেখানে বলা হয়, টেক্সট করা রোমান্টিক সম্পর্কের সন্তুষ্টিকে ক্ষতিগ্রস্থ করে। ডা. লুও দেখেন, কলেজ ছাত্ররা যারা একটি বড় সময় মেসেজ চালাচালিতে ব্যয় করেন তাদের সম্পর্কগুলো বেশী জটিল। কারণ তারা সম্পর্কের চর্চা করেন প্রযুক্তির সাহায্যে, সরাসরি যোগাযোগের মাধ্যমে নয়।
‘I love you’ মেসেজটি অবশ্যই সুন্দর, কিন্তু এটা অনেক বেশী রোবটিকও। যতই আপনি এর সাথে একটা হার্ট বা হাসির ইমোজি ব্যবহার করুন না কেন! ধীরে ধোরে এটা একঘেয়ে হয়ে যায়। তার চেয়ে বরং চট করে একটা কল দিয়ে ‘ভালবাসি’ বলাটা বেশী মধুর।
তবে এটা বেশী ভয়ংকর যখন আপনাদের মধ্যে চলছে রাগারাগি। আপনি হয়ত ভুল বোঝাবোঝি মেটাতে একটা মেসেজ দিলেন, কিন্তু সম্পূর্ণ আলাদা একটা অর্থ প্রকাশ করতে পারে বাক্যটি। কথা বলার সময় আমরা আমাদ্র কন্ঠস্বরের নমনীয়তা দিয়ে রাগ আর অভিমানের পার্থক্য বোঝাতে পারি। কথা দিয়ে বোঝানো যায়, ‘না’ মানে কি শুধুই ‘না’, নাকি এর মাঝে লুকিয়ে আছে ‘হ্যা’। মেসেজে সেটা কখনোই বোঝা যায় না। তাই বাড়ে ভুল বোঝাবুঝি।
তাই মেসেজ যদি দিতেই হয়, স্পষ্ট করে লিখুন। যেসব কথা ভুল ভাব প্রকাশ করতে পারে সেসব কথা মেসেজে বলা থেকে বিরত থাকুন। তার বদলে কল দিন, দেখা করুন, সামনাসামনি কথা বলুন। এক সপ্তাহ এই অনুশীলন করে দেখুন, সম্পর্কের জটিলতা কমে যাবে বেশীরভাগ ক্ষেত্রেই।
কমেন্টসমুহ
Secret Diary Secret Diary

Top