কীভাবে বুঝবেন শরীরে খাবারের ঘাটতি রয়েছে আপনার?

অফিস, বাড়ি, জিম বা অন্য কোথাও। প্রতিদিন বিভিন্ন রকম খাবারের উপরে নির্ভর করতেই হয় আপনাকে। কিন্তু, অফিসের তাড়ায় কখনও ভাল করে ব্রেকফাস্টটা করা হয় না। আবার কখনও কাজের চাপে দুপুরের খাবারটাও ভাল করে খেতে পারেন না। সবকিছু মিলিয়ে প্রতিদিন যেভাবে আপনার খাবারে ঘাটতি থেকে যাচ্ছে, তাতে ওজন না কমলেও শরীরে কিন্তু বিভিন্ন রকম সমস্যা আপনার থেকেই যাচ্ছে। কিন্তু, কীভাবে বুঝবেন আপনার শরীরে খাবারের ঘাটতি থেকে যাচ্ছে?

প্রতিদিন যদি অধিক পরিমাণে আপনার চুল পড়া শুরু করে, তাহলে বুঝতে হবে খাবারের ঘাটতি রয়েছে।

যখন আপনার ব্লাড প্রেসার লেভেল হঠাত করে যদি নামতে শুরু করে কিংবা কখনও বেড়ে যেতে শুরু করে, তাহলেও বিপদ। অর্থাত, শরীরে খাবারের ঘাটতি থাকলে আপনার বিপি কখনও এক জায়গায় দাঁড়িয়ে থাকবে না।

অল্পেতেই যদি আলসেমি লাগে। অর্থাত, কোনও কাজে এনার্জি না পান, তাহলে বুঝতে হবে, শরীরে খাবারের প্রয়োজন আছে।

সব সময় ঠান্ডা লেগে থাকলেও, শরীরে খাবারের অভাব রয়েছে বলে ধরে নিতে হবে। অর্থাত সব সময় সর্দি, কাশি কিংবা জ্বরে ভুগতে শুরু করেন, তাহলে বিপদ।

কারও না কারও উপর যদি সব সময় রাগ হয়, মেজাজ বিগড়ে থাকে, খিটখিটে হয়ে যান, তাহলে সাবধান। মেজাজ সব সময় বিগড়ে থাকলে শরীরে খাবারের অভাব রয়েছে বলে ধরে নিতে হবে।

অনেক চেষ্টা করেও যদি মা হতে না পরেন, তাহলেও শরীর খারাপ হচ্ছে বলে ধরে নিতে হবে। অর্থাত, শরীরে খাবারের ঘাটতি থাকলেও অনেক সময় নানা ধরণের সমস্যা দেখা দেয় মা হওয়ার ক্ষেত্রে। তবে এ ক্ষেত্রে চিকিত্সকের পরামর্শ নিন।

কম খাচ্ছেন, এটা বোঝার অন্যতম উপায় হল, কনস্টিপেশনে ভুগতে শুরু করা। মলত্যাগে কষ্ট হতে শুরু করলে, বুঝতে হবে, আপনি কনস্টিপেশনে ভুগছেন। এ ক্ষেত্রে উপযুক্ত খাবার খেয়ে, ঘাটতি মেটাতে হবে।

এ সব ক্ষেত্রেই আরও বেশি করে সবুজ শাক সবজি খান। বেশি করে ফল খান এবং ডায়েট চার্ট অনুযায়ী সঠিক উপায়ে খাওয়াদাওয়া করুন। প্রয়োজনে চিকিত্সকের পরামর্শ নিন।

কমেন্টসমুহ
Secret Diary Secret Diary

Top