যে ১৩ টি ফরজ ছুটে গেলে আপনার নামাজ হবে না!

নামাজের ফরজ ১৩ টি তার মধ্যে নামাজের আগে ৭টি আর নামাজের ভিতরে ৬টি  নামাজের পূর্বে ৭ ফরজ
০১. শরীর পাক
০২. কাপড় পাক
০৩. নামাজের জায়গা পাক
০৪. সতর ঢাকা
০৫. কিবলামুখী হওয়া
০৬. ওয়াক্ত মত নামাজ পড়া
০৭. নামাজের নিয়ত করা
নামাজের ভিতর ৬টি ফরজ
০১. তাকবীরে তাহরীমা বলা
০২. দাঁড়িয়ে নামাজ পড়া।
০৩. কিরায়াত পড়া।
০৪. রুকু করা
০৫. দুই সিজদা করা।
০৬. আখেরী বৈঠক।*
*টীকা: নামাজের কোন একটি ফরজ ছুটে গেলে নামাজ বাতিল হয়ে যায়।

নামাজের ওয়াজিব ১৪ টি
০১. সূরা ফাতিহা সম্পুর্ণ তিলওয়াত করা।
০২. সূরা ফাতিহার সাথে অন্য সূরা বা বড়
এক আয়াত অথবা ছোট ছোট তিন আয়াত
মিলানো।
০৩. রুকু, সিজদায় এক তাসবীহ পরিমান দেরি
করা। (৩বার সুবহানা রাব্বি আল আজিম
বলার সময়)।
০৪. রুকু থেকে সোজা হয়ে দাড়ানো।
০৫. দুই সিজদার মাঝখানে সোজা হয়ে
বসা।
০৬. প্রথম বৈঠক করা। (নামাজ ৪রাকায়াত
বা ৩ রাকায়াত হলে)।
০৭. উভয় বৈঠকে তাশাহুদ(আত্তাহিয়্যাতু)
পড়া।
০৮. ইমামের জন্য যোহর, আছর এবং দিনের
বেলার সুন্নত ও নফল নামাযে কিরায়াত
আস্তে এবঙ ফজর, মাগরিব, ঈশা, জুম’আ, দুই
ঈদ, তারাবীহ ও রমজান মাসে বিতরের
নামাযে জোরে পড়া।
০৯. বিতরের নামাযে দু’আ কূনুত পড়া।
১০. দুই ঈদের নামাযে ছয়টি অতিরিক্ত
তাকবীর বলা।
১১. ফরয নামাযের প্রথম দুই রাক’আতকে
কিরাআতের জন্য নির্ধারিত করা।
১২. প্রত্যেক রাকায়াতে ফরযগুলোর
তারতীব ঠিক রাখা।
১৩. প্রত্যেক রাকায়াতে ওয়াজিবগুলোর
তারতীব ঠিক রাখা।
১৪. ﺍَﻟﺴَّﻠَﺎﻡُ ﻋَﻠَﻴْﻜُﻢْ ﻭَﺭَﺣْﻤَﺔُ ﺍﻟﻠﻪِ বলে নামায শেষ
করা।

কমেন্টসমুহ
Secret Diary Secret Diary

Top