থাইল্যান্ডে মোটা পুলিশদের ‘পিটিয়ে’ রোগা করতে গোপন ক্যাম্প

থাইল্যান্ড পুলিশের এই বিশেষ শিবিরে যোগ দিয়েছিলেন প্রায় ২০০ জন পুলিশকর্মী। এতে অনেক লাভবানও হয়েছেন অনেকে। ৮০ কেজি থেকে কমে অনেকেই হয়েছেন ৬০, অনেকে আবার ২০০ কেজি থেকে কমে হয়েছেন ১৪০ কেজি।

শোভা দের একটি ট্যুইটে জীবন বদলে গিয়েছিল মধ্য প্রদেশ পুলিশের ইনস্পেকটর দৌলতারাম জোগাওয়াতের। যদিও ওই পুলিশকর্মীকে বডি শেমিং করেছিলেন শোভা। তবে সেই ট্যুইটের জেরেই দৌলতারামকে বিনা পয়সায় বেরিয়াট্রিক সার্জারি করেছিলেন মুম্বইয়ের সইফি হাসপাতালের চিকিৎসক মুফফাজল লাকদাওয়ালা। অস্ত্রোপচার করে ১৮০ কেজি থেকে ৬৫ কেজি কমানো হয়েছিল ওবেসিটি আক্রান্ত ওই পুলিশকর্মীর।

পুলিশের কাজের সঙ্গে ফিটনেসটা অত্যন্ত জরুরি। কারণ ঘণ্টার পর ঘণ্টা দৌড়ে চোর-ডাকাত ধরার পাশাপাশি তাঁদের কাজের ধরনটাই এমন। এবং সে কারণে থাইল্যান্ডের পুলিশ ফোর্স নিজেদের কর্মীদের জন্য একটি বিশেষ ডায়েট ও ওয়ার্কআউট সেশনের বন্দোবস্ত করেছে। জানা গিয়েছে, ওবেসিটি আক্রান্ত পুলিশকর্মীদের জন্য পাক ছং শহরে দু-সপ্তাহের একটি বিশেষ ট্রেনিংয়ের আয়োজন করা হয়েছে। অত্যধিক ওজন রয়েছে যে পুলিশকর্মীদের তাঁদের বাধ্যতামূলক করা হয়েছে এই ট্রেনিং।

এক ট্রেনারের দাবি, ‘মোটা পুলিশকর্মী হলে অনেক রকম অসুবিধে। আপনি ধীরে হাঁটবেন, ধীরে কাজ করবেন। অনেক সময়ই দৌড়ে গিয়ে ক্রিমিনাল ধরতে নাজেহাল হতে হয় তাঁদের।’

গোটা দেশের সব পুলিশ স্টেশন থেকে ২-৩ জন মোটা কর্মীকে যোগ দিতে বলা হয়েছিল এই শিবিরে। তবে অত্যধিক মোটা পুলিশকর্মীদের ফিল্ড ওয়ার্কের জায়গায় অফিসে বসে কাজের মঞ্জুরি দেওয়া হয়েছে।

কমেন্টসমুহ
Secret Diary Secret Diary

Top