ঈদে অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা

ঈদে নৌপথে ঘরমুখী যাত্রীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নিচ্ছে সরকার। দেশের সব ফেরিঘাট ও লঞ্চঘাটে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় এবং অতিরিক্ত যাত্রীবোঝাই নিয়ন্ত্রণে নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হবে। এ ক্ষেত্রে লঞ্চের সরকার অনুমোদিত ভাড়ার চেয়ে বেশি আদায় এবং নদীর মাঝপথে নৌকাযোগে যাত্রী ওঠানো হলে সংশ্লিষ্ট লঞ্চ মালিকদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মঙ্গলবার রাজধানীর মতিঝিলের বিআইডব্লিউটিএ ভবনে ঈদ ব্যবস্থাপনা সভায় এসব সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। আসন্ন ঈদুল ফিতর উপলক্ষে লঞ্চ, ফেরি ও অন্যান্য জলযান সুষ্ঠুভাবে চলাচল ও যাত্রীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় আরও সিদ্ধান্ত হয়- ঈদে যাত্রীদুর্ভোগ লাঘবে পোশাক কারখানাগুলোর ঈদের ছুটি পুনর্বিন্যাসে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়, এফবিসিসিআই, বিজিএমইএ, বিকেএমইএর সঙ্গে সভা করা হবে। সংশ্লিষ্ট জেলার নৌযান, নৌপথ ও পরিবহনের সঙ্গে সম্পৃক্ত সবার সমন্বয়ে স্থানীয়ভাবে সচেতনমূলক সভারও আয়োজন করা হবে।

সভায় সভাপতির বক্তব্যে নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী নৌপথে যাত্রী পরিবহনে মালিক ও শ্রমিক সবাইকে আইন মানার নির্দেশ দিয়ে বলেন, একটি দুর্ঘটনা সবার ঈদের আনন্দ নষ্ট করে দিতে পারে। আর নিরাপদ চলাচলের মধ্য দিয়ে নির্বিঘ্নে ঈদ পালন করতে পারলেই ঈদের পরিপূর্ণতা পাওয়া যাবে। এ জন্য সবাইকে আইন না মানার প্রবণতা থেকে বেরিয়ে আসতে হবে।

সভায় আরও বক্তব্য দেন সংসদ সদস্য গোলাম কিবরিয়া টিপু, নৌ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব শাহাদাৎ হোসেন, বিআইডব্লিউটিসির চেয়ারম্যান প্রণয় কান্তি বিশ্বাস, বিআইডব্লিউটিএর চেয়ারম্যান কমডোর এম মাহবুব-উল ইসলাম, নৌপরিবহন অধিদপ্তরের মহাপরিচালক কমডোর সৈয়দ আরিফুল ইসলাম, নৌপুলিশের ডিআইজি শেখ মারুফ হাসান, লঞ্চ মালিক সমিতির নেতা সাইদুর রহমান রিন্টু, শহীদুল ইসলাম ভূঁইয়া, বদিউজ্জামান বাদল, নৌযান শ্রমিকনেতা শাহ আলম, জাহাঙ্গীর আলম প্রমুখ।

এ সময় বিভিন্ন জেলার জেলা প্রশাসক, অতিরিক্ত পুলিশ সুপারসহ আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী সংস্থা, নৌপরিবহন নেতা ও শ্রমিক সংগঠনের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

কমেন্টসমুহ
BD Life BD Life

Top