রাজধানীতে কিশোর চক্রের টার্গেট নারীরা

রাজধানীর নিউমার্কেট ও গাউছিয়া মার্কেটে কেনাকাটা করতে আসা নারীদের টার্গেট করত একদল কিশোর অপরাধী চক্র। শনিবার (১৮ মে) রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে এ দলের ৬২ সদস্যকে গ্রেফতার করে ডিবির সিরিয়াস ক্রাইম ইউনিট।

এ সময় আটক অজ্ঞান পার্টির ওই কিশোরদের কাছ থেকে চেতনানাশক ট্যাবলেট, ওষুধ মিশ্রিত জুস, খেজুর, সাতটি চোরাই মোবাইল ফোন ও একটি প্রাইভেট কার উদ্ধার করা হয়।

জানা যায়, কেনাকাটায় ব্যস্ত নারীদের ভ্যানিটি ব্যাগ থেকে নগদ টাকা, মোবাইল ফোনসহ দামি জিনিসপত্র হাতিয়ে নিত তারা। আবার হাঁটাচলার সময় তাদের পাশাপাশি থেকে কৌশলে ভ্যানিটি ব্যাগ কেটে নিয়ে যায় মূল্যবান জিনিসপত্র।

ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) কর্মকর্তারা বলছেন, বয়স কম হওয়ায় নারীরা এসব কিশোরকে সন্দেহ কম করেন। আর এ সুযোগটি কাজে লাগিয়ে এমন অপকর্ম করে আসছিল চক্রটি।

এ বিষয়ে ডিবির সিরিয়াস ক্রাইমের সহকারী কমিশনার (এসি) মো. নাজমুল হক গণমাধ্যমকে বলেন, সম্প্রতি অভিযান চালিয়ে ৬২ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। যাদের মধ্যে চারজন কিশোর হওয়ায় তাদের কিশোর সংশোধনাগারে পাঠানো হয়েছে।

ইউনিটের উপকমিশনার (ডিসি) মোদাছছের আলী বলেন, ঈদ সামনে রেখে এসব চক্রের সদস্যরা যাতে অপরাধ কর্মকাণ্ডে জড়াতে না পারে, সে জন্য অভিযান অব্যাহত থাকবে।

ডিবি পুলিশ জানায়, সারা বছরই নিউমার্কেটসহ রাজধানীর বিভিন্ন জনবহুল শপিং এলাকায় এসব অপকর্ম করত চক্রটি। অজ্ঞান পার্টির কাজ ছাড়াও ছিনতাইসহ বিভিন্ন অপরাধে যুক্ত তারা। যখন যে ধরনের অপরাধের সুযোগ হতো, তখন সেটিই করত।

ওই চার কিশোরের গুরু হিসেবে কাজ করে আফজাল হোসেন আরিফ নামে এক ব্যক্তি। অজ্ঞানপার্টির অন্যতম মূলহোতা আফজাল ওই কিশোরদের কাছ থেকে প্রতিমাসে মাসোহারা নিত। র‌্যাবের গুলিতে আহত হওয়ার পর থেকে এক পা ঠিকমতো কাজ করে না তার।

এর আগেও একবার ডিবি পুলিশের হাতে গ্রেফতার হয় সে। তবে এতকিছুর পরও অপরাধজগৎ ছাড়েনি। প্রতি মাসে টাকার বিনিময়ে ওই চার কিশোরের ছায়া হিসেবে কাজ করত আফজাল।

কমেন্টসমুহ
Secret Diary Secret Diary

Top