কী ক্লান্তি!

‘ক্লান্তি আমায় ক্ষমা করো…’ সারাক্ষণ গুনগুন করলেও ক্লান্তি তো পিছু ছাড়ে না। এই গরমে খুব অল্পতেই ক্লান্ত হয়ে যান অনেকে। চোখে-মুখে ফুটে ওঠে সেই ভাব। ক্লান্তি কাটানোর জন্য গীতি’স বিউটি পারলারের রূপবিশেষজ্ঞ গীতি বিল্লাহ দিয়েছেন নানা পরামর্শ।
গীতি বিল্লাহর প্রথম কথাই হলো, বাইরে থেকে বাড়িতে ফিরে প্রথমে ঠান্ডা পানি দিয়ে হাত-মুখ ভালোভাবে ধুতে হবে। হাত-মুখ ধোয়ার পর কিছুক্ষণ বাতাসে বসে কোনো ঠান্ডা পানীয় খেতে পারেন। যেমন ফলের রস বা দই দিয়ে তৈরি কোনো পানীয়। এরপর কিছুক্ষণ বিশ্রাম নিন। এতে সারা দিনে শরীর থেকে ঘাম হয়ে বের হয়ে যাওয়া পানি ও খনিজ উপাদান কিছুটা পূর্ণ হয় এবং শরীর ঠান্ডা থাকে। আরও সজীব হতে চাইলে ঘণ্টা খানেক পরে ভালোভাবে গোসল করুন। গোসলের পানিতে একটু গোলাপজল মিশিয়ে নিতে পারেন। গরমে অবশ্যই সুতি কাপড়ের ঢিলেঢালা পোশাক পরুন। রাতে ভাজা-পোড়া খাবার না খেয়ে কম মসলা দেওয়া ঝোলযুক্ত খাবার গ্রহণ করুন।

মনে রাখুন
. গরমে ক্লান্তি ও অবসাদ যেন ভর না করে, এ জন্য বেশি করে পানি পান করতে হবে। বাইরে বা অফিসে হাতের কাছে পানির বোতল রাখুন।
. বারবার মুখ ধোয়ার অভ্যাস করুন। দিনে অন্তত দুবার খুব ভালো করে ফেসওয়াশ দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলা উচিত। পানির ঝাপটায় সহজে ক্লান্তি দূর হয়ে যায়। গরমে ত্বকে ঘামসহ নানা ধরনের ময়লা জমে। পানি হলো প্রাথমিক ও উৎকৃষ্ট ক্লেনজার।
. আম, তরমুজ, আনারসের মতো মৌসুমি ফলের শরবত পান করতে পারেন। শরবতে সামান্য পুদিনা পাতা মেশাতে পারেন।
. স্যালাইন খেতে পারেন। কেনা স্যালাইন বিশুদ্ধ পানিতে গুলিয়ে খেতে পারেন। অথবা এক গ্লাস পানিতে এক চা-চামচ চিনি এবং এক চিমটি খাওয়ার লবণ মিশিয়েও খাওয়া যেতে পারে। এতে আপনার দেহে লবণ ও পানির ভারসাম্য বজায় থাকবে।
. কোমল পানীয় এবং এনার্জি ড্রিংক এড়িয়ে চলুন। এগুলোতে পানি থাকলেও অধিক পরিমাণে খাওয়া যায় না। ফলে পিপাসা মিটলেও শরীরে পানির ঘাটতি থেকে যায়। কিছুক্ষণ পর আপনি আবারও তৃষ্ণার্ত অনুভব করবেন।
. প্রয়োজনে বাইরে বের হবার সময় কমপক্ষে হাফ হাতা এবং সম্ভব হলে ফুল হাতার পোশাক পরিধান করুন। এটি আপনার ত্বককে সরাসরি সূর্যালোক থেকে রক্ষা করবে।
. ছেলেরা মাথায় টুপি বা হ্যাট এবং মেয়েরা মাথায় স্কার্ফ কিংবা ওড়না ব্যবহার করুন। এতে আপনার চুল রোদে পোড়ার হাত থেকে রক্ষা পাবে।

. বাইরে বেরোনোর সময় অবশ্যই সঙ্গে নেবেন রোদচশমা।
গীতি বিল্লাহ আরও জানান, বাড়ি ফিরে একটু ময়দার সঙ্গে গোলাপ পানি, একটু হলুদ বাটা আর দই বা দুধ মিশিয়ে মুখে লাগিয়ে রাখতে হবে কিছুক্ষণের জন্য। মিশ্রণটা শুকিয়ে গেলে ধুয়ে ফেলতে হবে। এতে সারা দিনের ক্লান্তি মুছে ত্বক আবার উজ্জ্বল হয়ে উঠবে।
গরমের অন্যতম বড় সমস্যা রোদে ত্বক পুড়ে যাওয়া। ময়দার সঙ্গে দই আর লেবুর রসের মিশ্রণ ত্বকের জন্য খুব ভালো। চটকানো পেঁপের সঙ্গে দই, ডিমের সাদা অংশ ও মধুর মিশ্রণ মুখে লাগাতে পারেন। এ ছাড়া অ্যালোভেরা ত্বকের পক্ষে অত্যন্ত ভালো। গরমে অ্যালোভেরা ত্বককে শীতল করে। শসার রস শুষ্ক ত্বকে খুব ভালো টোনার হিসেবে কাজ করে। একটু সময় মেনে সচেতন হয়ে নিজের যত্ন নিলে এই গরমে খুব সহজে ক্লান্ত হবেন না আপনি।

কমেন্টসমুহ
Secret Diary Secret Diary

Top