মেয়েটি মা হয়েছে, বাবা কে?

তাহিরপুর উপজেলা সদর বাজারে ঘোরাঘুরি করতেন মানসিক ভারসাম্যহীন অন্তঃসত্ত্বা এক মেয়ে। সোমবার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পুত্রসন্তান জন্ম দিয়েছেন তিনি। তবে তার বাবা কে, তা জানা যায়নি। নবজাতককে দত্তক নেওয়ার জন্য এরই মধ্যে অনেকে যোগাযোগ করেছেন বলে জানান উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. ইকবাল হোসেন।

স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক মহিউদ্দিন বিপ্লব জানান, মেয়েটি সন্তান জন্ম দিলেও বুকের দুধ খাওয়াতে কিংবা পাশে রাখতে চাইছেন না।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কর্মরত অফিস সহায়ক মিজানুর রহমান জানান, নবজাতককে দত্তক নেওয়ার জন্য তার বোন রোজিনা বেগম অনুরোধ জানালেও সংশ্নিষ্ট কর্তৃপক্ষ আপাতত শিশুটিকে হাসপাতালে রেখে যত্ন নেওয়ার নির্দেশনা দেয়। এ অবস্থায় তার বোন ও পরিবারের সদস্যরা মিলে শিশুটিকে সেবাযত্ন করছেন।

তবে শিশুটির মাকে কিছুতেই হাসপাতালের ওয়ার্ডে রাখা সম্ভব হচ্ছে না। সোমবার বিকেলে শিশুকে হাসপাতালে রেখে গেটের বাইরে চলে যান তিনি। এ অবস্থায় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের লোকজন তাকে নানাভাবে বুঝিয়ে ওয়ার্ডে ফিরিয়ে আনেন। বর্তমানে তাকে হাসপাতালের একটি কক্ষে তালাবদ্ধ করে রাখা হয়েছে।

ভাটি তাহিরপুর গ্রামের পাচমিনা বেগম বলেন, সোমবার সকালে বাজারে এসে দেখি লামাবাজারে যাওয়ার রাস্তায় মেয়েটি দু’হাত পেটে ধরে চিৎকার করছে। এ অবস্থায় তিনি একটি রিকশায় হাসপাতালে নিয়ে যান।

তাহিরপুর বাজার বণিক সমিতির সভাপতি আবিকুল ইসলাম বলেন, প্রায় তিন মাস ধরে মেয়েটি এই বাজারে এসেছে।

কমেন্টসমুহ
Secret Diary Secret Diary

Top