গাছ বাঁচাতে ফাঁসির মঞ্চে নওশাবাসহ কয়েকজন

ঢাকার সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে নির্বিচারে গাছ কেটে ফেলার প্রতিবাদে মুখর দেশের পরিবেশবাদীসহ সাধারণ নাগরিকরা। ইতোমধ্যে সবুজ ধ্বংসের প্রতিবাদে বিভিন্ন নাগরিক সমাজ বিভিন্ন কর্মসূচী পালন করছেন।

এবার এই গাছ কাটার প্রতিবাদে ব্যতিক্রমীভাবে যুক্ত হলেন অভিনেত্রী নওশাবা আহমেদ। তার সঙ্গে যুক্ত হয়েছেন বিনোদন অঙ্গনের কয়েকজন। এদের মধ্যে রয়েছে শাহাদাত রাসএল (চলচ্চিত্র নির্মাতা), মনীষা অর্চি (অভিনয়শিল্পী) ও আলী আফসার (থিয়েটার কর্মী)।

এতে প্রতীকী ফাঁসির মঞ্চ তৈরি করে দেখানো হয় গাছ কাটার বিপদ। এর মঞ্চে দাঁড়ান তিনজন। পাশাপাশি উন্নয়নের প্রতীক হিসেবে কুড়াল হাতে ছিলেন আরও একজন।

বিষয়টি নিয়ে অভিনেত্রী নওশাবা বলেন, ‘প্রকৃতি ধ্বংস করে উন্নয়ন করা কি সত্যিকার অর্থে আমাদের জন্য খুব জরুরি? আমি উন্নয়নের পক্ষে, কিন্তু প্রকৃতি বান্ধব উন্নয়ন চাই। আমি উন্নয়ন বিরোধী নয়। আমার মনে হয়, যে কোনো সংবেদনশীল মানুষই চাইবেন না, প্রকৃতিকে ধ্বংস করে উন্নয়ন করতে। প্রকৃতি তো আমাদের শেকড়। তাই শেকড় ছিন্ন এমন উন্নয়ন চাই না।”

এই কর্মসূচি নিয়ে নওশাবা আরো বলেন, ‘আমরা নিরবে আয়োজনটি সম্পন্ন করেছি। আমরা উন্নয়নর বিরুদ্ধে নই, তবে প্রকৃতি বান্ধব- এটা শুধু সোহরাওয়ার্দীর গাছকাটা নিয়েই নয় আমরা পৃথিবীর সব জায়গায় গাছ কাটার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ স্বরূপ দাঁড়িয়েছি। আমরা প্রতীকী গাছের রূপ ধরে ফাঁসির মঞ্চে দাঁড়িয়েছিলাম।’

পারফর্মিং আর্টের অন্যতম আয়োজক চলচ্চিত্র নির্মাতা শাহাদাত রাসেল বলেন, ‘ঐতিহ্যবাহী ও বাঙালির স্বাধীনতা আন্দোলনের স্মৃতিবিজড়িত সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে উন্নয়নের নামে নির্বিচারে গাছ কেটে ফেলা হচ্ছে। আমরা প্রকৃতি ধ্বংস করে উন্নয়ন চাই না। এভাবে প্রকৃতি ধ্বংস পৃথিবীকেই মৃত্যুর দিকে ঠেলে দিচ্ছে।’

আয়োজকরা জানান, জাতীয়ভাবে ঐতিহ্যবাহী ও বাঙালির স্বাধীনতা আন্দোলন থেকে ৭ই মার্চের প্রতিটি স্তরের স্মৃতি বিজড়িত সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে উন্নয়নের নামে নির্বিচারে গাছ কেটে ফেলা হচ্ছে। এভাবে প্রকৃতি ধ্বংস পৃথিবীকেই মৃত্যুর দিকে ঠেলে দিচ্ছে। প্রকৃতির স্বাতন্ত্র্য বজায় রেখে সকল প্রাণী ও প্রকৃতিকে নিরাপদ রেখেই এগিয়ে যেতে চাই উন্নয়নের পথে। প্রকৃতি বান্ধব উন্নয়ন চাই। আমরা এই বার্তাটি সকলের কাছে পৌঁছে দিতে চেষ্টা করছি আমরা।

কমেন্টসমুহ
Secret Diary Secret Diary

Top